ইনিংস পরাজয় এড়ানোর চেষ্টায় ওয়েস্ট ইন্ডিজ

ইনিংস পরাজয় এড়ানোর চেষ্টায় ওয়েস্ট ইন্ডিজ

১ম টেস্টে ৩য় দিনশেষেও চালকের আসনে স্বাগতিক নিউজিল্যান্ড। প্রথম ইনিংসে তাদের করা ৫১৯ রানের জবাবে স্বাগতিকদের বোলিং তোপে ওয়েস্ট ইন্ডিজ ১ম ইনিংসে ১৩৮ রানে গুটিয়ে যায়। ফলোঅনে পড়ে ২য় ইনিংস ৬ উইকেটে ১৯৬ রান করে ৩য় দিন শেষ করে তারা। ইনিংস পরাজয় এড়াতে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে করতে হবে আরও ১৮৫ রান।

নিউজিল্যান্ড প্রথম ইনিংসে ৭ উইকেটে ৫১৯ রানে ইনিংস ঘোষণার পর ওয়েস্ট ইন্ডিজ ২য় দিনশেষে ১ম ইনিংসে বিনা উইকেটে ৪৯ রান করে।

৩য় দিনের শুরুতেই টিম সাউদি ক্যারিবিয়ান শিবিরে আঘাত হানেন। দলীয় ৫৩ রানের মাথায় ওপেনার জন ক্যাম্পবেলকে আউট করে ধ্বংসযজ্ঞ শুরু করেন। ক্যাম্পবেল করেন ২৬ রান। ২ রান পরে তিনে নামা শামার ব্রুকসকে সাজঘরে পাঠান। পরের ওভারে ট্রেন্ট বোল্টের বলে অপর ওপেনার ক্রেইগ ব্র্যাথওয়েটও বিদায় নিলে মুহূর্তের মধ্যে ৫৫ রানে ৩ উইকেট হারিয়ে বসে ওয়েস্ট ইন্ডিজ।

সেখান থেকে কিছুটা প্রতিরোধ করেন রস্টন চেজ এবং ড্যারেন ব্রাভো। ৭৯ রানের মাথায় পরপর দুই বলে এ দুইজনও ফিরে যান। এরপর অধিনায়ক জেসন হোল্ডার এবং জার্মেইন ব্ল্যাকউড ৬ষ্ঠ উইকেটে ৪০ রানের জুটি গড়ে দলের স্কোর ১০০ পার করান। দলীয় ১১৯ রানের মাথায় সাউদির একই ওভারে ব্ল্যাকউড এবং আলজারি জোসেফ আউট হলে আবারও বিপর্যয়ে পড়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজ।

একপ্রান্তে হোল্ডার ধরে খেললেও অন্যপ্রান্তে টেলএন্ডের ব্যাটসম্যানরা যোগ্য সহায়তা করতে পারেনি। উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান শেন ডাওরিচ ইনজুরির কারণে ব্যাটিং না করায় ১৩৮ রানে ৯ উইকেট পতনে অলআউট হয়ে যায় ওয়েস্ট ইন্ডিজ। হোল্ডার ২৫ রানে অপরাজিত থাকেন।

নিউজিল্যান্ডের পক্ষে সাউদি ৪টি এবং নেইল ওয়াগনার ও কাইল জেমিসন ২টি করে উইকেট নেন।

ফলোঅনে পড়ে ২য় ইনিংসে ব্যাট করতে নেমে শুরুতে কোনঠাসা হয়ে পড়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। ইনিংসের ২য় ওভারে জন ক্যাম্পবেলকে বিদায় করেন বোল্ট। এরপর ব্র্যাথওয়েট ও ব্রাভো ধরে খেলতে চাইলেও বেশিদূর যেতে পারেননি। নিউজিল্যান্ড বোলিংয়ে দ্রুত পরিবর্তন করে সফলতা পায়।

