চট্টগ্রামেও টাইগারদের দাপুটে জয়, হোয়াইটওয়াশ হল ওয়েস্ট ইন্ডিজ

চট্টগ্রামেও টাইগারদের দাপুটে জয়, হোয়াইটওয়াশ হল ওয়েস্ট ইন্ডিজ

শহর বদলেছে, ভেন্যু বদলেছে, তবে ভাগ্য বদলায়নি ক্যারিবিয়ায়নদের। ঢাকায় প্রথম দুই ওয়ানডে হেরে বন্দরনগরী চট্টগ্রামে এসে শেষ ম্যাচ থেকে টেস্ট সিরিজের জন্য কেবল আত্মবিশ্বাসের রসদ পেতে চেয়েছিল দলটির সহকারী কোচ রডি এস্টউইক। তবে সাগরিকার জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়াম এ যাত্রায়ও হতাশ করেছে সফরকারীদের। বরং সিরিজে প্রথমবারের মত বাংলাদেশকে আগে ব্যাটিংয়ে পাঠিয়ে বড় রানের নিচে চাপা পড়ে জেসন মোহাম্মদের দল।

চার সিনিয়র ক্রিকেটার তামিম ইকবাল, সাকিব আল হাসান, মুশফিকুর রহিম, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের ফিফটিতে ভর করে ৬ উইকেটে ২৯৭ রানের সংগ্রহ পায় বাংলাদেশ। যেখানে তামিম, মুশফিক ও মাহমুদউল্লাহ করেন সমান ৬৪ রান করে। ৫১ রান আসে সাকিব আল হাসানের ব্যাট থেকে।

 

View this post on Instagram

 

A post shared by cricket97 (@cricket97bd)

লক্ষ্য তাড়ায় টাইগার বোলারদের দাপটের দিনে পাশের বঙ্গোপসাগরে নিমজ্জিত হওয়ার উপক্রম সুনীল আমব্রিস, কাইল মায়ের্স, জেসন মোহাম্মদ, ক্রুমাহ বোনারদের। যদিও এদিন আগের দুই ম্যাচে (১২২ ও ১৪৮) নিজেদের দলীয় সংগ্রহকে পেছনে ফেলেছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। স্রোতের বিপরীতে দাঁড়িয়ে রবম্যান পাওয়েলের খেলা ৪৭ রানের ইনিংসে ক্যারিবিয়ানরা থামে ১৭৭ রানে। ১২০ রানের জয়ে ওয়ানডেতে নিজেরদের ১৪ তম হোয়াইট ওয়াশ নিশ্চিত করে বাংলাদেশ।

নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারানো ওয়েস্ট ইন্ডিজের সর্বোচ্চ রানের জুটি ৩৮। ৭ম উইকেট জুটিতে রবম্যান পাওয়েল ও রেমন রেফার এ জুটি গড়েন। আগের দুই ম্যাচের ময় এদিনও ক্যারিবিয়ানদের সাজঘরের পথ দেখানো শুরু করেন মুস্তাফিজুর রহমান। তার জোড়া আঘাতে ৩০ রানেই বিদায় নেয় দুই ওপেনার কেজর্ন ওটলে (১) ও সুনীল আমব্রিস (১৩)। অন্যদের যাওয়া আসার ভীড়ে কিছুটা প্রতিরোধ গড়ার চেষ্টা ক্রুমাহ বোনারের।

তার ৬৬ বলে খেলা ৩১ রানের ইনিংসও শেষ হয় সিরিজে প্রথম খেলতে নামা মোহাম্মদ সাইফউদ্দিনের দ্বিতীয় শিকার হয়ে। বোনারের আগে সাইফউদ্দিন ফিরিয়েছেন অধিনায়ক জেসন মোহাম্মদকেও (১৭)। ৯৩ রানে পাঁচ উইকেট হারানো ওয়েস্ট ইন্ডিজ ১৭৭ রান পর্যন্ত যেতে পারে রবম্যান পাওয়েল ও রেমন রেফারের ব্যাটে।

৪৯ বলে সমান দুইটি করে চার-ছক্কায় ৪৭ রান করা পাওয়েলকে এলবিডব্লিউর ফাঁদে ফেলেন সৌম্য সরকার। প্রায় সাড়ে তিন বছর পর ওয়ানডে খেলতে নেমে ২৭ রান করা রেফারকে ফেরান তাসকিন আহমেদ। বাংলাদেশের হয়ে সর্বোচ্চ তিনটি উইকেট তুলে নেন সাইফউদ্দিন। দুইটি করে শিকার মেহদী হাসান মিরাজ ও মুস্তাফিজুর রহমানের।

