আলোর মুখ দেখছে ডিপিএলও

বঙ্গবন্ধু ডিপিএল ২০১৯-২০
Vinkmag ad

দেশের সব ধরণের ক্রিকেট শুরু করে দেওয়ার প্রচেষ্টায় বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। যার অংশ হিসেবেই শ্রীলঙ্কা সফর স্থগিতের পর নিজেদের মধ্যে প্রস্তুতি ম্যাচ, বিসিবি প্রেসিডেন্ট’স কাপ ওয়ানডে সিরিজ ও কর্পোরেট টি-টোয়েন্টি লিগ আয়োজন করছে দেশের ক্রিকেট নিয়ন্ত্রক সংস্থা। বায়ো-বাবল সিকিউরড (জৈব সুরক্ষিত বলয়) পরিবেশে এসব আয়োজনের মধ্য দিয়ে পুরোদমে ঘরোয়া লিগ ও আন্তর্জাতিক সিরিজ আয়োজনের রূপ রেখা তৈরির চেষ্টা।

স্থগিত হওয়া ঢাকা প্রিমিয়ার ডিভিশন ক্রিকেট লিগ (ডিপিএল) শুরু করা নিয়েও ইতোমধ্যে কাজ করছে বিসিবি। ১২ টি ক্লাব বলেই প্রায় দুইশ ক্রিকেটার, কোচিং স্টাফ, টিম ম্যানেজম্যান্ট নিয়ে বায়ো বাবল তৈরি কঠিন। বিশেষ করে এত লোককে একসাথে কোন হোটেলে রেখে টুর্নামেন্ট চালিয়ে নেওয়া অনেকটা অসম্ভব। যে কারণে ক্লাবগুলোর সাথে আলোচনা করে বিকেএসপি বা এমন কোন জায়গায় যথাযথ নিরাপত্তা নিশ্চিতের মাধ্যমে মাঠে গড়াতে পারে ডিপিএল।

গতকাল (১১ অক্টোবর) মিরপুরে গণমাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে ডিপিএল নিয়ে নিজেদের ভাবনার কথা জানাতে গিয়ে বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন বলেন, ‘আমরা আজকে এটি নিয়েও কথা বলেছি। আমরা একটা জায়গার কথা বলেছি। কয়েকদিন আগে আমরা ওদেরকে একটি প্রস্তাব দিয়েছিলাম যে এটা করা সম্ভব কিনা। সুজন (বিসিবি প্রধান নির্বাহী নিজাম উদ্দিন চৌধুরী সুজন) তো আজকে বললো এটা সম্ভব।’

‘আমরা এরই মধ্যে একটি প্ল্যান দিয়েছিলাম। আজকে ওরা নিশ্চিত করলো যে এটা সম্ভব। এরপরও আমি কিন্তু ডিটেইলস দেখিনি। এখন শুধু সম্ভব বললে তো হবে না। আমাকে দেখাতে হবে সেটা কিভাবে সম্ভব। এটা দেখানো বাকি আছে, তবে ও (বিসিবি প্রধান নির্বাহী) যখন বলেছে সম্ভব তখন আমি নিশ্চিত যে এটা করা যেতে পারে। আমার ধারণা আমরা করতে পারবো। এটুকু আমার বিশ্বাস রয়েছে।’

তিন দলীয় ওয়ানডে সিরিজে ক্রিকেটারদের পাঁচ তারকা হোটেলে রেখে বায়ো বাবল তৈরি করেছে বিসিবি। কিন্তু প্রিমিয়ার লিগের ক্লাবগুলো এত অর্থ ব্যয় করে এমন কিছু করতে পারবেনা বলে মনে করেন বিসিবি সভাপতি। যে কারণেই ঝুঁকি এড়াতে সর্বোচ্চ সতর্কতা অবলম্বন করছিল দেশের ক্রিকেট নিয়ন্ত্রক সংস্থা।

এ প্রসঙ্গে নাজমুল হাসান পাপন বলেন, ‘আমাদের মূল সমস্যা হচ্ছে এক জায়গায় রেখে জৈব সুরক্ষা বলয় তৈরি করে……সেই পরিবেশে কেউ ঢুকতে পারবে না, সেই জায়গায় ওদেরকে রেখে থাকা, খাওয়া, ট্রেনিং, খেলা সব শেষ করানো- যেগুলো কিনা আমরা এখন করছি, টি-টোয়েন্টিতে করবো। মানে একটা হোটেলে তো এতজনকে রাখা যাবে না। ক্লাবগুলো তো এত দামি হোটেলে রাখতেও পারবে না ক্রিকেটারদের। এটা নিয়ে কি করা যায় সেটা নিয়ে বলেছি।’

ডিপিএল চালু করতে যে দুটি ভেন্যুর কথা ভাবছে বিসিবি তার একটি বিকেএসপি। নাজমুল হাসান পাপন যোগ করেন, ‘বিকেএসপি একটা ভালো অপশন হতে পারে এখানে। ওদেরকে আমরা যে দুটি অপশনের কথা বলেছি তার মধ্যে একটা হলো বিকেএসপি। এখন দেখতে হবে ওরা খালি আছে কিনা, সেখানে এতজনকে রাখা যাবে কিনা। আর তিনটি মাঠেই খেলা যাবে আশা করি। আমাদের তিনটি মাঠেই একসঙ্গে খেলা যাবে।’

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

নাদালের অনন্য অর্জনে ক্রিকেটারদের অভিনন্দন বার্তা

Read Next

মালিঙ্গা-বিনয়দের পেছনে ফেলে ব্রাভোর দিকে ছুটছেন রাবাদা

Total
8
Share