ওয়াগনার তার একই ওভারে ব্রাভো ও ব্রুকসকে সাজঘরের পথ দেখান। পরের ওভারে ব্র্যাথওয়েটও বিদায় নিলে ২৭ রানে ৪ উইকেট হারিয়ে ইনিংস হারের শঙ্কা জাগিয়ে তোলে ক্যারিবিয়ানরা। ৫ম উইকেটে চেজ ও ব্ল্যাকউডের জুটিও বেশিক্ষণ স্থায়ী হয়নি।

ব্ল্যাকক্যাপসরা আবারও বোলিং পরিবর্তন করে সফল হয়। চেজকে লেগ বিফোরের ফাঁদে ফেলেন জেমিসন। আগের ইনিংসে অপরাজিত থাকা হোল্ডার এবার ব্যর্থ হন। মাত্র ৮ রান করে ড্যারিল মিচেলের বলে লেগ বিফোরের ফাঁদে পড়েন।

৮৯ রানে ৬ উইকেট হারানোর ওয়েস্ট ইন্ডিজ তাদের বড় জুটি পেয়ে যায়। ব্ল্যাকউড এবং জোসেফ দুর্দান্ত ব্যাটিং কর‍তে থাকেন। ৭ম উইকেটে এ দুইজন অবিচ্ছিন্ন থেকে ১০৭ রানের জুটি গড়ে। ৩য় দিন শেষে ওয়েস্ট ৬ উইকেটে ১৯৬ রান করে। ব্ল্যাকউড ৮০ এবং জোসেফ ৫৯ রানে অপরাজিত আছেন।

দ্বিতীয় ইনিংসে ব্ল্যাকক্যাপসদের পক্ষে ওয়াগনার ২টি উইকেট নেন।

ইনিংস পরাজয় এড়াতে ওয়েস্ট ইন্ডিজের প্র্যয়োজন আরও ১৮৫ রান, পক্ষান্তরে জয় পেতে নিউজিল্যান্ডের প্রয়োজন আর মাত্র ৪ উইকেট।

সংক্ষিপ্ত স্কোর (৩য় দিন শেষে):

নিউজিল্যান্ড ১ম ইনিংসে ৫১৯/৭ (১৪৫ ওভারে ইনিংস ঘোষণা), ল্যাথাম ৮৬, ইয়াং ৫, উইলিয়ামসন ২৫১, টেইলর ৩৮, নিকোলস ৭, ব্লান্ডেল ১৪, মিচেল ৯, জেমিসন ৫১*, সৌদি ১১*; রোচ ৩০-৭-১১৪-৩, গ্যাব্রিয়েল ২৫-৬-৮৯-৩, জোসেফ ৩১-৮-৯৯-১

ওয়েস্ট ইন্ডিজ ১ম ইনিংসঃ ১৩৮/১০ (৬৪), ক্যাম্পবেল ২৬, হোল্ডার ২৫*, ব্ল্যাকউড ২৩; সাউদি ১৯-৭-৩৫-৪, বোল্ট ১৭-৫-৩০-১, জেমিসন ১৩-৩-২৫-২, ওয়াগনার ১৫-৩-৩৩-২

ফলোঅনে পড়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজ ২য় ইনিংসেঃ ১৯৬/৬ (৪২), ব্ল্যাকউড ৮০*, জোসেফ ৫৯*, ব্রাভো ১২;
সাউদি ৮-১-৪০-১, বোল্ট ১০-১-৪৭-১, ওয়াগনার ১১-০-৬২-২, জেমিসন ১০-২-৩৩-১, মিচেল ৩-০-৭-১

৩য় দিন শেষে ওয়েস্ট ইন্ডিজ ২য় ইনিংসে নিউজিল্যান্ডের ১ম ইনিংসের রানের চেয়ে ১৮৫ রান পিছিয়ে।

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

মুমিনুলের বদলে চট্টগ্রামে রেকর্ড গড়া পেসার রুয়েল

Read Next

মনেপ্রাণে মাশরাফিকে চাচ্ছে মিনিস্টার গ্রুপ রাজশাহীও

Total
1
Share