সব ইতিবাচকের ভীড়ে এদিন বাংলাদেশের জন্য দুঃসংবাদ হল কুঁচকিতে চোট পেয়ে সাকিবের মাঠের বাইরে চলে যাওয়া। ওয়েস্ট ইন্ডিজ ইনিংসের ৩০ তম ওভারে নিজের ৫ম ওভারে বল করতে এসেছিলেন সাকিব। ৪র্থ বলে ফলো থ্রুতে রান আটকাতে যেয়ে কুঁচকিতে চোট পান। পরবর্তীতে ৫ম বলে ব্যাথা অনুভব করলে মাটিতে শুয়ে পড়েন।

ব্যাথায় কাতরাতে থাকা সাকিব আল হাসানকে দেখতে ছুটে আসেন বাংলাদেশ দলের ফিজিও। কিছুক্ষণ পর মাঠ ছাড়েন তিনি। ওভারের বাকি থাকা বলটি করেন সৌম্য সরকার।

প্রথম দুই ম্যাচে আগে ব্যাট করা ক্যারিবিয়ানদের ব্যাটিং ব্যর্থতায় সহজে জয় পাওয়া বাংলাদেশ নিজেদের ব্যাটিং গভীরতা যাচাইয়ের সুযোগ পায়নি। আজ (২৫ জানুয়ারি) টস জিতে ফিল্ডিং নিয়ে বাংলাদেশের কাজটা সহজ করে দিয়েছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ অধিনায়ক জেসন মোহাম্মদ।

একাদশে দুই পরিবর্তন আনে বাংলাদেশ। রুবেল হোসেনের পরিবর্তে মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন ও হাসান মাহমুদের পরিবর্তে তিন বছরের বেশি সময় পর ওয়ানডে দলে সুযোগ পেয়েছেন তাসকিন আহমেদ।

প্রায় দেড় বছর পর সাগরপাড়ের চট্টগ্রামে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট ফিরেছে। এমনিতে জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামকে টাইগারদের লাকি ভেন্যু বলা হয়। আজকের আগে ১৯ ওয়ানডেতে বাংলাদেশ জিতেছে ১২ টিতে। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে একমাত্র ম্যাচে মুখোমুখি হয়ে জিতেছিল ৮ উইকেটে। পরিসংখ্যান পক্ষে থাকা বাংলাদেশ এবার প্রতিপক্ষ হিসেবে পেল খর্ব শক্তির ক্যারিবিয়ানদের।

টস হেরে ব্যাট করতে নেমে চট্টগ্রামের স্পোর্টিং উইকেটে লিটন দাস ফিরেছেন খালি হাতে। আলঝারি জোসেফের করা ইনিংসের পঞ্চম বলেএলবিডব্লিউর ফাঁদে পড়েন এই ওপেনার। তবে অন্য প্রান্তে সাবলীল অধিনায়ক তামিম ইকবাল। তিন নম্বরে নামা নাজমুল হোসেন শান্ত অবশ্য ব্যর্থ হয়েছেন আরেক দফা। অভিষিক্ত কিওন হার্ডিংয়ের বলে ব্যক্তিগত ১২ রানে জীবন পেয়েও করতে পারেননি ২০ রানের বেশি।

৩৮ রানে ২ উইকেট হারানো বাংলাদেশকে টেনে নেয় সাকিব আল হাসানের সাথে তামিমের ৯৩ রানের জুটি। যদিও নিজের খেলা প্রথম বলেই কাইল মায়ের্সকে ফিরতি ক্যাচ দিয়ে বেঁচে যান সাকিব। জীবন পেয়ে অবশ্য ফিফটি তুলে নেন এই বাঁহাতি ব্যাটসম্যান, সাকিবের আগেই টানা দ্বিতীয় ফিফটিতে পৌঁছান তামিম। দুজনে জুটিতে এতটাই সতর্ক ছিলেন যে টানা ১৪ ওভার আসেনি কোন বাউন্ডারি।

