টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্টের বৃত্তান্ত জানালেন বিসিবি সভাপতি

টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্টের বৃত্তান্ত জানালেন বিসিবি সভাপতি
Vinkmag ad

বেশ সফলভাবেই শেষ হয়েছে করোনার মধ্যে জৈব সুরক্ষিত পরিবেশ তৈরির মাধ্যমে তিন দলীয় বিসিবি প্রেসিডেন্টস কাপ ওয়ানডে টুর্নামেন্ট। দেশের ক্রিকেট ফেরানোর পরবর্তী ধাপে আগামী মাসে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) আয়োজন করতে যাচ্ছে পাঁচ দলের টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্ট। সেটি কর্পোরেট লিগ হচ্ছে কীনা তা এখনো চূড়ান্ত না হলেও স্পন্সরদের থাকা নিশ্চিত। সদ্য সমাপ্ত ওয়ানডে টুর্নামেন্টের মত দলও নির্বাচন করে দিতে চায় বিসিবি।

গতকাল (২৫ অক্টোবর) বিসিবি প্রেসিডেন্টস কাপের ফাইনাল শেষে গণমাধ্যমের মুখোমুখি হন বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন। আর সেখানেই আসন্ন টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্টের সম্ভাব্য বৃত্তান্ত নিয়ে কথা বলেন। বিদেশি ক্রিকেটার রাখতে না চাওয়ার কারণও ব্যাখ্যা করেছেন বিসিবি বস।

নাজমুল হাসান পাপন বলেন, ‘বিদেশি ক্রিকেটার আমরা রাখতে চাচ্ছি না। সবচেয়ে বড় কথা হল বিদেশি ক্রিকেটার আনতে গেলে ব্যাটসম্যানই পাচ্ছি সব। ব্যাটসম্যান এনে লাভটা কী। আমাদের তেমন কোনো লাভ হচ্ছে না, কর্পোরেট হাউজের লাভ হলে হতে পারে। আমার ভালো বোলারও চাই। ভালো ভালো বোলারররা আসুক, ফাস্ট বোলাররা আসুক, স্পিন বোলররা আসুক। আমাদের ব্যাটসম্যানরা খেলুক। ওরকম যেহেতু পাওয়া যাচ্ছে না। তাই আগ্রহ নাই।’

তিন দলের ওয়ানডে টুর্নামেন্ট আয়োজনই বর্তমান পরিস্থিতিতে কঠিন ছিল সেখানে পাঁচ দল নিয়ে টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্ট আয়োজনটা হবে আরও চ্যালেঞ্জিং। আর এই চ্যালেঞ্জটাই নিতে চায় বিসিবি, ‘পাঁচটা দল নিয়ে করবো। তাহলে আরও বেশ কিছু ছেলে সুযোগ পাবে। আরও অন্তত ৩০ জন ক্রিকেটার আসবে।’

‘এটা চ্যালেঞ্জিং হবে। অনেকে বলছিল এই তিনটা টিম নিয়ে করে তো আমাদের কঠিন অবস্থা। কিন্তু আমরা এই চ্যালেঞ্জটা নিতে চাচ্ছি। আশা করি ১৫ নভেম্বর এটা শুরু হবে। এই পাঁচটা টিমের জন্য কারা কারা স্পন্সর হতে চাই আমরা এটা জানতে চাইবো। ওই অনুযায়ী আমরা ঠিক করে ফেলবো।’

কর্পোরেট টুর্নামেন্ট হচ্ছে কীনা তা চূড়ান্ত নয় তবে ইতোমধ্যে আগ্রহ প্রকাশ করেছে বেশ কিছু কর্পোরেট হাউজ। বিসিবি প্রেসিডেন্টস কাপে কোন স্পন্সর না থাকলেও টি-টোয়েন্টি এই টুর্নামেন্টে থাকা নিশ্চিত। বিসিবি সভাপতি যোগ করেন, ‘স্পন্সর থাকবে এটুকু নিশ্চিত। বিসিবি করতেও কোনো অসুবিধা নাই। কিন্তু ইতোমধ্যে অনেক আগ্রহ দেখেছি যারা স্পন্সর হতে চায়।’

‘বেশির ভাগই অবশ্য নতুন। সাধারণত যারা বিপিএলে সুযোগ পায় না। অনেকেই আছে যারা বিপিএলে সুযোগ পাচ্ছে না। বিপিএলে আমরা যাদেরকে দিয়েছি, তারাই থাকছে। এখন নতুন কেউ আসতে চাইলে তারা হয়তো সুযোগ পাবে। দেখা যাক কী হয়।’

পাঁচটি দলই বিসিবি নির্বাচন করে দিতে চায় উল্লেখ করে পাপন আরও বলেন, ‘আমাদের ইচ্ছে হচ্ছে আমরা দল নির্বাচন করে দিব। যারা এটার স্পন্সর হবে ওরা যদি সবাই ড্রাফট চায় এটাও করতে পারি। আমার যেটা ধারণা করোনা পরিস্থিতিতে এই ঝামেলায় কারো যাওয়া ঠিক হবে না। এটা আমাদের ওপর ছেড়ে দিলে, আমরা যেভাবে করেছি ভালো টিমই করবো। তবে এই ব্যাপারে আমরা নমনীয় থাকবো।’

খেলোয়াড়দের পারিশ্রমিকের মত গুরুত্বপূর্ণ বিষয়েও নিয়ন্ত্রণ চায় বিসিবি, তবে সেটি ক্রিকেটারদের ভালোর জন্যই। কর্পোরেট টুর্নামেন্ট না হলে ক্রিকেটারদের আর্থিক দিকটাও দেখভাল করবে বিসিবি।

পাপন বলেন, ‘আমরা যদি দেখি অনেকগুলো কর্পোরেট থেকে আগ্রহ দেখিয়েছে, তাহলে একরকম। তাহলে ওদের সঙ্গেও বসতে হবে। বিসিবি করলে একরকম। বিসিবি করলে টাকা তো একটু বেশি পাবেই। সেটা এবারের টুর্নামেন্টে আপনারা বুঝতে পেরেছেন। আমার ধারণা ওটাও কম হবে না, ওটাও ভালো হবে।’

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

স্টোকসের দাপুটে শতকে রাজস্থানের সহজ জয়

Read Next

এক হাতে আর্চারের অবিশ্বাস্য ক্যাচ, অবাক সতীর্থরাও (ভিডিও)

Total
23
Share