‘সিনিয়রদের যতই দেখেন, ততই অবাক হন ইয়াসির’

'সিনিয়রদের যতই দেখেন, ততই অবাক হন ইয়াসির'

ইয়াসির আলি রাব্বি জাতীয় দলের রাডারে আছেন বেশ কয়েক বছর ধরে। এখনো আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অভিষেক না হলেও জাতীয় দলের স্কোয়াড ও ক্যাম্পে থাকার ফলে শিখতে পারছেন অনেক কিছু। ডানহাতি এই ব্যাটসম্যান ছিলেন ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজের প্রাথমিক দলে। আছেন টেস্টের প্রাথমিক দল ও তিনদিনের প্রস্তুতি ম্যাচের স্কোয়াডেও। চূড়ান্ত স্কোয়াডে থাকা না থাকাকে পাশে রেখে সাকিব, তামিমদের কাছ থেকে দেখে ভালো দিকগুলো আয়ত্বের চেষ্টা করছেন বলে জানান রাব্বি।

২০১৯ বিশ্বকাপের আগে আয়ারল্যান্ডে অনুষ্ঠিত ত্রিদেশীয় সিরিজের পর গত বছর জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে টেস্টের প্রাথমিক স্কোয়াডেও ছিলন চট্টগ্রামের লোকাল বয় ইয়াসির আলি রাব্বি। তবে জাতীয় দলের হয়ে এখনো জার্সি গায়ে উঠেনি, এবারও ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ওয়ানডের চূড়ান্ত স্কোয়াডে সুযোগ মিলেনি। তবে টেস্টের চূড়ান্ত স্কোয়াডের আশা এখনো ফুরিয়ে যায়নি, তিনদিনের প্রস্তুতি ম্যাচ শেষেই ঘোষণা হবে দল।

তবে দলে থাকার ভাবনায় ডুবে না থেকে জাতীয় দলের পরিবেশের সাথে খাপ খাইয়ে নেওয়ার মানসিকতায় এগোচ্ছেন রাব্বি। আধুনিক ক্রিকেটে সেরাদের কাতারে যেতে পরিশ্রমের সাথে প্রতিনিয়ত উন্নতির কোন বিকল্প নেই। ইতোমধ্যে এমন কিছু ভালো করে বুঝে ফেলেছেন রাবি।

ডানহাতি এই ব্যাটসম্যান আজ (২৬ জানুয়ারি) এক ভিডিও বার্তায় বলেন, ‘আমি যতই দেখি সিনিয়র ভাইদেরকে, ততই অবাক হই। এই স্টেজে এসেও উনারা যে হার্ডওয়ার্কটা করেন সাকিব ভাই, তামিম ভাই, মুশফিক ভাই। মুশফিক ভাইয়ের কথা তো আমরা সবাই জানি কিন্তু বিশেষ করে তামিম ভাই সাকিব ভাই যেভাবে নিজেদেরকে মেইন্টেন করে এখন তাঁদের সঙ্গে আমি সবসময় কথা বলি ওই সব বিষয় নিয়ে যে কিভাবে আপনারা নিজেদেরকে মেইন্টেন করেন।’

‘এখন আসলে যে যুগ যে প্রতিযোগিতা তো নিজেকে ওই রকমভাবে মেইন্টেন না করলে খেলাটা খুব কঠিন হয়ে যায়। তো সবাইকে দেখেই সবার কাছে থেকে ভালো ভালো জিনিস নেয়ার চেষ্টা করছি। আসলেই অনেক রোমাঞ্চিত ছিলাম যখনই শুরু হচ্ছিলো আমাদের এই ক্যাম্পটা। কারণ আমি আগে কখনও সাকিব ভাই, মুশফিক ভাই, তামিম ভাই, রিয়াদ ভাই সবাইকে এক সঙ্গে কখনও পাইনি।’

‘প্রথম থেকেই ওয়ানডে সিরিজের ক্যাম্প থেকেই খুব রোমাঞ্চিত ছিলাম যে আমি তাদের সঙ্গে ড্রেসিংরুম ভাগাভাগি করে নিতে পারছি। এখন টেস্টে এসে দেখা যাচ্ছে উনাদের তিনজনকে আবার পাচ্ছি। হ্যাঁ, সত্যিই আমি রোমাঞ্চিত। সত্যি বলতে যেহেতু তামিম ভাই সাকিব ভাই এনাদেরকে ছোট থেকে দেখেই বড় হয়েছি ক্রিকেটে। আসলেই আমি রোমাঞ্চিত যেটা আমি বলতে পারব না ভাষায় প্রকাশ করতে পারব না।

অনেক যদি কিন্তুর ভীড়ে শেষ পর্যন্ত রাবি যদি টেস্টের চূড়ান্ত স্কোয়াডে থেকে যান তবে সুযোগ থাকবে ঘরের মাঠে চট্টগ্রামেই দলের সাথে ড্রেসিং রুম ভাগাভাগির। বিষয়টি রোমাঞ্চিত করছে ৫১ টি প্রথম শ্রেণি ও ৭৩ টি লিস্ট ‘এ’ ম্যাচ খেলা ডানহাতি এই ব্যাটসম্যানকে।

রাব্বি বলেন, ‘আলহামদুলিল্লাহ, ভালো একটি ফিলিংস কারণ আমরা প্রায় এক বছর পর আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফিরছি সেটা যদি হয় চট্টগ্রাম থেকে আমার হোম টাউন তো অন্য রকম এক রোমাঞ্চ কাজ করছে। জানি না হয়তো একাদশে থাকার সুযোগ হবে কি হবে না কিন্তু এটা একটা ভালো লাগার বিষয় যে আমি দলের সঙ্গে আছি।’

চট্টগ্রাম থেকে, ক্রিকেট৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

তামিমদের সাফল্যে অনুপ্রাণিত জাহানারা-সালমারা

Read Next

এখন আর ভেঙে পড়েন না রাব্বি

Total
2
Share