কোলকাতাকে হারাল চেন্নাই, প্লেঅফ নিশ্চিত মুম্বাইয়ের

কোলকাতাকে হারাল চেন্নাই, প্লেঅফ নিশ্চিত মুম্বাইয়ের
Vinkmag ad

রুতুরাজ গায়কোয়াড় এবং রবীন্দ্র জাদেজার ব্যাটিং বীরত্বে কোলকাতা নাইট রাইডার্সের বিপক্ষে ৬ উইকেটের জয় পেল চেন্নাই সুপার কিংস। এর ফলে মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স ১ম দল হিসেবে এবারের আইপিএলের কোয়ালিফায়ারে চলে গেল। অন্যদিকে কোয়ালিফায়ারের পথ কঠিন হয়ে গেল কোলকাতার।

দুবাই স্টেডিয়ামে টসে জিতে কোলকাতা নাইট রাইডার্সকে (কেকেআর) ব্যাটিংয়ের আমন্ত্রণ জানায় চেন্নাই। কোয়ালিফায়ারে পথ সুগম করার উদ্দেশ্যে শুরু থেকে ভালো ব্যাটিং করতে থাকে কেকেআর। শুবমান গিও এবং নিতিশ রানার মধ্যকার উদ্বোধনী জুটিতে ৫৩ রান আসে। চেন্নাইয়ের কারান শর্মার বলে বোল্ড হওয়ার আগে ২৬ রান করেন গিল। তিনে নেমে মাত্র ৭ রান করে স্যান্টনারের বলে আউট হন সুনীল নারাইন।

একপ্রান্তে ইনফর্ম ওপেনার নিতিশ রানা চমৎকার ব্যাটিং প্রদর্শন করতে থাকেন এবং অর্ধশত রান তুলে নেন। অন্যপ্রান্তে রিংকু সিং এবং এউইন মরগানরা ক্রিজে আসলেও নিজেদের স্কোর বড় গড়তে পারেননি। দিল্লি ক্যাপিটালসের বিপক্ষে সেঞ্চুরি মিস করার পর এদিনও সেঞ্চুরি মিস করেন নিতিশ রানা। লুঙ্গি এনগিডির বলে আউট হওয়ার আগে ৬১ বলে ১০টি চার এবং ৪টি ছক্কার সাহায্যে ৮৭ রানের দুর্দান্ত ইনিংস খেলেন রানা।

শেষদিকে দীনেশ কার্তিকের প্রচেষ্টায় ২০ ওভার শেষে ৫ উইকেট হারিয়ে ১৭২ রানের চ্যালেঞ্জিং স্কোর গড়ে কেকেআর। কার্তিক মাত্র ১০ বলে ২১ রানে অপরাজিত থাকেন। চেন্নাইয়ের পক্ষে এনগিডি ২টি উইকেট পান।

১৭৩ রানের টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে চেন্নাই সুপার কিংসও ভালো সূচনা করে। ওপেনার শেন ওয়াটসন ধীর গতিতে ব্যাটিং করলেও আগের ম্যাচের ম্যাচ সেরা অপর ওপেনার রুতুরাজ গায়কোয়াড় এদিনও তার ব্যাটিং প্রতিভার ঝলক দেখান। উদ্বোধনী জুটিতে ৫০ রান আসে তাদের ব্যাট থেকে। কেকেআরের বরুণ চক্রবর্তীর বলে আউট হওয়ার আগে ১৪ রান করেন ওয়াটসন। এরপর তিনে নামা আম্বাতি রায়ডুকে নিয়ে দলের ভিত্তি শক্ত করেন রুতুরাজ।

২য় উইকেট জুটিতে তারা ৬৮ রান যোগ করেন। ব্যাক টু ব্যাক হাফ সেঞ্চুরি করেন গায়কোয়াড়। দারুণ খেলতে থাকা রায়ডুকে ৩৮ রানে ফিরিয়ে দেন প্যাট কামিন্স। পরের ওভারে চেন্নাইয়ের অধিনায়ক মাহেন্দ্র সিং ধোনিকে চমৎকার ডেলিভারিতে বোল্ড করে চেন্নাইয়ের জয়ের পথ কঠিন করে দেন বরুণ।

আস্কিং রানরেট বেড়ে যাওয়ায় মারমুখী ব্যাটিং করতে গিয়ে কামিন্সের বলে বোল্ড হন রুতুরাজ। আউট হওয়ার আগে ৫৩ বলে ৬টি চার ও ২টি ছক্কার সহায়তায় ৭২ রানের অসাধারণ ইনিংস খেলেন তিনি। এরপর শুরু হয়ে রবীন্দ্র জাদেজা শো। ১৯তম ওভারে লকি ফার্গুসনকে ২টি চার ও ১টি ছক্কা হাঁকিয়ে চেন্নাইয়ের জয়ের পথ সুগম করেন জাদেজা।

শেষ ওভারের শেষ দুই বলে কমলেশ নাগারকোটিকে ডিপ মিড উইকেট দিয়ে বিশাল দুইটি ছক্কা হাঁকিয়ে চেন্নাইকে ৬ উইকেটের জয় এনে দেন জাদেজা, নিজে মাত্র ১১ বলে ২টি চার ও ৩টি ছক্কার সাহায্যে ৩১ রানে অপরাজিত থাকেন।

কেকেআরের পক্ষে কামিন্স ও বরুণ ২টি করে উইকেট পান। দায়িত্বশীল ব্যাটিংয়ের জন্য ব্যাক টু ব্যাক ম্যাচ সেরা হন চেন্নাইয়ের রুতুরাজ গায়কোয়াড়।

সংক্ষিপ্ত স্কোরঃ

কোলকাতা নাইট রাইডার্সঃ ১৭২/৫ (২০ ওভার), নিতিশ রানা ৮৭, শুবমান গিল ২৬,কার্তিক ২১*;এনগিডি ২/৩৪, জাদেজা ১/২০

চেন্নাই সুপার কিংসঃ ১৭৮/৪ (২০ ওভার) , রুতুরাজ ৭২, রায়ডু ৩৮, জাদেজা ৩১*; বরুণ ২/২০, কামিন্স ২/৩১

ফলাফলঃ চেন্নাই সুপার কিংস ৬ উইকেটে জয়ী

ম্যাচ সেরাঃ রুতুরাজ গায়কোয়াড় (চেন্নাই সুপার কিংস)।

৯৭ ডেস্ক

Read Previous

সাকিবের প্রত্যাবর্তনঃ টুইটারে স্বাগত জানিয়েছে যারা

Read Next

পর্দা উঠেছে বঙ্গবন্ধু টি-১০ কাপের

Total
4
Share