বোলারদের গুলিয়ে দেওয়ার মন্ত্রে বিশ্বাসী ওয়ার্নার

বোলারদের গুলিয়ে দেওয়ার মন্ত্রে বিশ্বাসী ওয়ার্নার
Vinkmag ad

কুঁচকিতে চোট পেয়ে চলমান অস্ট্রেলিয়া-ভারত টেস্ট সিরিজের প্রথম দুই ম্যাচে খেলতে পারেননি অজি ওপেনার ডেভিড ওয়ার্নার। চোটের বর্তমান অবস্থার প্রেক্ষিতে অনিশ্চিত ৭ জানুয়ারি থেকে শুরু হতে যাওয়া তৃতীয় টেস্টেও। তবে ওয়ার্নার নিজে বলছেন নির্বাচকরা চাইলে পুরোপুরি ফিট না হলেও মাঠে নামবেন। এদিকে প্রথম দুই টেস্ট শেষে দুই দলের ব্যাটসম্যানদের মানসিকতা নিয়েও কথা বলেছেন ওয়ার্নার।

ওয়ার্নারের মতে প্রতিপক্ষের ভালো বোলিং আক্রমণকে চাপ তৈরির সুযোগ দেওয়া যাবেনা, কথা বলতে হবে চোখে চোখ রেখে। যা ইতোমধ্যে শেষ হওয়া দুই টেস্টে দেখাতে পারেনি কোন দলের ব্যাটসম্যানরাই।

গণমাধ্যমের সাথে আলাপে বাঁহাতি এই ব্যাটসম্যান বলেন, ‘যদি কোনও একটা ভালো বোলিং আক্রমণকে চাপ তৈরি করতে দেওয়া হয়, তা হলে রান করা কঠিন হয়ে যায়। ভারত, অস্ট্রেলিয়া— দু’দলেরই বোলিং আক্রমণ খুব ভাল। আর দু’দলের ব্যাটসম্যানরাই কোনও চাপ তৈরি করতে পারেনি বিপক্ষ বোলারদের উপরে।’

‘বোলারদের চোখে চোখ রেখে ব্যাটিংটা করতে হয়। রান নেওয়ার সময় উচ্চস্বরে ‘কল’ করতে হয়। ওদের লাইন-লেংথ গুলিয়ে দিতে হয়। আমি আমার অভিজ্ঞতা থেকে এ সব বলছি।’ যোগ করেন ওয়ার্নার।

এদিকে নিজের চোটের বর্তমান অবস্থা সম্পর্কে জানাতে গিয়ে অজি ওপেনার বলেন, ‘আমার কাছে সব চেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ব্যাপার হল, দ্রুত দুই উইকেটের মাঝখানে ছুটতে পারছি কি না। কত রকমের শট খেলতে পারলাম, সেটা নয়। তার চেয়েও বড় হল, বলটাকে ক্রিজে ফেলে রান নেওয়ার জন্য দৌড়তে পারলাম কি না।’

‘নেটে ব্যাট করার সময় আমি বলের জন্য অপেক্ষা করে খেলছিলাম। আমার পছন্দ মতো জায়গায় বল পড়লে তবেই শট মারছিলাম। জানি, ম্যাচে সেটা সম্ভব নয়। খেলার সময় অত কিছু ভেবে খেলা যায় না। এই মুহূর্তে বলতে পারি, সামনের দিকে ঝুঁকে শট খেলছি না।’

৩৪ বছ বয়সী বাঁহাতি এই ব্যাটসম্যান অবশ্য জানিয়েছেন নির্বাচকদের সবুজ সংকেত পেলে সিডনি টেস্টে মাঠে নামতে চান পুরোপুরি ফিট না হলেও। তিনি বলেন, ‘গত দু’দিন আমি ট্রেনিং করিনি। এখন আবার শুরু হবে। সিডনিতে মাঠে নামতে আমি মরিয়া। যদি নির্বাচকরা চান, তা হলে পুরো সুস্থ না হলেও আমি মাঠে নামব।’

৯৭ ডেস্ক

Read Previous

‘এক্সাইটেড’ সাকিবের চাপ নেই, প্রত্যাশা আছে

Read Next

সৌরভ গাঙ্গুলির শারীরিক অবস্থা ক্রমশ উন্নতির দিকে

Total
4
Share