যেকারণে আইসিসির দশকসেরা ‘স্পিরিট অব ক্রিকেট অ্যাওয়ার্ড’ জিতেছেন ধোনি

যেকারণে আইসিসির দশকসেরা 'স্পিরিট অব ক্রিকেট অ্যাওয়ার্ড' জিতেছেন ধোনি
Vinkmag ad

আইসিসি স্পিরিট অব ক্রিকেট অ্যাওয়ার্ড অব দ্য ডিকেড জিতেছেন ভারতের সাবেক অধিনায়ক মাহেন্দ্র সিং ধোনি। ২০১১ সালে নটিংহামে ইংল্যান্ড ও ভারতের মধ্যকার টেস্টে ইয়ান বেল এক বিতর্কিত রান আউট হলে, তাকে মাঠে ফিরিয়ে এনেছিলেন তখনকার ভারতীয় কাপ্তান।

এই ঘটনা ২০১১ সালের আইসিসির বর্ষসেরা স্পিরিট অব ক্রিকেট অ্যাওয়ার্ড জেতে। এবার সেটা জিতল দশকসেরা আইসিসি স্পিরিট অব ক্রিকেট অ্যাওয়ার্ড।

নটিংহাম টেস্টের ৩য় দিনে ১৩৭ রানে অপরাজিত থাকা ইয়ান বেল ভুল বিবেচনার কারণে রান আউট হন। বল বাউন্ডারি রোপ পার করেছে ভেবে সতীর্থ এউইন মরগানের সঙ্গে আলাপ করতে থাকেন বেল। অন্যদিকে অভিনব মুকুন্দ স্টাম্প ভেঙে দেন, ফলে রান আউট হন তিনি।

চা বিরতির সময় মাহেন্দ্র সিং ধোনির নেতৃত্বাধীন দল এই আপিল প্রত্যাহার করার সিদ্ধান্ত নেন।

এই প্রসঙ্গ রাহুল দ্রাবিড় জানান, ‘চা বিরতির সময় ধোনি ও ফ্লেচার একটা সভা ডাকেন যেখানে ধোনি নেতৃত্ব দেন। সবাই সেখানে সর্বসম্মতিক্রমে সিদ্ধান্ত নিই যে বেলকে ফিরিয়ে আনা উচিত যেহেতু স্প্রিট অব দ্য গেম গুরুত্বপূর্ণ। যেভাবে সে আউট হয়েছিল তা স্পিরিট লঙ্ঘন করে।’

পরবর্তীতে আবার ব্যাট করেন বেল, করেন আরো ২২ রান।

খেলা শেষে বেল বলেছিলেন, ‘শেষ মুহূর্ত পর্যন্ত আমি জানতাম না কি হতে চলেছে। তবে যেভাবে এটার মীমাংসা হয় তা দারুণ, এবং স্পিরিট অব ক্রিকেটের সাথে যায়।’

আইসিসি স্পিরিট অব ক্রিকেট অ্যাওয়ার্ড অব দ্য ডিকেডের জন্য মনোনীত হয়েছিলেন যারা-

২০১১ তে বিজয়ী- মাহেন্দ্র সিং ধোনি (ভারত)
২০১২ তে বিজয়ী- ড্যানিয়েল ভেট্টোরি (নিউজিল্যান্ড)
২০১৩ তে বিজয়ী- মাহেলা জয়াবর্ধনে (শ্রীলঙ্কা)
২০১৪ তে বিজয়ী- ক্যাথেরিন ব্রান্ট (ইংল্যান্ড)
২০১৫ তে বিজয়ী- ব্রেন্ডন ম্যাককুলাম (নিউজিল্যান্ড)

২০১৬ তে বিজয়ী-মিসবাহ উল হক (পাকিস্তান)
২০১৭ তে বিজয়ী- আনিয়া শ্রাবসোল (ইংল্যান্ড)
২০১৮ তে জয়ী- কেন উইলিয়ামসন (নিউজিল্যান্ড)
২০১৯ এ জয়ী- ভিরাট কোহলি (ভারত) ।

৯৭ ডেস্ক

Read Previous

পায়ের ভাঙা আঙ্গুল নিয়ে ওয়াগনার বল করলেন ২১ ওভার

Read Next

সিলেটে সালমা-জাহানারাদের মাসব্যাপী ক্যাম্প, ৫ টি ম্যাচ

Total
2
Share