সৌম্যের সাথে রসায়ন জমে যাওয়ার কারণ জানালেন লিটন

সৌম্যের সাথে রসায়ন জমে যাওয়ার কারণ জানালেন লিটন

প্রতিপক্ষকে উড়িয়ে দিয়ে বঙ্গবন্ধু টি-টোয়েন্টি কাপে টানা দুই ম্যাচে দুই জয় গাজী গ্রুপ চট্টগ্রামের। বোলারদের তৈরি করে দেওয়া মঞ্চে তুলির শেষ আঁচড়ে দলের জয়ের কাজটা মসৃণ করেছে দুই ওপেনার লিটন দাস ও সৌম্য সরকার। বোলারদের কল্যাণে দুই ম্যাচেই লক্ষ্যটা ছিল ১০০ এর নিচে। যা তাড়া করতে নেমে লিটন-সৌম্য গড়েছেন যথাক্রমে ৭৯ ও ৭৩ রানের জুটি। এখনো পর্যন্ত অন্যান্য দলের ওপেনিং জুটি না জমলেও গাজী গ্রুপ চট্টগ্রামের জুটি জমার কারণ জানালেন লিটন দাস।

আজ (২৮ নভেম্বর) দিনের প্রথম খেলায় জেমকন খুলনাকে আগে ব্যাটিংয়ে পাঠিয়ে মাত্র ৮৬ রানেই অলআউট করে দেয় গাজী গ্রুপ চট্টগ্রাম। লিটন দাসের অপরাজিত ৫৩ রানের ইনিংসের সাথে সৌম্য সরকারের ২৬ রানে ৩৮ বল ও ৯ উইকেট হাতে রেখেই জয় পায় মোহাম্মদ মিঠুনের নেতৃত্বাধীন দলটি।

 

View this post on Instagram

 

A post shared by cricket97 (@cricket97bd)

আগের ম্যাচেও বেক্সিমকো ঢাকার বিপক্ষে ৮৯ রানের লক্ষ্য তাড়ায় সৌম্য সরকারের অপরাজিত ৪৪ রানের সাথে ৩৪ রান আসে লিটন দাসের ব্যাট থেকে। বোলারদের কৃতিত্বে ছোট লক্ষ্য হওয়া এবং জাতীয় দল সহ বিভিন্ন পর্যায়ে দীর্ঘদিন ধরে জুটি বেধে ব্যাট করার অভিজ্ঞতাই দুজনের রসায়নের মূল কারণ হিসেবে তুলে ধরেছেন লিটন।

ম্যাচ শেষে তিনি বলেন, ‘রসায়ন (লিটন-সৌম্যের ওপেনিং) আমার কাছে মনে হয়, আমরা দুজনেই অনেকদিন ধরে খেলছি। দৃশ্যটা আমরা কিছুটা বুঝি, লো স্কোরিং ম্যাচে কি আসতে পারে। সুবিধাও ছিল হয়তবা আমাদের দিকে। কারণ, টি-টোয়েন্টি গেমে রানের চাপটা না থাকলে ঠাণ্ডা মাথায় ব্যাটিংটা করা যায়। তো আমার মনে হয় দুইটা গেমেই এই জিনিসটা আমরা খুব ভালোভাবে প্রয়োগ করেছি। বোলারদের ধন্যবাদ তারা আমাদেরদকে সুযোগ দিয়েছে ব্যাটিং করার জন্য।’

টানা দুই জয়ে পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে গাজী গ্রুপ চট্টগ্রাম। লিটন জানালেন এমন পারফরম্যান্সে দলের ক্রিকেটার থেকে শুরু করে টিম ম্যানেজমেন্ট, সাপোর্ট স্টাফরা বেশ আশাবাদী টুর্নামেন্টে ভালো কিছুর ব্যাপারে।

লিটন বলেন, ‘এটাতো অনেক ভালো দিক যে আমরা দুইটা ম্যাচ জিতেছি পরপর। টি-টোয়েন্টি আসলেই এমন যে উইনিং মুডে থাকলেই খেলার ধরণটা অন্যরকম থাকে। আমরা যদি দুইটা পর পর হেরে যেতাম তো আমার মাইন্ড সেটআপ হয়তো একটু ব্যাকফুটে থাকতো। আমার মনে হয় আমি থেকে শুরু করে আমাদের যে টিম বয় আছে, প্লেয়ার আছে, কোচিং স্টাফ আছে তারা সবাই হ্যাপি এবং তারা অনেক আশাবাদী ভালো কিছু করার জন্য।’

এদিকে দুই ম্যাচেই বোলারদের দারুণ পারফরম্যান্সকে কৃতিত্ব দিলেন উইকেটরক্ষক এই ব্যাটসম্যান, ‘আমার কাছে খুবই ভালো লেগেছে এই জিনিসটা যে, যে যখন বল করছে খুবই দায়িত্ব নিয়ে বল করছে। আর মুভমেন্টগুলো খুবই ভালো ছিল। কে, কখন, কোথায় বল করবে। ওভারঅল টিম ওয়ার্ক ভালো ছিল। খুবই ভালো ফিল্ডিং। অল ওভার টিম গেম।’

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

ভালো লাগছে মুস্তাফিজের, কৃতিত্ব দিলেন সতীর্থদের

Read Next

উড়তে থাকা রাজশাহীকে মাটিতে নামাল বরিশাল

Total
12
Share