‘আমরা শহিদুলের জন্য খেলেছি’

কোয়ালিফায়ারের মত গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচের আগেরদিন বাবা হারান বঙ্গবন্ধু টি-টোয়েন্টি কাপের চ্যাম্পিয়ন জেমকন খুলনা পেসার শহিদুল ইসলাম। টুর্নামেন্টে ধারাবাহিকভাবে দলে অবদান রাখা এই পেসারকে ছাড়াই অবশ্য ফাইনাল নিশ্চিত করেছিল মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের দল।

তবে বাবার দাফন শেষে দলের সাথে যোগ দিয়ে ফাইনালে শেষ ওভারে বল হাতে নায়ক বনে গেলেন শহিদুলই। ম্যাচ শেষে দলটির অন্যতম সদস্য মাশরাফি জানিয়েছেন শহিদুলের বাবার জন্যই খেলেছিলেন তারা।

১৩ ডিসেম্বর বাবার মৃত্যু সংবাদ শুনেই জৈব সুরক্ষিত বলয় ছেড়ে নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জের বাসায় ফিরে যান শহিদুল। পরদিন বরিশালে গ্রামের বাড়িতে নিয়ে যাওয়া হয় তার বাবা মোহাম্মদ হাবিবুর রহমানের লাশ। দাফনসহ যাবতীয় আনুষ্ঠানিকতা শেষে একদিন পরই দলের সাথে যোগ দেন শহিদুল।

করোনা পরীক্ষায় নেগেটিভ হয়ে, তিনদিনের কোয়ারেন্টাইন শেষে মাঠে নামেন শিরোপা নির্ধারণী ফাইনাল ম্যাচে। গাজী গ্রুপ চট্টগ্রামের বিপক্ষে ৫ রানের জয়ে শিরোপা নিজেদের করে নেওয়াতেও ছিল তার অবদান। ১৫৬ রানের লক্ষ্য তাড়ায় নেমে গাজী গ্রুপ চট্টগ্রামের শেষ ওভারে প্রয়োজন ১৬ রান। ক্রিজে অপরাজিত ফিফটি তুলে নেওয়া সৈকত আলি ও ফিনিশার হিসেবে কার্যকর মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত।

শহিদুল দুজনকেই ফিরিয়েছেন পরপর দুই বলে। শেষ বলে ছক্কা হজম করেও ঐ ওভারে দেননি ১০ রানের বেশি। ৫ রানের জয় পায় জেমকন খুলনা। ৮ ম্যাচে ১৫ উইকেট নিয়ে শহিদুল টুর্নামেন্ট শেষ করলেন পঞ্চম সর্বোচ্চ উইকেট সংগ্রাহক হয়ে।

ম্যাচ শেষে জেমকন খুলনা পেসার মাশরাফি জানিয়েছেন তারা ফাইনালে খেলতেই নেমেছেন শহিদুলের বাবার জন্য। পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে তিনি বলেন, ‘আমাদের অধিনায়ক বলেছে যে আমরা শহিদুলের জন্য খেলব। তারা বাবা মারা যাওয়ার কারণে বাড়িতে ছিল এবং হোটেলে সে গত তিনদিন কোয়ারেন্টাইনে ছিল। সে পরীক্ষায় নেগেটিভ হয় এবং সে খেলেছে। আমরা শুধু তার জন্য খেলেছি। আল্লাহকে ধন্যবাদ যে আমরা তাঁর জন্য জয়ে এনে দিতে পেরেছি।’

এদিকে এই নিয়ে ঘরোয়া টি-টোয়েন্টিতে পঞ্চম শিরোপা জয় মাশরাফি বিন মর্তুজার। আগের চার বার দলকে নেতৃত্ব দিলেও এবার খেলেছেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের অধীনে। তবে সব ছাপিয়ে পাঁচ বার ফাইনাল খেলা মাশরাফি পাঁচ বারই শিরোপা জয়ী দলে ছিলেন।

নিজের ফাইনাল ভাগ্য নিয়ে বলতে গিয়ে যোগ করেন, ‘সবকিছুর জন্য সৃষ্টিকর্তা আল্লাহকে ধন্যবাদ। যখন আমি ঘরোয়া ক্রিকেটে খেলেছি সবসময়ই চ্যাম্পিয়ন। বিশেষ করে যখন আমি ফাইনাল খেলেছি। এটার জন্য আল্লাহকে ধন্যবাদ এবং একটা জিনিস যে আমরা সবাই শহিদুলের বাবার জন্য খেলেছি। সে পাঁচদিন আগে মারা গেছে।’

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

বঙ্গবন্ধু টি-টোয়েন্টি কাপে পুরস্কার জিতলেন যারা

Read Next

মাশরাফিকে মাহমুদউল্লাহর বিশেষ ধন্যবাদ

Total
2
Share