‘রাহানের প্রশংসা করলে লোকে মুম্বাইকার বলবে’

'রাহানের প্রশংসা করলে লোকে মুম্বাইকার বলবে'
Vinkmag ad

ভিরাট কোহলির অনুপস্থিতিতে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে মেলবোর্ন টেস্টে ভারতের দলনায়ক আজিঙ্কা রাহানে। সিরিজের বাকি অংশে তিনিই থাকবেন নেতা হিসাবে। তার অধিনায়কত্বের প্রশংসায় পঞ্চমুখ ভারতের মহারথী ক্রিকেটাররা। প্রশংসার বুলি ফুটেছে কিংবদন্তি ব্যাটসম্যান সুনীল গাভাস্কারের মুখেও।

তবে এখনই রাহানের নেতৃত্বের উপসংহার টেনে দিচ্ছেন না গাভাস্কার।

প্রথম সন্তানের আগমন উপলক্ষে অ্যাডিলেড টেস্ট খেলে দেশে ফিরে যাওয়ায় কোহলির পরিবর্তে রাহানে অধিনায়কত্ব করছেন। মেলবোর্ন টেস্টের প্রথম দিনেই অসাধারণভাবে ফিল্ডিং সাজানো এবং বোলিং পরিবর্তনের চমৎকার কৌশলে অস্ট্রেলিয়া দল মাত্র ১৯৫ রানে অলআউট হয়ে যায়।

জবাবে ভারত ১ম ইনিংসে রাহানের অধিনায়কোচিত ইনিংসের সুবাদে ৫ উইকেটে ২৭৭ রানে করে ২য় দিন শেষ করে। রাহানে ২০০ বলে ১২টি বাউন্ডারিতে ১০৪ রান করে অপরাজিত আছেন।

সনি স্পোর্টসকে কৌতুকবশত গাভাস্কার গতকাল বলেন, ‘কোহলি ও রাহানেকে নিয়ে এখনই উপসংহার টানা উচিত না। আমি যদি বলি রাহানের নেতৃত্ব অসাধারণ, তাহলে অন্যজনকে দোষারোপ করা হবে এবং এসব ঘটতে থাকবে। তাই আমি এত দ্রুত এটা চাই না। রাহানের প্রশংসা করলে লোকে আমাকে মুম্বাইকার বলবে, বলবে মুম্বাইয়ের ছেলে বলে রাহানেকে ভাল বলছি।’

‘শেষ দুই টেস্ট এবং ওয়ানডে ম্যাচগুলোতে রাহানে যেভাবে নেতৃত্ব দিয়েছিল, ফিল্ডারদের কোথায় রাখতে হবে তা নিয়ে রাহানের বেশ ভালো জ্ঞান আছে। বোলারদের ঠিক জায়গায় বল করাটাও গুরুত্বপূর্ণ। যদি তারা করতে পারে, যেভাবে প্রথমদিন করলো, তাহলে অধিনায়কও স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করবে,’ গাভাস্কার বলেন।

মারনাস লাবুশেইন, স্টিভ স্মিথ ও ট্রাভিস হেডের উইকেট নেওয়ার ক্ষেত্রে ফিল্ডিংয়ে ভিন্ন ভিন্ন কৌশল প্রয়োগ করেন রাহানে, যা ক্রিকেট বিশেষজ্ঞদের মুগ্ধ করেছে।

‘শুধু রাহানের অধিনায়কত্ব নিয়ে বললে সে অসাধারণ করেছে প্রথমদিনে। অশ্বিন,বুমরাহ যেভাবে বল করলো, একইসাথে সিরাজেরও অভিষেক হলো। ভেবে দেখুন, সিরাজের মত একজন বোলার, যে ১ম সেশনে একটি বলও করলো না। সে ২য় সেশনে ২৭তম ওভারে এসে ১ম বল করলো এবং দুর্দান্ত ভঙ্গিমায় নিজের জাত প্রদর্শন করে বল করলো,’ গাভাস্কার জানান।

‘এ ব্যাপারগুলো আমরা বেশ উপভোগ করেছি। এটাই বুঝিয়ে দেয় একজন অধিনায়ক কীভাবে ভারত দলকে নেতৃত্ব দিচ্ছে এবং অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে দ্রুত উইকেট এনে দিয়েছে। যদি দ্রুত উইকেট না আসতো, তাহলে অজিরা বিনা উইকেটে ৬০-৭০ রান করে ফেলতো। তারপর তাদের শারীরিক ভাষাও পরিবর্তিত হয়ে যেত,’ গাভাস্কার বলেন।

৯৭ ডেস্ক

Read Previous

আইসিসি নারীদের দশক সেরা ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি দল ঘোষণা

Read Next

নিজের নাম মুছে না ফেললে আইনগত ব্যবস্থা নিবেন বেদি

Total
1
Share