মাহমুদউল্লাহ একাদশকে হারিয়ে দিল নাজমুল একাদশ

মাহমুদউল্লাহদের অল্পতে আটকে দিল আল আমিন-তাসকিনরা
Vinkmag ad

আজ থেকে শুরু হয়েছে বিসিবি প্রেসিডেন্টস কাপ। প্রথম ম্যাচে একে অপরের মুখোমুখি হয়েছে নাজমুল একাদশ ও মাহমুদউল্লাহ একাদশ। এই ম্যাচের খুটিনাটি হালনাগাদ এই লাইভ রিপোর্টে।

জয় দেখলো নাজমুল একাদশঃ

জয় দিয়ে বিসিবি প্রেসিডেন্টস কাপ-২০২০ মিশন শুরু করল নাজমুল একাদশ।

সংক্ষিপ্ত স্কোরঃ

মাহমুদউল্লাহ একাদশ ১৯৬/১০ (৪৭.৩), লিটন ১১, নাইম ৯, মুমিনুল ০, ইমরুল, ৪০, মাহমুদউল্লাহ ৫১, সোহান ১৪, সাব্বির ২২, বিপ্লব ৬, রনি ১৪*, রাকিবুল ১৫, রুবেল ১; তাসকিন ১০-০-৩৭-২, আল আমিন ১০-১-৪০-২, মুগ্ধ ৯-০-৪৪-২, নাইম ১০-১-৩৯-১, সৌম্য ০.৩-০-১-১

নাজমুল একাদশঃ ১৯৭/৬ (৪১.১), সাইফ ১৭, সৌম্য ২১, শান্ত ২৮, মুশফিক ১, ধ্রুব ৪, তৌহিদ হৃদয় ৫২, শুক্কুর ৫৬*, নাইম ৭*; এবাদত ৯-০-৪৬-৩, রিয়াদ ৭-০-২৭-১, রাকিবুল ৮-১-৩৩-১, বিপ্লব ৫.১-০-৩১-১।

ফলাফলঃ নাজমুল একাদশ ৫৩ বল ও ৪ উইকেট হাতে রেখে জয়ী।

সেরা ফিল্ডারঃ রিশাদ হোসেন (নাজমুল একাদশ)
সেরা ব্যাটসম্যানঃ ইরফান শুক্কুর (নাজমুল একাদশ)
সেরা বোলারঃ তাসকিন আহমেদ (নাজমুল একাদশ)
ম্যাচ সেরাঃ তৌহিদ হৃদয় (নাজমুল একাদশ)।

শুক্কুর-হৃদয় জুটিঃ

৭৯ রানে ৫ উইকেট হারিয়ে বসা নাজমুল একাদশকে ম্যাচে দারুণভাবে ফিরিয়েছে তৌহিদ হৃদয়- ইরফান শুক্কুর জুটি। । ফিফটি তুলে নেন দুজনই। ১০৫ রানের জুটি ভাঙে তৌহিদ হৃদয় আউট হলে। ৬৭ বলে ২ টি করে চার ও ছক্কায় ৫২ রান করেন তিনি।

প্রথম ওভারেই রাকিবুলের বাজিমাতঃ

অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপজয়ী দলের সদস্য রাকিবুল হাসান নিজের করা প্রথম ওভারেই সাজঘরে ফিরিয়েছেন নাজমুল হোসেন শান্তকে। ২৯ বলে ৩ চার ও ১ ছয়ে ২৮ রান করা শান্তকে বোল্ড করে ফেরান রাকিবুল।

ফিরলেন আফিফঃ

হুট করেই খেই হারিয়েছে নাজমুল একাদশ। ৫৩ রান থেকে ৬৫ রান অব্দি যেতে ৩ টি উইকেট হারিয়েছে তারা। মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের বলে সাব্বির রহমানকে ক্যাচ দিয়ে ফিরেছেন আফিফ হোসেন ধ্রুব। ৫ বলে ৪ রান করেন তিনি।

