কপিল দেবের সাফ কথা- ‘এক কোম্পানিতে দুই সিইও থাকতে পারে না’

কপিল দেবের সুস্থতা কামনায় ক্রিকেট সম্প্রদায়

‘একটি মাল্টিন্যাশনাল কোম্পানির দুইজন চিফ এক্সিকিউটিভ অফিসার (সিইও) থাকতে পারে না-‘ ভারতীয় ক্রিকেট দলের অধিনায়কত্বের দ্বিবিভাজন পদ্ধতির ব্যাপারে আপত্তি জানাতে এভাবেই মন্তব্য করেছেন ভারতের বিশ্বকাপজয়ী (১৯৮৩) অধিনায়ক কপিল দেব।

রোহিত শর্মার অধিনায়কত্বে মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স ৫টি আইপিএল শিরোপা অর্জনের পর কয়েকজন প্রথিতযশা সাবেক ক্রিকেটাররা ভারতের টি-টোয়েন্টি দলের অধিনায়ক হিসেবে রোহিতকে দেখতে চেয়েছেন। বর্তমানে ভিরাট কোহলি তিন ফরম্যাটেরই অধিনায়ক।

‘আমাদের ক্রিকেটীয় সংস্কৃতিতে এমন ঘটনার নজির নেই। একটা কোম্পানিতে কি দুইজন সিইও থাকতে পারে? না,পারে না। কোহলি টি-টোয়েন্টি খেলছে এবং অধিনায়ক হিসেবে সে যথেষ্ট ভালো। তাকে থাকতে দিন। আমিও চাই অন্য খেলোয়াড়রা এগিয়ে আসুক। কিন্তু এখন বেশ কঠিন ব্যাপার,’ এইচটি লিডারশিপ সম্মেলনে অনলাইনে এ কথাগুলো বলেন কপিল।

‘৭০ শতাংশ কিংবা ৮০ শতাংশ হোক, আমাদের একই ফরম্যাটের দল থাকবে। তারা ভিন্ন মতাদর্শের অধিনায়ক পছন্দ করে না। সাধারণ খেলোয়াড় এবং অধিনায়কের মধ্য কিছুটা ভিন্নতা থাকে।’

‘যদি আপনার দুইজন অধিনায়ক থাকে, তাহলে খেলোয়াড়রা ভাববে সে তো আমার টেস্ট অধিনায়ক। আমি তাকে বিরক্ত করবো না।’

৬১ বছর বয়স্ক এ সাবেক অলরাউন্ডারের হার্ট অ্যাটাক হওয়ার পর সম্প্রতি এনজিওপ্লাস্টি করিয়েছেন।

টেস্ট ক্রিকেট রক্ষার ক্ষেত্রে আইসিসিকে সতর্ক করেছেন কপিল।

‘যদি টেস্ট ক্রিকেট আর না হয়, তাহলে বলবো এটা সম্পূর্ণ আইসিসির দোষ। হয়তোবা এখন আইপিএল, বিবিএল কিংবা বিভিন্ন প্রতিযোগিতামূলক টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটের যুগ, তবুও টেস্ট ক্রিকেট সবসময় বিশেষ হয়ে থাকে। ইংল্যান্ডের কাউন্টি ক্রিকেটে অনেকের টেস্ট খেলার স্বপ্ন থাকে। প্রথম শ্রেণির ক্রিকেট, টেস্ট এবং ওয়ানডের দিকে আইসিসিকে যত্নশীল হতে হবে।’

‘টেস্ট ক্রিকেট আমাদের সংস্কৃতি। টেনিসকে উদাহরণ হিসেবে দেখুক। ঘাসের কোর্টে এখনও উইম্বলডন হয়।’

কপিল আরও যোগ করেন আসন্ন ভারত-অস্ট্রেলিয়া টেস্ট সিরিজ যে জিতবে, সে বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ জিতবে।

৯৭ ডেস্ক

Read Previous

ইনজামামের চোখে শচীনের যে ইনিংস ‘অন্যতম সেরা’

Read Next

ওয়েস্ট ইন্ডিজের পরিদর্শক দল আসছে বাংলাদেশে

Total
1
Share