নতুন শুরুর লক্ষ্যেই মাঠে নেমেছিলেন সৌম্য সরকার

নতুন শুরুর লক্ষ্যেই মাঠে নেমেছিলেন সৌম্য সরকার

বেক্সিমকো ঢাকার বিপক্ষে ৯ উইকেটের জয় দিয়ে টুর্নামেন্ট শুরু করেছে গাজী গ্রুপ চট্টগ্রাম। বোলারদের তৈরি করে দেওয়া মঞ্চে বেশ সহজেই জয়ের পথটা সুগম করেন ওপেনার সৌম্য সরকার। লিটন দাসের সাথে ওপেনিং জুটিতেই প্রায় জয় নিশ্চিত করে ফেলেন। ম্যাচ শেষে বাঁহাতি এই ব্যাটসম্যান জানিয়েছেন নতুন শুরুর লক্ষ্যেই মাঠে নেমেছিলেন।

বেক্সিমকো ঢাকার দেওয়া ৮৯ রানের সহজ লক্ষ্য তাড়ায় গাজী গ্রুপ চট্টগ্রামের দুই ওপেনার লিটন দাস ও সৌম্য সরকার উদ্বোধনী জুটিতেই তুলে ফেলেন ৭৯ রান। লিটন ৩৪ রান করে ফিরে গেলেও মুমিনুল হককে (৮) নিয়ে ম্যাচ শেষ করে আসেন সৌম্য সরকার। ২৯ বলে ৪ চার ২ ছক্কায় ৪৪ রানের ইনিংসটি সাজিয়েছেন সৌম্য সরকার।

মূলত অনুশীলনে যা চেষ্টা করেছিলেন সেটিই বঙ্গবন্ধু টি-টোয়েন্টি কাপের প্রথম ম্যাচ থেকে প্রয়োগ করতে চেয়েছিলেন। ম্যাচ শেষে বাঁহাতি এই ব্যাটসম্যান বলেন, ‘আজকে (২৬ নভেম্বর) প্রথম ম্যাচ ছিল। চিন্তা ছিল যে যেভাবে অনুশীলন করেছি ওখান থেকে নতুন করে শুরু করার। এবং নিজের মতো খেলা।’

ছোট লক্ষ্য হলেও খুব একটা তাড়াহুড়ো ছিলনা সৌম্য-লিটনদের। এ প্রসঙ্গে দলের সর্বোচ্চ স্কোরার সৌম্য বলেন, ‘সময় নিচ্ছিলাম তার কারণ রান কম ছিল। একটু সময় আমাদের হাতে ছিল। ওটাই আসল কারণ ছিল। ওরকম আলাদা বিষয় ছিল না। আর বোলাররা তো ভালো করছিল একটা লেন্থে। তারপরও আমি-লিটন দুজন মিলে ভালো একটা লাইনে খেলছি। এটা ভালো জিনিস যে দিনশেষে খেলাটা শেষ করে আসতে পারছি।’

বোলারদের দারুণ পারফরম্যান্সেই মুশফিকুর রহিমের বেক্সিমকো ঢাকাকে ৮৮ রানেই গুটিয়ে দেওয়া সম্ভব হয়েছে। গাজী গ্রুপ চট্টগ্রামের হয়ে বল হাতে নেওয়া ৬ বোলারই পেয়েছেন উইকেটের দেখা।

বোলারদের কৃতিত্ব দিয়ে সৌম্য যোগ করেন, ‘বোলাররা অবশ্যই অনেক ভালো করছে এই উইকেটে। পাওয়ার প্লেতে বিশেষত নাহিদ ভাই অনেক ভালো করছে। তাছাড়াও সব বোলাররাই একটা দল হিসেবে বল করেছে। যে যেভাবে বল করতে চেয়েছে আমার মনে হয় নিজের মতো বল করতে পারছে। তারাই সফল হয়েছে।’

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

জোড়া সেঞ্চুরিতে অস্ট্রেলিয়ার রানের পাহাড়

Read Next

‘পরের ম্যাচ থেকেই সাকিবের রূপ দেখতে পারবো’

Total
2
Share