মুশফিককে বোল্ড করলেন এবাদতঃ

এবাদতের স্যালুট উৎসব যেন থামছেইনা। সাইফ হাসানকে দিয়ে শুরু, একে একে ফিরিয়েছেন সৌম্য সরকার ও মুশফিকুর রহিমকেও। তার দুর্দান্ত বোলিং তোপেই ৬০ রানে তিন উইকেট হারিয়ে বসে নাজমুল একাদশ। দলীয় ২৭ রানে সাইফ হাসান (১৭), ৫৩ রানে সৌম্য সরকার (২১) ও ৬০ রানে মুশফিকুর রহিমকে (১) ফেরান এবাদত। সাইফ-সৌম্য ক্যাচ দিয়ে ফিরলেও মুশফিক ফিরেছেন বোল্ড হয়ে। তিনজনকে ফিরিয়েই স্যালুট উদযাপুন করতে দেখা যায় এবাদতকে।

এবাদতের দ্বিতীয় শিকার সৌম্যঃ

সাইফ হাসানের পর সৌম্য সরকারকে ফিরিয়ে নিজের ও দলের দ্বিতীয় উইকেট শিকার করেন পেসার এবাদত হোসেন। দলীয় ৫৩ রানে রাকিবুল হাসানের হাতে ধরা পড়েন সৌম্য সরকার। আউট হওয়ার আগে ৩৪ বলে ২ চারে তার ব্যাট থেকে আসে ২১ রান। ক্রিজে আছেন মুশফিকুর রহিম ও অধিনায়ক নাজমুল হোসেন শান্ত।

সাইফকে ফিরিয়ে এবাদতের স্যালুটঃ

মাহমুদউল্লাহ একাদশের দেওয়া ১৯৭ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে শুরুটা ভালোই করেছিল দুই ওপেনার সাইফ হাসান ও সৌম্য সরকার। রুবেল হোসেন, আবু হায়দার রনির দারুণ বোলিং সামলে সাবলীল হওয়ার পথেই ছিলেন দুজন।

তবে আরেক পেসার এবাদতের বলে নাইম শেখকে ক্যাচ দিয়ে সাইফ সাজঘরে ফিরলে ভাঙে জুটি। দলীয় ২৭ রানে ২২ বলে ৪ চারে ১৭ রান করে আউট হন সাইফ। অবশ্য ফিরতে পারতেন আরও আগেই, দলীয় ১৯ রানে ব্যক্তিগত ১৩ রানে রুবেল হোসেনের বলে ক্যাচ দিলে লুফে নিতে পারেননি লিটন দাস। দলকে প্রথম ব্রেক থ্রু এনে দিয়ে নিজের পরিচিত উদযাপন স্যালুট প্রদর্শন করেন এবাদত।

২০০ এর আগেই শেষ মাহমুদউল্লাহ একাদশের ইনিংসঃ

বিসিবি প্রেসিডেন্টস কাপ-২০২০ এর উদ্বোধনী ম্যাচে আগে ব্যাট করে ২০০ রানের গন্ডি স্পর্শ করতে পারেনি মাহমুদউল্লাহ একাদশ। নাজমুল একাদশের বোলারদের বোলিং তোপে ১৯৬ এই শেষ হয় মাহমুদউল্লাহদের ইনিংস।

নাজমুল একাদশের পক্ষে ২ টি করে উইকেট নেন তিন পেসার- আল আমিন হোসেন, তাসকিন আহমেদ ও মুকিদুল ইসলাম মুগ্ধ।

মাহমুদউল্লাহ একাদশের পক্ষে সর্বোচ্চ ৫১ রান আসে মাহমুদউল্লাহর ব্যাট থেকে, এছাড়া ইমরুল কায়েস করেন ৪০ রান।

সংক্ষিপ্ত স্কোর (১ম ইনিংস শেষে)-

মাহমুদউল্লাহ একাদশ ১৯৬/১০ (৪৭.৩), লিটন ১১, নাইম ৯, মুমিনুল ০, ইমরুল, ৪০, মাহমুদউল্লাহ ৫১, সোহান ১৪, সাব্বির ২২, বিপ্লব ৬, রনি ১৪*, রাকিবুল ১৫, রুবেল ১; তাসকিন ১০-০-৩৭-২, আল আমিন ১০-১-৪০-২, মুগ্ধ ৯-০-৪৪-২, নাইম ১০-১-৩৯-১, সৌম্য ০.৩-০-১-১।

ব্যাটিং বিপর্যয়ঃ

দ্রুত উইকেট হারিয়ে বিপাকে মাহমুদউল্লাহ একাদশ। দলীয় ১৫৯ রানের মাথায় ৬ষ্ঠ, ১৬০ এর মাথায় ৭ম ও ১৭২ এর মাথায় ৮ম উইকেট হারিয়েছে তারা। মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের পর সাব্বির রহমানকে (২৫ বলে ২২) আউট করেন মুকিদুল ইসলাম মুগ্ধ। ৬ রান করা আমিনুল ইসলাম বিপ্লব তাসকিন আহমেদের ২য় শিকার।

