আন্তর্জাতিক ব্রডকাস্টারে চোখ বিসিবির, পেছাতে পারে টুর্নামেন্ট

জালাল ইউনুস
Vinkmag ad

আসন্ন বঙ্গবন্ধু টি-টোয়েন্টি কাপে আন্তর্জাতিক ব্রডকাস্টে চোখ বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবির)। টুর্নামেন্ট ঘিরে ব্রডকাস্ট, প্রোডাকশন এমনকি ডিজিটাল প্ল্যাটফর্মের কনটেন্টের জন্যও আলাদা আলাদা দরপত্র আহ্বান করা হবে।

এদিকে পাঁচ দলের স্পন্সর চেয়ে বিসিবির দেওয়া বিজ্ঞপ্তি অনুসারে আগামীকাল (১ নভেম্বর) শেষ হতে যাচ্ছে দরপত্র জমা দেওয়ার সুযোগ। তবে বেশ ভালো সাড়া পাওয়া গিয়েছে বলে আভাস দিয়েছেন বিসিবির মিডিয়া কমিটির চেয়ারম্যান জালাল ইউনুস।

আগ্রহী প্রতিষ্ঠানের নাম কিংবা সংখ্যা না জানালেও আজ (৩১ অক্টোবর) গণমাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে তিনি বলেন, ‘কতজন আগ্রহ প্রকাশ করেছে তা আগামীকালকে বুঝতে পারবো। তারপর আমরা বলতে পারবো কি অবস্থায় আছে। আমরা সাড়া পাচ্ছি, শুনেছি অনেকেই আগ্রহী। অনেক কোম্পানিই আগ্রহ প্রকাশ করেছে, আমরা এখনই নিশ্চিত করে কিছু বলতে চাচ্ছিনা।’

এদিকে স্পন্সর চূড়ান্ত হওয়ার পরই দ্রুত ব্রডকাস্ট দরপত্র আহ্ববানের সাথে দল গঠনের ব্যাপারেও সিদ্ধান্ত নিবে বিসিবি। প্লেয়ার ড্রাফট হবে নাকি প্রেসিডেন্টস কাপের মত নির্বাচকরাই তৈরি করে দিবেন দলগুলো তা নিয়েও চলছে আলাপ আলোচনা।

জালাল ইউনুস বলেন, ‘এখনো এই সিদ্ধান্ত হয়নি। আগে আমরা আমাদের স্পন্সরদের কনফার্ম করার কাজ করছি। স্পন্সর কনফার্ম হলে আমরা আসলে বলতে পারবো কি আদলে হবে। আলাপ আলোচনা করেছি, এটা প্লেয়ার্স ড্রাফটও হতে পারে বা লটারির মাধ্যমে পাঁচটা দল নির্বাচক কমিটি ঠিক করে দিতে পারে। এটা এই মুহূর্তে বলা যাচ্ছে না।’

আগামী দুই একদিনের মধ্যে ব্রডকাস্ট নিশ্চিতেও দরপত্র আহ্ববান করবে বিসিবি। মূলত আন্তর্জাতিক ব্রডকাস্টেই চোখ দেশের ক্রিকেট নিয়ন্ত্রক সংস্থার। আলাদা প্রোডাকশন ও ডিজিটাল কনটেন্টের ব্যবস্থাও রাখবে বিসিবি।

এ প্রসঙ্গে মিডিয়া কমিটির চেয়ারম্যান যোগ করেন, ‘আমরা আন্তর্জাতিক ব্রডকাস্ট আহ্বান জানাবো। খুব শীঘ্রয়ই, দুই একদিনের মধ্যে আমরা টেন্ডার করবো। যাতে ম্যাচগুলো তারা কাভার করতে পারে, মিডিয়া স্বত্ব আমরা তাদেরকে দিব।’

‘ব্রডকাস্ট লোকাল বা আন্তর্জাতিক হতে পারে। তবে আমরা আন্তর্জাতিক ব্রডকাস্ট চেয়ে টেন্ডার দিব। এখানে ব্রডকাস্ট আলাদা থাকবে, প্রোডাকশন আলাদা থাকবে ডিজিটাল কনটেন্টও আলাদা থাকবে। এমন হতে পারে কেউ ডিজিটাল কনটেন্টের জন্য নিতে পারে। অথবা ব্রডকাস্ট বা প্রোডাকশন নিতে পারে আলাদা আলাদা।’

এদিকে ব্রডকাস্ট চূড়ান্ত করতে গিয়ে ৭-১০ দিন পেছাতে পারে টুর্নামেন্টও। তবে পূর্বে উল্লেখিত ১৫ নভেম্বর ধরেই কাজ করছে বিসিবি, ‘হ্যাঁ এটা একটা বড় প্রশ্ন। যেহেতু আমরা চেষ্টা করছি টেন্ডারটা আন্তর্জাতিক ব্রডকাস্টের জন্য। সেহেতু কিছু সময় (বিলম্ব) হতে পারে, ১৫ নভেম্বরের পরিবর্তে ৭ থেকে ১০ দিন পেছাতেও পারে। কিন্তু আমরা এখনো ১৫ তারিখ ধরে রেখেছি।’

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

‘মাশরাফির নাম নেই এরকম কথাও বলা যাচ্ছে না’

Read Next

প্লে অফে যাবার আশা বাঁচিয়ে রাখল হায়দ্রাবাদ

Total
15
Share