টেকনিক্যালি ফিট আশরাফুলকে জাতীয় দলে খেলতে যা করতে হবে

টেকনিক্যালি ফিট আশরাফুলকে জাতীয় দলে খেলতে যা করতে হবে

সাম্প্রতিক সময়ে মোহাম্মদ আশরাফুলের ফিটনেস ও স্কিল নিয়ে কাজ করাটা চোখে পড়েছে সবারই। যে কারণে বঙ্গবন্ধু টি-টোয়েন্টি কাপে মিনিস্টার গ্রুপ রাজশাহীতে সুযোগ পাওয়া আশরাফুলের কাছে প্রত্যাশাটাও বেশি ছিল টিম ম্যানেজমেন্ট ও ভক্ত সমর্থকদের। প্রথম তিন ম্যাচে তেমন কিছু দেখাতে না পারা এই ব্যাটসম্যানকে কেন্দ্র করে অবশ্য মিডল অর্ডার সাজাচ্ছেনা রাজশাহী।

প্রথম ম্যাচে ৫ রানের পর দ্বিতীয় ম্যাচে অপরাজিত ২৫ এবং তৃতীয় ম্যাচে রান আউটে কাটা পড়ে ফিরেছেন মাত্র ৬ রানে। বিশেষ করে তার নেওয়া সিদ্ধান্তই ছিল শেষ ম্যাচে রান আউটের পেছনে দায়ী। ওভার থ্রোতে বল ফিল্ডারের হাতে পৌঁছানোর পরও দ্বিতীয় রান নিতে গিয়েই খেসারত দিতে হয়েছে।

সর্বশেষ ম্যাচে তার রান আউটকে দৃষ্টিকটু বলে উল্লেখ করেছেন মিনিস্টার গ্রুপ রাজশাহীর কোচ সারোয়ার ইমরান। গণমাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে আজ (১ ডিসেম্বর) মিরপুরে তিনি বলেন, ‘আশরাফুলের ব্যাডলাক ঠিক বলব না। আশরাফুলের ডিসিশনগুলো, দুইটা রানআউট (মূলত একটি) তিনটা খেলার মধ্যে। এই আউটগুলো একটু দৃষ্টিকটু ছিল।’

‘তারপরেও আমি মনে করি আশরাফুল টেকনিকালি এবং ট্যাকটিকালি আগের অবস্থায় ফিরে আসছে। ওর একটা বড় স্কোরের অপেক্ষায় আছি আমরা।’

এদিকে আশরাফুল জ্বলে উঠতে না পারলেও রাজশাহীর টপ অর্ডার ও মিডল অর্ডারে অধিনায়ক নাজমুল হোসেন শান্ত, আনিসুল ইসলাম ইমন, ফজলে রাব্বি, নুরুল হাসান সোহান, শেখ মেহেদী হাসানরা অবদান রাখছেন প্রতি ম্যাচেই।

এদিকে তাদের সাথে চোট কাটিয়ে ফিরতে যাওয়া মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন দলকে আরও ভারসাম্যপূর্ণ করবে বলে মনে করেন সারোয়ার ইমরান। তিন ম্যাচে দুই জয় পাওয়া রাজশাহীর কোচ যোগ করেন, ‘মিডল অর্ডার আশরাফুল কেন্দ্রিক না, মোটামুটি টি-টোয়েন্টিতে আমাদের যে বাঁহাতি আছে ফজলে রাব্বি সহ সবাই ভালো খেলছে। তারপরেও সাইফউদ্দিন কামব্যাক করলে আমাদের দলটা পুরোপুরি স্বয়ংসম্পূর্ণ হয়ে যাবে।’

বয়স ৩৬ পেরিয়েছে, আশরাফুল সর্বশেষ জাতীয় দলে খেলেছেন ২০১৩ সালে। তবে এখনো জাতীয় দলে ফিরতে মরিয়া ফিক্সিং কান্ডে জড়িয়ে পাঁচ বছরের নিষেধাজ্ঞা শেষে মাঠে ফেরা আশরাফুল। কিন্তু বাস্তবতা আর তার বর্তমান সামর্থ্য কতটা যথেষ্ট আবারও টাইগারদের জার্সি গায়ে চাপাতে? কোচ সারোয়ার ইমরান মনে করেন টেকনিক্যালি আশরাফুল ফিট। তবে টেকটিক্যালি ও মানসিকভাবে এগোতে পারলেই জাতীয় দলে খেলার সুযগ আসতে পারে।

তিনি বলেন, ‘আমি আশাবাদী গত আড়াই মাস আমরা এক সাথে কাজ করছি, ম্যাচ খেলছি সেই হিসেবে আশরাফুল তো টেকনিক্যালি আগের জায়গায় ফেরত আসছে এবং ট্যাকটিকালি ও মেন্টালি কতদূর আগাইতে পারবে এটার উপরই নির্ভর করবে ও আন্তর্জাতিক খেলতে পারবে কিনা। মানসিকভাবে শক্ত হতে হবে আরো আর ফিজিক্যাল এবং টেকটিক্যাল অংশটাতে যদি সে আরো শক্ত হতে পারে তাহলে সে আন্তর্জাতিক খেলতে পারবে।’

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

অস্ট্রেলিয়ার সমর্থনে ক্রিকেট সূচি ভারতের পক্ষে

Read Next

আমেরিকার ‘মেজর ক্রিকেট লিগে’ নাইট রাইডার্সের বিনিয়োগ

Total
4
Share