টানা দুই জয়ে সিরিজ অস্ট্রেলিয়ার

টানা দুই জয়ে সিরিজ অস্ট্রেলিয়ার

প্রথম ম্যাচের মত আধিপত্য বিস্তার করে ২য় ওয়ানডেতেও জয়লাভ করলো অস্ট্রেলিয়া। স্টিভ স্মিথের ব্যাক টু ব্যাক দ্রুতগতির সেঞ্চুরির পাশাপাশি উপরের সারির ৪ জন ব্যাটসম্যানের হাফ সেঞ্চুরির কল্যাণে ভারতকে তারা হারায় ৫১ রানে।

সিডনি ক্রিকেট গ্রাউন্ডে আজও টসে জিতে আগে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নেন অজি দলপতি অ্যারন ফিঞ্চ। ডেভিড ওয়ার্নার ও অ্যারন ফিঞ্চের উদ্বোধনী জুটি থেকে আসে ১৪২ রান। ৬৯ বলে ৬ চার ও ১ ছয়ে ৬০ রান করে আউট হন ফিঞ্চ, তাকে ফেরান মোহাম্মদ শামি। তিনে নামা স্টিভ স্মিথের সঙ্গে ওয়ার্নারের জুটিটা অবশ্য লম্বা হয়নি। আক্রমণাত্মক মেজাজে খেলতে থাকা ওয়ার্নার রানআউট হয়ে সাজঘরে ফেরেন। শ্রেয়াস আইয়ারের ডিরেক্ট থ্রোতে রান আউট হওয়া ওয়ার্নার করেন ৭৭ বলে ৮৩ রান (৭ চার ও ৩ ছয়ে)।

তৃতীয় উইকেট জুটিতে ১৩৬ রানের জুটি গড়েন স্টিভ স্মিথ। আগের দিনের ন্যায় এদিনও ৬২ বলে তুলে নেন সেঞ্চুরি। ভারতের বিপক্ষে সেঞ্চুরির হ্যাটট্রিক করা স্মিথের এটি ১১ তম ওয়ানডে শতক। ৬৪ বলে ১৪ চার ও ২ ছক্কায় ১০৪ রান করে হার্দিক পান্ডিয়ার বলে মোহাম্মদ শামিকে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন তিনি।

এরপর লাবুশেইনের ৬১ বলে ৭০ ও গ্লেন ম্যাক্সওয়েলের ৬৩* (২৯ বলে ৪ টি করে চার ও ছক্কায়) রানে ভর করে ৩৮৯ রান স্কোরবোর্ডে জমা করে অজিরা। ১ বলে ২ রান করে অপরাজিত থাকেন স্টয়নিসের বদলে একাদশে সুযোগ পাওয়া ময়েসেস হেনরিকস।

ভারতের হয়ে ১ টি করে উইকেট নেন মোহাম্মদ শামি, জাসপ্রীত বুমরাহ ও হার্দিক পান্ডিয়া।

৩৯০ রানের বিশাল সংগ্রহ তাড়া করতে নেমে এদিনও শুরুটা দারুণ করেন মায়াঙ্ক আগারওয়াল এবং শিখর ধাওয়ান। উদ্বোধনী জুটিতে এ দুইজন ৫৮ রান তোলেন। ব্যক্তিগত ৩০ রানে অজি পেস বোলার জশ হ্যাজেলউডকে মারতে গিয়ে মিড অনে মিচের স্টার্ককে ক্যাচ দিয়ে বিদায় নেন ধাওয়ান। পরের ওভারে প্যাট কামিন্সের অফ কাটারে পরাভূত হন অপর ওপেনার আগারওয়াল। আউট হওয়ার আগে ২৮ রান করেন তিনি।

