বাংলাদেশের বিপক্ষে সিরিজ দিয়ে বিশ্বকাপের প্রস্তুতি শুরু করবে ওয়েস্ট ইন্ডিজ

বাংলাদেশের বিপক্ষে সিরিজ দিয়ে বিশ্বকাপের প্রস্তুতি শুরু করবে ওয়েস্ট ইন্ডিজ

করোনা বাঁধা পাশ কাটিয়ে দেশে দেশে ফিরছে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট। দুঃসময়কে পেছনে ফেলে আগামী বিশ্বকাপ সামনে রেখে পরিকল্পনা সাজাতে শুরু করেছে দলগুলোও। ২০২৩ বিশ্বকাপ মিশন বাংলাদেশের বিপক্ষে সিরিজ দিয়েই শুরু করতে চায় ক্যারিবিয়ানরা। ওয়েস্ট ইন্ডিজের মূল দল না এলেও নতুন যারা এই সফরে এসেছে তাদের জন্য বড় সুযোগ হিসেবেই দেখছেন দলটির কোচ ফিল সিমন্স।

আগামী আইসিসি ওয়ানডে বিশ্বকাপে সরাসরি খেলবে ৮ দল, কোয়ালিফায়ার উতরাতে হবে বাকি দুই দলকে। ফলে বর্তমানে ওয়ানডে র‍্যাংকিংয়ে ৯ নম্বরে থাকা ওয়েস্ট ইন্ডিজকে সরাসরি খেলতে এখন থেকেই ধাপে ধাপে এগোতে হবে। আর সে লক্ষ্যেই বাংলাদেশের বিপক্ষে সিরিজ দিয়ে শুরুটা করতে চায় তারা।

নিয়মিত ক্রিকেটারদের বেশিরভাগই নাম সরিয়ে নিয়েছেন, নেই ওয়ানডে অধিনায়ক কাইরন পোলার্ডও। ফলে এই সিরিজে দলে জায়গা পাওয়া অনভিজ্ঞ ক্রিকেটারদের জন্য দারুণ সুযোগ মনে করেন দলটির কোচ। এ ছাড়া সামনে ঘরের মাঠে ক্যারিবিয়ায়নদের আছে টানা খেলা। তাই বিকল্প ক্রিকেটারের সংখায় বাড়াতেও বাংলাদেশ সফর কাজে দিবে বলে মত তার।

১০ জানুয়ারি বাংলাদেশে পৌঁছে বর্তমানে কোয়ারেন্টাইনে আছে ক্রেইগ ব্র্যাথওয়েট, জেস্ন মোহাম্মদের দল। এক ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে আজ (১২ জানুয়ারি) সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাব দেন কোচ ফিল সিমন্স।

বিশ্বকাপের প্রস্তুতি শুরু এই সফর দিয়ে এমনটা উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘এটাই বিশ্বকাপের প্রস্তুতির শুরু। বিশ্বকাপে কোয়ালিফাই করার শুরুটা এখান থেকেই হচ্ছে। সফরে যারা আছে তারা এখানে অন্যের জায়গা পূরণ করতে আসেনি, এটা তাদের জন্য সুযোগ। দলে জায়গা দখল করার সুযোগ।’

‘সব ক্রিকেটারের প্রতি আমার এই বার্তাটা থাকবে। এখানে যদি তিনটি ওয়ানডে ও দুটি টেস্টে ভালো করেন, তাহলে আপনি নিজেকে এমন জায়গায় নিয়ে গেলেন যেখানে কেউ আপনাকে সরাতে পারবে না। এই সুযোগটা শুধু আপনারই।’

ঘরের মাঠে টানা খেলার কারণে পাইপলাইন শক্ত করতেও এই সিরিজ কাজে আসবে বলে যোগ করেন সিমন্স, ‘আমরা ইংল্যান্ডে ২৫ জন ক্রিকেটার নিয়ে গিয়েছিলাম। আমরা সেখানে কয়েকজন তরুণ ক্রিকেটারকে দেখতে পেয়েছিন যারা নিউজিল্যান্ডে অভিষেক করে। সেই সফরে আমরা কয়েকজনকে দেখেছি যাদের আমরা আগে থেকে জানতাম না।’

‘এটা দুয়ার খুলে দিচ্ছে। আগেই বলেছি, কিছু জায়গা আছে যা দখল করা ক্রিকেটারদের হাতে। এখানে ভালো করলে সামনের সিরিজেও তাদের নিয়ে ভাবা যাবে।’

উল্লেখ্য, কোভিড-১৯ ইস্যুতে ব্যক্তিগত ভয়ে বাংলাদেশ সফরে আসতে চাননি জেসন হোল্ডার, কাইরন পোলার্ড, ড্যারেন ব্রাভো, শামার ব্রুকস, রস্টন চেজ, শেলডন কটরেল, এভিন লুইস, শাই হোপ, শিমরন হেটমেয়ার। ব্যক্তিগত কারণে আসতে চাননি নিকোলাস পুরান, ফ্যাবিয়ান অ্যালেন ও শেন ডওরিচ।

হোল্ডার, পোলার্ড, ব্রাভো, হেটমায়ার, পুরানদের ছাড়া খর্ব শক্তির ওয়েস্ট ইন্ডিজকে ওয়ানডেতে নেতৃত্ব দিবেন জেসন মোহাম্মেদ ও টেস্টে অধিনায়কের ভূমিকায় দেখা যাবে ক্রেইগ ব্র‍্যাথওয়েটকে।

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

হোল্ডার-পোলার্ডদের সিদ্ধান্তে ভুল দেখছেন না ক্যারিবিয়ান কোচ

Read Next

দশের মধ্যে নয়বার যা দেখবেন তা দিয়েই ব্যাটিং অর্ডার সাজাবেন সিমন্স

Total
4
Share