ফিফটি করেই থামলেন রিয়াদঃ

২১ রানে ৩ উইকেট হারিয়ে দল যখন ধুকছে তখন উইকেটে এসেছিলেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। ইমরুল কায়েসের সঙ্গে ৭৩ রানের জুটি গড়ে পরিস্থিতি সামাল দেন। পরে নুরুল হাসান সোহানের সঙ্গে গড়েন ৩২ রানের জুটি। সাব্বির রহমানের সঙ্গে জুটি থামে ৩৩ এ। ৮২ বলে ৩ চার ও ১ ছয়ে ৫১ রান করে আউট হন মাহমুদউল্লাহ।

রান আউটে কাটা পড়লেন সোহানঃ

এর আগে ইনিংসের শুরুতে মোহাম্মদ নাইম শেখ রান আউট হয়েছিলেন। সেই তালিকায় যুক্ত হয়েছে নুরুল হাসান সোহানের নামও। ২৮ বলে ১ চারে ১৪ রান করে সাজঘরে ফিরেছেন তিনি। নতুন ব্যাটসম্যান হিসাবে উইকেটে এসেছেন সাব্বির রহমান।

ইনিংস বড় করতে পারলেন না ইমরুলঃ

৬ষ্ঠ ওভারেই ৩ উইকেট হারিয়ে বসা মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ একাদশকে আশা দেখাচ্ছিলেন ইমরুল কায়েস ও অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। ৪র্থ উইকেটে এই দুজন দলকে এগিয়ে নিচ্ছিলেন স্বাচ্ছন্দে। উইকেটে থিতু হয়ে যাওয়া ইমরুল কায়েস ইনিংস বড় করতে ব্যর্থ হন। ৫০ বলে ৩ চার ও ১ ছয়ে ৪০ রান করা ইমরুল নাইম হাসানের বলে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন। তাতে ভাঙে ৭৩ রানের জুটি।

নতুন ব্যাটসম্যান হিসাবে উইকেটে নুরুল হাসান সোহান। ২৬ ওভারে ৪ উইকেট হারিয়ে মাহমুদউল্লাহ একাদশের সংগ্রহ ১১১ রান।

বিপাকে মাহমুদউল্লাহ একাদশঃ

বৃষ্টিতে খেলা বন্ধ হওয়ার আগে যতটা সাবলীল দেখা গিয়েছিল মাহমুদউল্লাহ একাদশের দুই ওপেনারকে ৪২ মিনিট পর পুনরায় খেলা শুরু হওয়ার পর ততটাই অস্বস্তি দেখা যায় দুজনের মাঝে। খেলা পুনরায় শুরু হওয়ার পর প্রথম বলেই ভুল বোঝাবুঝিতে রিশাদ হোসেনের থ্রোতে রান আউটে কাটা পড়েন নাইম শেখ। বৃষ্টির আগে করা ৯ রানের সাথে যোগ করতে পারেননি কোন রান।

নাইমের বিদায়ের পর দ্রুত আরও দুই উইকেট হারায় মাহমুদউল্লাহ একাদশ। লিটন দাস ফিরেছেন তাসকিন আহমেদের বল ইনসাইড এজে বোল্ড হয়ে। ১৫ বলে করতে পেরেছেন ১৩ রান। এরপর ক্রিজে আসা বাঁহাতি ব্যাটসম্যান মুমিনুল হক ফিরেছেন খালি হাতে। ৬ বল স্থায়ী ইনিংসটি শেষ হয়েছে আল আমিন হোসেনের বলে বোল্ড হয়ে। ২.১ ওভারে ৪ রানের ব্যবধানে ৩ উইকেট হারায় মাহমুদউল্লাহ একাদশ।

