ঋদ্ধিমান আর রাশিদ খানে দিল্লিকে উড়িয়ে দিল সানরাইজার্স

দিল্লিকে রীতিমত উড়িয়ে দিল হায়দ্রাবাদ
Vinkmag ad

ঋদ্ধিমান সাহা, ডেভিড ওয়ার্নার শুরুতেই চালান তান্ডব! এরপর মনীশ পান্ডের ঝড়ো ইনিংসে হায়দ্রাবাদের স্কোরবোর্ডে ২১৯! বড় সংগ্রহের পর বল হাতে রাশিদ খানের ঘূর্ণি। তাতেই দিল্লি বধ হায়দ্রাবাদের। ১৯ ওভারে মাত্র ১৩১ রানে দিল্লি ক্যাপিটালসের ইনিংস গুটিয়ে দেয় সানরাইজার্স।

আইপিএলের প্লে অফের লড়াইয়ে টিকে থাকতে গেলে দিল্লিকে হারাতেই হবে। আর সেই শর্ত মেনে ৮৮ রানের দিল্লি ক্যাপিটালসকে হারিয়ে প্লে-অফে লড়াইয়ে টিকে থাকল ডেভিড ওয়ার্নারের সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদ। টানা ম্যাচ হেরে ৩ নম্বরে নেমে এল দিল্লি ক্যাপিটালস, ৮৮ রানে ম্যাচ জিতে শেষ চারের আশা জিইয়ে রাখলো সানরাইজার্স

দুবাইয়ের আন্তর্জাতিক স্টেডিয়ামে টসে হেরে প্রথমে সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদের হয়ে ওপেনিং করতে ডেভিড ওয়ার্নারের সঙ্গে ঋদ্ধিমান সাহা মাঠে নামেন। দুই ওপেনারের ১০৭ রানের পার্টনারশিপই বড় রানের ভিত গড়ে দেয় হায়দ্রাবাদের। দুই ওপেনারের হাত ধরে এদিন চলতি টুর্নামেন্টে পাওয়ার প্লে’তে সর্বাধিক ৭৭ রানও তুললো সানরাইজার্স। ডেভিড ওয়ার্নারের ব্যাট থেকে আসে ৩৪ বলে ৬৬ রানের ইনিংস। যা সাজানো ছিল ৮টি চার এবং ২টি ছয়ে।

৯.৪ ওভারে ওয়ার্নার আউট হলেও একটা সময় তিন অঙ্কের লক্ষ্যে ভালোই এগোচ্ছিলেন ঋদ্ধিমান সাহা। শতরান থেকে মাত্র ১৩ রান দূরে দাঁড়িয়ে হঠাতই ছন্দপতন। দ্বিতীয় উইকেটে মনীশ পান্ডের সঙ্গে জুটিতে ৬৩ রান যোগ করে ব্যক্তিগত ৮৭ রানে আউট হন ঋদ্ধি। এদিন তার ইনিংসে ছিল ১২টি চার ও ২টি ছয়।

বাকি সময়টা দলের রানকে এগিয়ে নিয়ে যান মনীশ পান্ডে এবং কেন উইলিয়ামসন জুটি। মনীশের ৩১ বলে ৪৪ রানের ইনিংসে দু’শোর গন্ডি পেরিয়ে যায় সানরাইজার্স। মনীশের ইনিংসে ছিল ৪টি চার এবং ১টি ছয়। ১০ বলে ১১ রানে অপরাজিত থেকে যান উইলিয়ামসন। নির্ধারিত ২০ ওভারে মাত্র ২ উইকেট হারিয়ে স্কোরবোর্ডে ২১৯ রান তোলে সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদ।

বল হাতে এদিন ব্যর্থ দিল্লির বোলাররা। একটি করে উইকেট পেয়েছেন আনরিখ নরকিয়া এবং রবিচন্দ্রন অশ্বিন। চলতি আইপিএলে এই প্রথম কোনও ম্যাচে উইকেটহীন থাকলেন কাগিসো রাবাদা। ৪ ওভারে ৫৪ রান খরচ করলেন এই প্রোটিয়া পেসার।

অন্য দিকে ব্যাট হাতে নামতেই একের পর এক উইকেট হারাতে থাকে দিল্লি। ওপেনার শিখর ধাওয়ান ০ রানেই আউট হয়ে যান। অজিঙ্কা রাহানে, শিমরন হেটমায়ার, রিশাব পান্ট এবং তুষার দেশপাণ্ডেই কেবল দুই অঙ্কের রানে পৌঁছতে পেরেছিলেন। তাদের মধ্যে রিশাব পান্ট করেন সর্বোচ্চ ৩৬ রান।

দিল্লির অধিনায়ক শ্রেয়াস আইয়ার ৭ রানেই ফিরে যান। আক্সার প্যাটেল ১, মার্কাস স্টয়নিস করেন ৫ রান; এই ছিল দিল্লির ব্যাটিং অর্ডারের রান সংখ্যা। ১৯ ওভারেই মাত্র ১৩১ রানে দিল্লি ক্যাপিটালসের ইনিংস গুটিয়ে দেয় সানরাইজার্স হায়দরাবাদ।

৪ ওভার বল করে মাত্র ৭ রান দিয়ে ৩ উইকেট তুলে নেন আফগান স্পিনার রাশিদ খান। সন্দীপ শর্মা ও নাতরাজন ২টি করে উইকেট নেন। শাহবাজ নাদিম, জেসন হোল্ডার এবং বিজয় শংকর ১টি করে উইকেট তুলে নেন এদিন।

সংক্ষিপ্ত স্কোরঃ

সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদঃ ২১৯/২ (২০ ওভার) সাহা ৮৭, ওয়ার্নার ৬৬, মনীশ ৪৪*; নরকিয়া ১/৩৭, অশ্বিন ১/৩৫

দিল্লি ক্যাপিটালসঃ ১৩১/১০ (১৯ ওভার) রিশাব পান্ট ৩৬, রাহানে ২৬,  তুষার ২০*; রাশিদ ৩/৭,  সন্দীপ ২/২৭, নাতরাজন ২/২৬

ফলাফলঃ সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদ ৮৮ রানে জয়ী

ম্যাচ সেরাঃ ঋদ্ধিমান সাহা (সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদ)

৯৭ ডেস্ক

Read Previous

টি-টোয়েন্টি কাপ বঙ্গবন্ধুর নামে

Read Next

ভারতের অস্ট্রেলিয়া সফরের সূচি চূড়ান্ত

Total
4
Share