ঢাকাকে উড়িয়ে দিয়ে টুর্নামেন্ট শুরু করল চট্টগ্রাম

ঢাকাকে উড়িয়ে দিয়ে টুর্নামেন্ট শুরু করল চট্টগ্রাম

নিজেদের প্রথম ম্যাচের আগের দিন গতকাল (২৫ নভেম্বর) গাজী গ্রুপ চট্টগ্রাম অধিনায়ক মোহাম্মদ মিঠুন জানিয়েছিলেন কাগজে-কলমের হিসাব নয়, নিজেদের সামর্থ্যের প্রমাণ দিতে চান মাঠে। বেক্সিমকো ঢাকার বিপক্ষে আজ (২৬ নভেম্বর) অন্তত সেটি ভালোভাবেই করতে পেরেছে তারা। বেক্সিমকো ঢাকাকে ৮৮ রানে গুটিয়ে দিয়ে তুলে নিয়েছে ৯ উইকেটের বড় জয়।

৮৯ রানের ছোট লক্ষ্য তাড়ায় নেমে গাজী গ্রুপ চট্টগ্রামের দুই ওপেনার লিটন দাস ও সৌম্য সরকার জয় নিয়েই মাঠ ছাড়ার পথে ছিলেন। নিজেদের টুর্নামেন্ট শুরুর আগেই অধিনায়ক মোহাম্মদ মিঠুন জানিয়েছিলেন সৌম্য-লিটনরা একাই ম্যাচ জেতানোর সামর্থ্য রাখে। প্রথম ম্যাচেই অধিনায়কের আস্থার প্রতিদান দিলেন এই দুই ওপেনার।

শুরু থেকেই উইকেটের চারপাশে শট খেলে রানের গতি বাড়াতে থাকেন দুজনে। পাওয়ার প্লের ৬ ওভারেই তুলে ফেলেন ৫১ রান। প্রথমদিকে লিটন কিছুটা খোলস বন্দী থাকলেও সৌম্য ছিলেন আক্রমণাত্মক। পরে সৌম্যের সাথে স্ট্রোকের ফুলঝুরিতে যোগ দেন লিটনও।

দুজনের ৭৮ রানের জুটিতে মাত্র ১০.৫ ওভারেই লক্ষ্য টপকে যায় গাজী গ্রুপ চট্টগ্রাম। দলকে জয় থেকে ১১ রান দূরে রেখে লিটন ফিরে গেলেও মুমিনুল হককে নিয়ে আর কোন উইকেট না হারিয়ে ম্যাচ শেষ করে আসেন সৌম্য সরকার।

৩৩ বলে ৩ চার ১ ছক্কায় লিটন খেলেছেন ৩৪ রানের ইনিংস। সৌম্য অপরাজিত ছিলেন ২৯ বলে ৪ চার ২ ছক্কায় ৪৪ রানে। দলের জয়সূচক বাউন্ডারি হাঁকানো মুমিনুল হক অপরাজিত ছিলেন ৮ রানে। বেক্সিমকো ঢাকার হয়ে একমাত্র উইকেটটি শিকার করেন নাসুম আহমেদ। টানা দুই হারে ব্যাকফুটে চলে গেল বেক্সিমকো ঢাকা।

এর আগে টস হেরে ব্যাট করতে নেমে শুরু থেকেই ছন্নছাড়া বেক্সিমকো ঢাকা। দলীয় ৭ রানেই ওপেনার তানজিদ হাসান তামিমকে (২) ফেরান পেসার শরিফুল ইসলাম। ২ ওভারের প্রথম স্পেলে বাঁহাতি এই পেসার ফিরিয়েছেন ১০ বল খেলে কোন রান করতে না পারা সাব্বির রহমানকেও।

নিজের খেলা প্রথম বলেই নতুন ব্যাটসম্যান মুশফিকুর রহিম ফিরেছেন নাহিদুল ইসলামকে রিভার্স সুইপ খেলতে গিয়ে স্লিপে সৌম্য সরকারকে ক্যাচ দিয়ে। ২১ রানে তিন উইকেট হারানো বেক্সিমকো ঢাকাকে কিছুটা আশার আলো দেখায় ওপেনার নাইম শেখ ও আকবর আলির ৪৪ রানের জুটি। কিন্তু ১৫ রান করে আকবর আলি ফিরে যান মোসাদ্দেক হোসেন সৈকতের বলে বোল্ড হয়ে।

এরপর বেশিক্ষণ স্থায়ী হয়নি বেক্সিমকো ঢাকার ইনিংস। স্রোতের বিপরীতে নাইম শেখের ২৩ বলে সমান তিনটি করে চার ছক্কায় সাজানো ৪০ রানের ইনিংসের পরও ৮৮ রানেই গুটিয়ে যায় মুশফিকুর রহিমের দল। যা চলতি টুর্নামেন্টের এখনো পর্যন্ত সর্বনিম্ন দলীয় সংগ্রহ। নাইম শেখ, আকবর আলি ছাড়া দুই অঙ্ক ছুঁতে পেরেছেন কেবল মুক্তার আলি (১২)।

১৬.২ ওভার স্থায়ী ইনিংসে বেক্সিমকো ঢাকা ২৪ রানের ব্যবধানে হারায় শেষ ৭ উইকেট। গাজী গ্রুপ চট্টগ্রামের হয়ে সর্বোচ্চ দুইটি করে উইকেট নেন শরিফুল ইসলাম, মুস্তাফিজুর রহমান, মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত ও তাইজুল ইসলাম। একটি করে ভাগাভাগি করেন নাহিদুল ইসলাম ও সৌম্য সরকার।

সংক্ষিপ্ত স্কোরঃ

বেক্সিমকো ঢাকাঃ ৮৮/১০ (১৬.২ ওভার), তানজিদ ২, নাইম শেখ ৪০, সাব্বির, ০, মুশফিক ০, আকবর ১৫, শাহাদাত ২, রনি ০, মুক্তার ১২ , নাসুম ৮, রুবেল ০, রানা ০* ; নাহিদুল ৩-০-১৩-১, শরিফুল ৩-১-১০-২, মুস্তাফিজ ৩.২-১-১৩-২, মোসাদ্দেক ২-০-৯-২, তাইজুল ৪-০-৩২-২, সৌম্য ১-০-২-১

গাজী গ্রুপ চট্টগ্রামঃ ৯০/১ (১০.৪ ওভার), লিটন ৩৪, সৌম্য ৪৪*, মমিনুল ৮*; নাসুম ১-০-৫-১

ফলাফলঃ গাজী গ্রুপ চট্টগ্রাম ৯ উইকেটে জয়ী

ম্যাচসেরাঃ মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত।

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

ঢাকাকে ৮৮ তেই আঁটকে দিল চট্টগ্রাম

Read Next

কোন পরিস্থিতিতেই ম্যাচ না ছাড়ার শিক্ষা পেয়েছেন ইমন

Total
11
Share