অস্ট্রেলিয়ার সমর্থনে ক্রিকেট সূচি ভারতের পক্ষে

ম্যাচ হেরে জরিমানাও গুনতে হল কোহলিদের

ভারতের নিয়ন্ত্রণে ক্রিকেট ফিক্সচার পরিবর্তিত হতে পারে বলে আভাস পাওয়া গেছে। সিডনি মর্নিং হেরাল্ড কর্তৃক আজ এমন তথ্য এসেছে। ভারতের কর্তৃত্বের কারণে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া তাদের গ্রীষ্মের কর্মসূচিতে আমূল পরিবর্তন আনতে পারে। এ বিষয়ে অভিযোগ করে ফেডারেল কোর্টে একটি ডকুমেন্ট সত্যায়ন করে মেইল করেছে সেভেন ওয়েস্ট মিডিয়ার স্পোর্টস নিয়ন্ত্রক।

২৫ পৃষ্ঠার এই ডকুমেন্টের মাধ্যমে সেভেন’স মেলবোর্নের ব্যবস্থাপনা পরিচালক এবং হেড অফ স্পোর্টস লুইস মার্টিন বলেন ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া একটি বানিজ্যিক চুক্তির মধ্য দিয়ে নিয়ন্ত্রিত হচ্ছে। এক্ষেত্রে একটি মিডিয়া কোম্পানির অধীনে তাসমানিয়ান সরকার গ্রীষ্মকালীন বিগ ব্যাশের প্রথম ১২ ম্যাচের মধ্যে ৮টি ম্যাচের সিদ্ধান্ত নিবে।

‘বিসিসিআইয়ের সাথে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার সম্পর্ক ভালো থাকায় নির্ধারিত ক্রিকেট সূচির পরিবর্তন আসতে পারে।এক্ষেত্রে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়াকে নিয়ন্ত্রণাধীন তাসমানিয়া রাজ্যের সাথে বিসিসিআই এবং ফক্সটেলের মধ্যে একটি ইতিবাচক ভূমিকা কাজ করতে পারে বলে এমন কাজ করা হচ্ছে।’

মার্টিন ডকুমেন্টে লিখেন,

‘যদি আমার বিশ্বাস সত্যি হয়, তাহলে এমন সূচির পরিবর্তনে কোটি কোটি ডলার ক্ষতির সম্মুখীনে পড়তে পারে সেভেন কোম্পানি।’

এ ধরণের গোপনীয় ডকুমেন্ট প্রকাশের মাধ্যমে ভারতের ক্রিকেটের সাথে সম্পর্ক খারাপ হতে পারে বলে আশংকা করছে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া।

টেস্ট সিরিজের আগে ভারত-অস্ট্রেলিয়ার মধ্যকার সীমিত ওভারের ছয়টি ম্যাচে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার আচরণে বেশ মর্মাহত সেভেন। নতুন সূচি অনুযায়ী ভারত-অস্ট্রেলিয়ার টেস্ট শুরুর ৭ দিন আগে দ্রুত সময়ে বিগ ব্যাশ শুরুর পরিকল্পনা করেছে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া। ভারত-অস্ট্রেলিয়া টেস্ট সিরিজে ফক্সটেল দায়িত্ব নিবে।

নতুন সূচি অনুযায়ী সেভেন কোম্পানি আর্থিকভাবে চরম ক্ষতির সম্মুখীন হতে পারে। এক্ষেত্রে বিবিএলেও নেতিবাচক প্রভাব পড়তে পারে। যদিও ভারতীয় বোর্ডের চাহিদা অনুযায়ী ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া এমনটা করছে বলে মার্টিন দাবি করেন।

‘ভারতের খেলোয়াড়রা দুইবার কোয়ারেন্টাইনে যাচ্ছে না। তারা তাদের টেস্ট এবং সাদা বলের খেলোয়াড়দের একসাথে কোয়ারেন্টাইনে চায় এবং সাদা বলের সিরিজের পর সাদা বলের খেলোয়াড়রা বাড়ি চলে যেতে পারবে এবং টেস্ট খেলোয়াড়রা অস্ট্রেলিয়ায় থেকে যাবে।’

সত্যায়িত ডকুমেন্টে মার্টিন বলে,

‘এটা খুবই হাস্যকর। এভাবে আমরা আমাদের ক্রিকেটীয় মৌসুমের পরিকল্পনা করিনি। আমার মাথায় আসে না কেন ভারতের সব খেলোয়াড়রা একসাথে থাকবে এবং আমি বুঝতে পারছি না কেন ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া এ ব্যাপারটাকে সমর্থন দিচ্ছে।’

ভারতীয় ক্রিকেট দলকে এমন সুবিধা দেওয়ায় ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার কার্যক্রমে চরম হতাশা প্রকাশ করেন লুইস মার্টিন।

৯৭ ডেস্ক

Read Previous

‘এটা মাশরাফির সিদ্ধান্ত, ও খেলতে চাইলে খেলবে’

Read Next

টেকনিক্যালি ফিট আশরাফুলকে জাতীয় দলে খেলতে যা করতে হবে

Total
4
Share