তামিমদের শুভসূচনা, নাকি রিয়াদদের জয়ে ফেরা?

মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ তামিম ইকবাল
Vinkmag ad

দীর্ঘ বিরতির পর দেশে প্রতিযোগিতামূলক ক্রিকেট ফিরেছে প্রেসিডেন্ট’স কাপ ওয়ানডে সিরিজ দিয়ে। তিন দলের এই টুর্নামেন্টের উদ্বোধনী ম্যাচে নাজমুল একাদশের বিপক্ষে হেরে ব্যাকফুটে মাহমুদউল্লাহ একাদশ। ফলে আগামীকাল জয়ে ফিরতে মুখিয়ে থাকবে তারা। অন্যদিকে প্রতিপক্ষে তামিম একাদশও জয় দিয়ে শুভ সূচনা করতে চাইবে। তবে বাড়তি অনুশীলন ও প্রথম ম্যাচ বলে ফুরফুরে মেজাজেই থাকার কথা তামিমদের।

ডাবল লিগ পদ্ধতির টুর্নামেন্ট বলে প্রথম দুই ম্যাচে হারলে ফাইনালের দৌড়ে বেশ পিছিয়ে পড়তে হবে মাহমুদউল্লাহ একাদশকে। অবশ্য লম্বা বিরতির পর মাঠে ফিরে প্রথম ম্যাচে খাপ খাওয়ানোর ক্ষেত্রে মাহমুদউল্লাহ একাদশ অন্তত তামিম একাদশের চাইতে কিছুটা এগিয়ে থাকবে।

টুর্নামেন্টকে প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ করতে বিসিবি তিনটি দলকেই ভারসাম্যপূর্ণ করতে চেয়েছে। ব্যাটসম্যান, বোলার কিংবা অলরাউন্ডারের সেরা কম্বিনেশনই আছে তিন দলে। বিশেষ করে যুব বিশ্বকাপ জয়ী দলের তরুণদের সামনে নিজেদের মেলে ধরার সুযোগ। প্রথম ম্যাচেই যেমন ম্যাচসেরার পুরষ্কার জিতে নিয়েছেন নাজমুল একাদশের তৌহিদ হৃদয়।

আগামীকালকের ম্যাচেও নজর থাকবে বেশ কিছু তরুণ ক্রিকেটারের দিকে। বিশেষ করে তামিম ইকবালের সাথে ওপেন করতে যাওয়া যুব বিশ্বকাপ জয়ী দলের বাঁহাতি ব্যাটসম্যান তানজিদ হাসান তামিম অন্যতম। নেটে অনুশীলনেই তামিম ইকবালের নজর কেড়েছেন স্টাইলিশ এই ব্যাটসম্যান। নিজের আদর্শ তামিম ইকবালের সাথে ব্যাট করতে মুখিয়ে থাকা তানজিদ হাসান তামিমের মত একই পরিস্থিতি খোদ তামিম ইকবালেরই।

তামিম একাদশে তামিম ইকবাল ছাড়াও অভিজ্ঞদের মধ্যে আছেন মোসাদ্দেক হোসেন, মোহাম্মদ মিঠুন,তাইজুল ইসলামরা। তানজিদ হাসান তামিম ছাড়াও তরুণ তুর্কিদের মধ্যে যুব বিশ্বকাপ জয়ী দলের অধিনায়ক আকবর আলির দিকে আলাদা দৃষ্টি থাকবে সবারই। যুবাদের আরেক কান্ডারি শাহাদাত হোসেন দিপুও মিডল অর্ডারে ভরসার প্রতীক হতে পারেন।

মোহাম্মদ সাইফউদ্দিনের অলরাউন্ড নৈপুণ্যের সাথে বল হাতে মাহমুদউল্লাহ একাদশের জন্য হুমকি হতে পারেন মুস্তাফিজুর রহমান, সৈয়দ খালেদ আহমেদ কিংবা যুবাদের আরেক সেনানী বাঁহাতি পেসার শরিফুল ইসলাম। তুরুপের তাস হয়ে আক্রমণ করতে লেগ স্পিনার মিনহাজুল আবেদিন আফ্রিদিতো আছেনই।

নিজেদের প্রস্তুতি ও যুব বিশ্বকাপ জয়ী দলের ক্রিকেটারদের উপর আস্থা রেখে অধিনায়ক তামিম ইকবাল বলেন, ‘এটা আমাদের প্রথম ম্যাচ। প্রস্তুতি খুবই ভালো হয়েছে। দল হিসেবে আমরা দুটি বাড়তি দিন অনুশীলন করতে পেরেছি, এটা একটা অ্যাডভান্টেজ ছিলো। অনূর্ধ্ব-১৯ দলের কিছু খেলোয়াড় আছে। তারাও এখন দলে।’