৬০ রানে দ্রুত দুই ওপেনারকে হারানোর পর দলের হাল ধরেন অধিনায়ক ভিরাট কোহলি এবং শ্রেয়াস আইয়ার। ৩য় উইকেটে তারা ৯৩ রানের জুটি গড়ে দলের ভিত্তি মজবুত করেন। ৩৬ বলে ৩৮ রান করে ময়েসেস হেনরিকসের বলে স্মিথের দুর্দান্ত ক্যাচে বিদায় নেন শ্রেয়াস।

এরপর ৪র্থ উইকেটে লোকেশ রাহুলের সাথে ৭২ রানের জুটি গড়েন কোহলি। সেঞ্চুরি থেকে ১১ রান দূরে থাকতে হ্যাজেলউডের বলে হেনরিকসের অসাধারণ এক ক্যাচে সাজঘরে ফেরেন কোহলি। ৮৭ বলের ইনিংসে ৭ চার ও ২ ছক্কা হাঁকান কোহলি।

হার্দিক পান্ডিয়াকে সাথে নিয়ে ৬৩ রানের জুটি গড়েন রাহুল। ৪ চার ও ৫ ছক্কার সাহায্যে ৬৬ বলে ৭৬ রান করে অ্যাডাম জ্যাম্পার বলে আউট হন রাহুল। দলীয় ২৮৮ রানে রাহুলের বিদায়ের পর পান্ডিয়া এবং রবীন্দ্র জাদেজা শেষ চেষ্টা করতে থাকেন।

৪৭ তম ওভারে প্যাট কামিন্সের পরপর দুই বলে জাদেজা এবং পান্ডিয়া বিদায় নিলে ভারতের জয়ের আশা শেষ হয়ে যায়। বাকি সময়ে আর কোন ব্যাটসম্যান দাঁড়াতে পারেনি। ভারতের ইনিংস শেষ পর্যন্ত ৯ উইকেটে ৩৩৮ রানে গিয়ে থামে।

অজিদের পক্ষে কামিন্স ৩টি এবং হ্যাজেলউড ও জ্যাম্পা ২টি করে উইকেট পান।

অসাধারণ সেঞ্চুরির জন্য ম্যাচ সেরা হন অস্ট্রেলিয়ার ব্যাটিং জিনিয়াস স্টিভ স্মিথ।

৩ ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজে ২-০ তে এগিয়ে থাকা অস্ট্রেলিয়া সিরিজ জয় নিশ্চিত করেছে। ২ ডিসেম্বর সিরিজের শেষ ম্যাচ ক্যানবেরাতে অনুষ্ঠিত হবে।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

অস্ট্রেলিয়া ৩৮৯/৪ (৫০), ওয়ার্নার ৮৩, ফিঞ্চ ৬০, স্মিথ ১০৪, লাবুশেইন ৭০, ম্যাক্সওয়েল ৬৩*, হেনরিকস ২*; শামি ৯-০-৭৩-১, বুমরাহ ১০-১৭৯-১, পান্ডিয়া ৪-০-২৪-১।

ভারত ৩৩৮/৯ (৫০), আগারওয়াল ২৮, ধাওয়ান ৩০, কোহলি ৮৯, শ্রেয়াস ৩৮, রাহুল ৭৬, পান্ডিয়া ২৮, জাদেজা ২৪, সাইনি ১০* , শামি ১, বুমরাহ ০, চাহাল ৪* ; হ্যাজেলউড ৯-০-৫৯-২, কামিন্স ১০-০-৬৭-৩, জ্যাম্পা ১০-০-৬২-২, হেনরিকস ৭-০-৩৪-১, ম্যাক্সওয়েল ৫-০-৩৪-১

ফলাফলঃ অস্ট্রেলিয়া ৫১ রানে জয়ী

ম্যাচ সেরাঃ স্টিভ স্মিথ (অস্ট্রেলিয়া)।

৯৭ ডেস্ক

Read Previous

টুর্নামেন্টের মাঝপথে ফিরবেন সাইফউদ্দিন, যদি…

Read Next

যে কারণে পেসারদের প্রতি সম্মান বেড়ে গেল মিরাজের

Total
6
Share