‘অবশ্যই আমাদের লক্ষ্য সিরিজ জেতা’

'অবশ্যই আমাদের লক্ষ্য সিরিজ জেতা'

বাংলাদেশ সফরে এসে চারদিন হোটেল বন্দী থাকার পর আজ (১৪ জানুয়ারি) থেকে অনুশীলন শুরু করেছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ দল। সকালে অনুশীলন শেষে ক্যারিবিয়ান ওয়ানডে অধিনায়ক জেসন মোহাম্মদ বলছেন সতেজ বাতাশে অনুশীলন সেশন হয়েছে দারুণ। ঘরের মাঠে বাংলাদেশের বিপক্ষে লড়াইটা কঠিন হবে উল্লেখ করে চ্যালেঞ্জ নিতে চান বলে জানালেন ওয়েস্ট ইন্ডিজ দলপতি।

করোনাকালে সবচেয়ে বেশি বিদেশ সফর করা দল ওয়েস্ট ইন্ডিজ। ইংল্যান্ড, নিউজিল্যান্ড সফরের পাশাপাশি দলটির বেশ কয়েকজন ক্রিকেটার খেলেছে আইপিএল, সিপিএল ও বিগ ব্যাশে। ফলে বাংলাদেশ সফরের আগেই নিউ নরমালে কোয়ারেন্টাইন, আইসোলেশন ও বায়োবাবল যেন নিত্য নৈমত্তিক ব্যাপার হয়ে দাঁড়িয়েছে তাদের জন্য।

বাংলাদেশে পৌঁছে গত ১০ জানুয়ারি থেকে ১৩ জানুয়ারি পর্যন্ত থাকতে হয়েছে হোটেল বন্দী। এদিকে বর্তমানে করোনার উর্বর ভূমি ইংল্যান্ডের হিথ্রো বিমানবন্দর ব্যবহার করে বাংলাদেশে আসায় তাদের মাঠে নামার অপেক্ষা অবশ্য হতে পারতো দীর্ঘ। কারণ ইংল্যান্ড থেকে আসা যে কারো জন্যই বাংলাদেশ সরকার ১৪ দিনের কোয়ারেন্টাই বাধ্যতামূলক করেছে।

তবে বিশেষ বিবেচনায় বিসিবির আবেদনের প্রেক্ষিতে দুইবার করোনা নেগেটিভ হয়ে পঞ্চম দিনেই মাঠে এসে অনুশীলনের সুযোগ পেল ক্যারিবিয়ানরা। হোটেলে আইসলেশনের সময়টা খুব কঠিন ছিল বলছেন জেসম মোহাম্মদ। মুক্ত বাতাশে অনুশীলনে প্রাণ ফিরে পেয়েছেন ক্যারিবিয়ান শিবির।

মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামের একাডেমি মাঠে অনুশীলনের ফাঁকে এক ভিডিও বার্তায় জেসন মোহাম্মদ বলেন, ‘৩ দিন আইসোলেশনে থাকা খুব কঠিন ছিল। ভালো লাগছে বাইরে আসতে পেরে। কিছু সতেজ বাতাশে শেষ পর্যন্ত আমাদের অনুশীলন শুরু হয়েছে।’

ওয়েস্ট ইন্ডিজ দল এদিন অনুশীলন করেছে দুই ভাগে। সকালে টেস্ট দল অনুশীলন করেছে সকাল ১০ টা থেকে। অন্যদিকে ওয়ানডে দলের অনুশীলন শুরু হয় দুপুর দেড়টায়।

খর্ব শক্তির দল নিয়ে বাংলাদেশে আসলেও ওয়ানডে সিরিজ জয়ের দিকেই নজর জেসন মোহাম্মদের। দলটির কোচও একদিন আগে জানিয়েছেন তারা বাংলাদেশে জিততেই এসেছেন।

কোচের সুরে ওয়ানডে অধিনায়ক জেসন মোহাম্মদ বলেন, ‘অবশ্যই আমাদের লক্ষ্য সিরিজ জেতা। ধারাবাহিকভাবে ভালো ক্রিকেট খেলে লক্ষ্যে পৌঁছাতে হবে আমাদের। ব্যাটিং, বোলিং ও ফিল্ডিং তিন বিভাগেই ভালো করা গুরুত্বপূর্ণ। প্রথমে যতটা সম্ভব ধারাবাহিক হতে হবে, তাহলেই তিন বিভাগে আমরা আমাদের পরিকল্পনার প্রয়োগ করতে পারবো।’

দলের মূল ক্রিকেটাররা করোনা আশঙ্কায় বাংলাদেশ সফর থেকে নাম সরিয়ে নেয়। করোনা শঙ্কায় ব্যক্তিগত ভয়ে বাংলাদেশ সফরে আসতে চাননি জেসন হোল্ডার, কাইরন পোলার্ড, ড্যারেন ব্রাভো, শামার ব্রুকস, রস্টন চেজ, শেলডন কটরেল, এভিন লুইস, শাই হোপ, শিমরন হেটমেয়ার। ব্যক্তিগত কারণে আসতে চাননি নিকোলাস পুরান, ফ্যাবিয়ান অ্যালেন ও শেন ডওরিচ।

তবে তুলনামূলক দুর্বল দল নিয়েও পূর্ণ শক্তির বাংলাদেশের বিপক্ষে বাংলাদেশের মাটীতে চ্যালেঞ্জ নিতে চায় সফরকারীরা। দলটির ওয়ানডে অধিয়ান্যক যোগ করেন, ‘তারা ভালো স্কোয়াড, তারা সাদা বলে খুব ভালো ক্রিকেট খেলে। এ ছাড়া নিজেদের মাটিতে খেলবে। আমরা চ্যালেঞ্জ নিতে সামনের দিকে তাকিয়ে আছি।’

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

বাংলাদেশ দলের ‘টিম স্পন্সর’ হল বেক্সিমকো

Read Next

বোলারদের দিনে সাকিবের দুর্ভাগ্য দেখলেন মাহমুদউল্লাহ

Total
5
Share