‘ওদের সাথে অনুশীলনের একটা অভিজ্ঞতাও হয়েছে। ওরা অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপে কিভাবে কী করলো সে বিষয়েও কথা হয়েছে। এই আসরটি হাই-ভোল্টেজ হবে। প্রতিটি খেলোয়াড় রোমাঞ্চিত। আমরা আজ ভালো অনুশীলন করেছি। আশা করি কালকের ম্যাচ দারুণ হবে।’

অন্যদিকে নিজেদের ঘুরে দাঁড়ানোর ম্যাচে মাহমুদউল্লাহ একাদশের দুই ওপেনার লিটন দাস ও নাইম শেখ প্রথম ম্যাচের ব্যর্থতা ভুলে দলকে দারুণ শুরু এনে দেওয়ার চেষ্টায় থাকবেন। আগের ম্যাচের মত হাল ধরতে অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের সাথে অভিজ্ঞ ইমরুল কায়েসে আছেন। প্রথম ম্যাচে খালি হাতে ফেরা মুমিনুল হকও রান করতে ক্ষুধার্ত থাকবেন। লোয়ার মিডলে ক্যামিও দেখাতে সাব্বির রহমানে আস্থা থাকবে অধিনায়কের।

সব ছাপিয়ে দুই দলের লড়াইটা উপভোগ্য হবে আশা করা যায়। মিরপুরে খালি গ্যালারির সামনে নামলেও লাইভ স্ট্রিমিং, ধারাবিবরণীর কারণে দর্শক মনে ইতোমধ্যে ভালোভাবে আগ্রহ তৈরি করেছে বিসিবি প্রেসিডেন্ট’স কাপ। বিসিবিও আয়োজনে রাখছেনা কোন কমতি প্রতি ম্যাচেই ম্যাচ সেরার পাশাপাশি পুরষ্কৃত করা হচ্ছে সেরা ব্যাটসম্যান, বোলার ও ফিল্ডারকে। ফলে তিন বিভাগেই নিজদের উজাড় করে দিবে ক্রিকেটাররা এটাই চাওয়া দেশের ক্রিকেট ভক্তদের পাশাপাশি ক্রিকেট নিয়ন্ত্রক সংস্থার।

মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে ম্যাচ শুরু হবে বাংলাদেশ সময় দুপুর দেড়টায়। প্রতি দলে খেলার সুযোগ পাচ্ছে ১২ জন ক্রিকেটার, অর্থাৎ একজন ব্যাটসম্যানকে ব্যাট করানোর পাশাপাশি আরেকজন বাড়তি বোলারও খেলানোর সুযোগ পাবে প্রতিটি দল।

মাহমুদউল্লাহ একাদশ-

মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ (অধিনায়ক), মোহাম্মদ নাইম শেখ, লিটন কুমার দাস, মুমিনুল হক, মাহমুদুল হাসান, নুরুল হাসান সোহান, সাব্বির রহমান, ইমরুল কায়েস, সুমন খান, এবাদত হোসেন চৌধুরী, রুবেল হোসেন, মেহেদী হাসান মিরাজ, রাকিবুল হাসান, আমিনুল ইসলাম বিপ্লব, আবু হায়দার রনি।

স্ট্যান্ডবাইঃ সানজামুল ইসলাম ও হাসান মুরাদ।

তামিম একাদশ-

তামিম ইকবাল খান (অধিনায়ক), তানজিদ হাসান তামিম, মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত, মোহাম্মদ মিঠুন, শাহাদত হোসেন দিপু, ইয়াসির আলি চৌধুরী রাব্বি, আকবর আলি, এনামুল হক বিজয়, মোহাম্মদ সাইফ উদ্দিন, মুস্তাফিজুর রহমান, সৈয়দ খালেদ আহমেদ, শরিফুল ইসলাম, শেখ মেহেদী হাসান, তাইজুল ইসলাম, মিনহাজুল আবেদিন আফ্রিদি।

স্ট্যান্ডবাইঃ শফিকুল ইসলাম, মাহিদুল ইসলাম অঙ্কন ও মেহেদী হাসান রানা।

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

আক্ষেপ কম বাংলাদেশের, হতাশ শ্রীলঙ্কা দল

Read Next

ডি ভিলিয়ার্সের অতিমানবীয় ইনিংস, উড়ে গেল কোলকাতা

Total
6
Share