শক্ত প্রতিপক্ষের বিপক্ষে লড়তেও প্রস্তুত হাসান মাহমুদ

শক্ত প্রতিপক্ষের বিপক্ষে লড়তেও প্রস্তুত হাসান মাহমুদ

টি-টোয়েন্টি অভিষেকটা গত বছর জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে, ওয়ানডে অভিষেকটা হল চলমান ওয়েস্ট ইন্ডিজ সিরিজে। মূল ক্রিকেটাররা না থাকায় খর্ব শক্তির ওয়েস্ট ইন্ডিজই বাংলাদেশ সফরে আসে। সিরিজের প্রথম ওয়ানডেতে অভিষিক্ত হাসানের শিকার ২৮ রানে তিন উইকেট। তরুণ এই পেসার জানালেন প্রতিপক্ষ দুর্বল ওয়েস্ট ইন্ডিজ না হয়ে ভারত, ইংল্যান্ড হলেও প্রস্তুত ছিলেন।

প্রথম ম্যাচে দারুণ শুরুর পর দ্বিতীয় ম্যাচে অবশ্য সেরা ছন্দে ছিলেন না হাসান। এক উইকেট শিকারের বিপরীতে ছিলেন খরুচেও। ডানহাতি এই পেসার অবশ্য গতি দিয়ে নজর কেড়েছেন বয়সভিত্তিকেই। নির্বাচকদের রাডারে থাকা হাসান মাঝে ভুগেছেন ইনজুরিতে, চোট কাটিয়ে ফিরে এসে ছন্দ খুঁজে পাওয়ার প্রক্রিয়াটা কঠিন ছিল জানালনে নিজেই।

আজ (২৫ জানুয়ারি) এক ভিডিও বার্তায় তিনি বলেন, ‘ ইনজুরির সময়টা আসলে চাপের মধ্যেই ছিলাম যে একটা বছর রিহ্যাব বলেন, রেস্ট বলেন কামব্যাক করতে করতে প্রায় এক বছর হয়ে গিয়েছিল। পরে এইচপিতে ব্যাক করেছি, ওখানে ভালো করেছি, ওখান থেকেই শুরু হয়েছে।’

ওয়ানডে অভিষেক রাঙানো হাসান মাহমুদ প্রতিপক্ষ হিসেবে ভারত, ইংল্যান্ডকে পেলেও একই মানসিকতা নিয়ে খেলতে নামতেন বলে জানান, ‘অবশ্যই। আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলতে হলে অবশ্যই এরকম মানসিক শক্তি দরকার যেরকম লাগবে আরকি। তো অবশ্যই চেষ্টা থাকবে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট হোক ঘরোয়া ক্রিকেট হোক লাইন, লেংথের সাথে কম্প্রমাইজ করা যাবেনা, প্লাস পেস। ওভারঅল চেষ্টা করবো।’

গতিটা তার বাড়তি সুবিধা তবে মসৃণ অ্যাকশনের কারণেও পান অতিরিক্ত বাউন্স। ২১ বছর বয়সী এই পেসার মনে করেন এই অ্যাকশন সৃষ্টিকর্তা প্রদত্ত। নতুন করে যোগ করতে চান সঠিক লাইন লেংথের সাথে ছোট ছোট সুইং।

হাসান বলেন, ‘এটা (মসৃণ বোলিং অ্যাকশন) আসলে গড গিফটেড আসলে। আমি আমার মতই বল করি (হাসি)। চেষ্টা করবো লাইন, লেংথ ঠিক রাখতে, ছোট খাটো সুইং থাকবে।’

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

পাকিস্তানের ১৭ সদস্যের চূড়ান্ত স্কোয়াড ঘোষণা

Read Next

টেস্টের আগে আত্মবিশ্বাস পেতে চায় ওয়েস্ট ইন্ডিজ

Total
5
Share