আগের ম্যাচে ঠিক ৫০ রানে আউট হওয়া তামিম আজ থেমেছেন ৬৪ রানে। ৮০ বলে ৩ চার ১ ছক্কায় ইনিংসটি সাজান তামিম। এ পথে অবশ্য তামিম গড়েছেন একটি রেকর্ডও। চট্টগ্রামের লোকাল বয় জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে প্রথম ব্যাটসম্যান হিসেবে ৫০০ ওয়ানডে রানের মাইলকফলক স্পর্শ করেন। মিরপুরের (২৭১৩) পর কোন নির্দিষ্ট ভেন্যুতে এটিই তার সর্বোচ্চ রান। বর্তমানে এই মাঠে তার নামের পাশে আছে ১৫ ইনিংসে ৫৬১ রান।

তামিমের মত সাকিব আল হাসানও ফিফটির পর বেশিক্ষণ টিকেননি। দলীয় ১৭৯ রানে চতুর্থ ব্যাটসম্যান হিসেবে রেমন রেফারের বলে বোল্ড হয়ে ৫১ রানেই থামেন। দিনের হিসেবে ৫৭১ দিন পর ওয়ানডে ফিফটি এলো সাকিবের ব্যাট থেকে। ২০১৯ বিশ্বকাপের শেষ ম্যাচে পাকিস্তানের বিপক্ষে ৬৪ রান করা সাকিব অবশ্য নিষেধাজ্ঞা ও বিশ্রাম শেষে প্রথম ওয়ানডে খেলেছেন এই সিরিজেই।

তামিম-সাকিবের গড়ে দেওয়া ভীতকে দারুণভাবে কাজে লাগান মুশফিকুর রহিম ও মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। দুজনে পঞ্চম উইকেট জুটিতে যোগ করেন ৫২ বলে ৭২ রান। তামিম-সাকিবের পর ফিফটির দেখা পান মাহমুদউল্লাহ-মুশফিকও। দুজনে রান করেছেন দ্রুতগতিতে। ৫৫ বলে ৪ চার ২ ছক্কায় ৬৪ রান আসে মুশফিকের ব্যাট থেকে। ৪৭ তম ওভারের প্রথম বলে রেমন রেফারকে ছক্কা হাঁকানোর পরের বলেই ক্যাচ দিয়েছেন আলঝারি জোসেফের হাতে।

মুশফিক আউট হলেও রানের গতি বাড়ানোর কাজটা ঠিকই চালিয়ে যান মাহমুদউল্লাহ। আলঝারি জোসেফকে কাভার অঞ্চল দিয়ে ছক্কা হাঁকিয়ে ৪০ বলে তুলে নেন ক্যারিয়ারের ২২তম ওয়ানডে ফিফটি। শেষ পর্যন্ত অপরাজিত ছিলেন ৪৩ বলে সমান তিনটি করে চার, ছক্কায় ৬৪ রানে। ৫ রানে মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন অপরাজিত থাকলেও সিরিজের প্রথমবার ব্যাট করতে নেমে ৭ রানেই রান আউটে কাটা পড়েন সৌম্য সরকার।

সংক্ষিপ্ত স্কোরঃ

বাংলাদেশ ২৯৭/৬ (৫০), তামিম ৬৪, লিটন ০, শান্ত ২০, সাকিব ৫১, মুশফিক ৬৪, মাহমুদউল্লাহ ৬৪*, সৌম্য ৭, সাইফউদ্দিন ৫*; জোসেফ ১০-০-৪৮-২, মায়ের্স ৭-০-৩৪-১, রেইফার ১০-০-৬১-২

ওয়েস্ট ইন্ডিজ ১৭৭/১০ (৪৪.২), ওটলে ১, অ্যামব্রিস ১৩, বোনার ৩১, মায়ের্স ১১, জেসন ১৭, রবম্যান ৪৭, হ্যামিল্টন ৫, রেইফার ২৭, জোসেফ ১১, আকিল ০, হার্ডিং ১*; সাইফউদ্দিন ৯-০-৫১-৩, মুস্তাফিজ ৬-০-২৪-২, তাসকিন ৮.২-১-৩২-১, মিরাজ ১০-২-১৮-২, সৌম্য ৩.১-০-২২-১

ফলাফলঃ বাংলাদেশ ম্যাচে ১২০ রানে জয়ী, সিরিজে ৩-০ ব্যবধানে জয়ী

ম্যাচসেরাঃ মুশফিকুর রহিম (বাংলাদেশ)

সিরিজসেরাঃ সাকিব আল হাসান (বাংলাদেশ)।

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

সাকিবের ইনজুরি আপডেট

Read Next

প্রথম ম্যাচেই নিজের প্রয়োজনীয় আত্মবিশ্বাস পেয়েছিলেন সাকিব

Total
0
Share