বৃষ্টি বাধাঃ

দীর্ঘ অপেক্ষা শেষে বিসিবি প্রেসিডেন্টস কাপ ওয়ানডে সিরিজ দিয়ে টাইগার ক্রিকেটারদের মাঠে ফেরার শুরুতে পড়তে হয়েছে বৃষ্টি বাঁধায়। ম্যাচ শুরুর আগে বৃষ্টি শঙ্কা থাকলেও যথাসময়ে মাঠে গড়ায় নাজমুল একাদশ বনাম মাহমুদউল্লাহ একাদশের মধ্যকার উদ্বোধনী ম্যাচটি। তবে টস হেরে ব্যাট করতে নামা মাহমুদউল্লাহ একাদশ তিন ওভার ব্যাট করার পরই বৃষ্টি শুরু হলে বন্ধ হয়ে খেলা। তার আগে মাহমুদউল্লাহ একাদশের সংগ্রহ বিনা উইকেটে ১৭ রান। ৭ বলে লিটন দাস ৭ ও ১১ বলে নাইম শেখ অপরাজিত ৯ রানে।

121259678 660996468176807 4845114151565984730 n.jpg? nc cat=105& nc sid=ae9488& nc eui2=AeH2F9kHpY Rgusp S5uQqOwNEjWXMrN tM0SNZcys3604FPI sI55dIaJLH3UGQfWY8JWyF69gaYFRinxNECYJp& nc ohc=PuHYhCO8h7EAX9hjoHN& nc ht=scontent.fdac6 1

১ মিনিট নীরবতা পালনঃ

৭ মাসের অপেক্ষা শেষে আজ (১১ অক্টোবর) থেকে শুরু হওয়া বিসিবি প্রেসিডেন্টস কাপ ওয়ানডে সিরিজ দিয়ে প্রতিযোগিতামূলক ক্রিকেটে ফিরছে বাংলাদেশের ক্রিকেটাররা। পূর্বনির্ধারিত সময় অনুসারে দুপুর ১ টা ২০ মিনিটে টুর্নামেন্টের উদ্বোধন করেন বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন। তার আগে করোনায় প্রাণ হারানোদের স্মরণে এক মিনিট নীরবতা পালন করে নাজমুল একাদশ ও মাহমুদউল্লাহ একাদশের ক্রিকেটার, গ্রাউন্ডসম্যান ও বিসিবি কর্মকর্তারা। এরপর দুই দলের অধিনায়ক বেলুন উড়িয়ে টুর্নামেন্টের যাত্রা শুরু করেন।

খেলছেন যারাঃ

বিসিবি প্রেসিডেন্টস কাপের নিয়ম অনুযায়ী (প্লেয়িং কন্ডিশন) এক ম্যাচে প্রতি দলে ১২ জন ক্রিকেটার থাকবে। যদিও মাঠে একসঙ্গে ফিল্ডিং এ নামবে ১১ জন, ব্যাটিং করতে পারবে ১১ জন। উল্লেখ্য, এই টুর্নামেন্টের ম্যাচগুলো লিস্ট-এ ম্যাচের তকমা পাবে না।

মাহমুদউল্লাহ একাদশ- (খেলবেন যে ১২ জন)

মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ (অধিনায়ক), মোহাম্মদ নাইম শেখ, লিটন কুমার দাস, মুমিনুল হক সৌরভ, নুরুল হাসান সোহান (উইকেটরক্ষক), সাব্বির রহমান রুম্মন, ইমরুল কায়েস, এবাদত হোসেন চৌধুরী, মোহাম্মদ রুবেল হোসেন, আবু হায়দার রনি, রাকিবুল হাসান ও আমিনুল ইসলাম বিপ্লব।

নাজমুল একাদশ (খেলবেন যে ১২ জন)-

নাজমুল হোসেন শান্ত (অধিনায়ক), সৌম্য সরকার, মোহাম্মদ সাইফ হাসান, আফিফ হোসেন ধ্রুব, মুশফিকুর রহিম (উইকেটরক্ষক), তৌহিদ হৃদয়, ইরফান শুক্কুর, তাসকিন আহমেদ, আল আমিন হোসেন, মুকিদুল ইসলাম মুগ্ধ, মোহাম্মদ নাইম হাসান ও রিশাদ আহমেদ।

টস আপডেটঃ

মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে টসে জিতেছে নাজমুল একাদশের অধিনায়ক নাজমুল হোসেন শান্ত। টসে জিতে আগে মাহমুদউল্লাহ একাদশকে ব্যাটিংয়ের আমন্ত্রণ জানিয়েছেন তিনি।

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

আরো একবার প্রশ্নবিদ্ধ নারাইনের বোলিং অ্যাকশন

Read Next

চূড়ান্ত হল সালমা-জাহানারার আইপিএল দল

Total
2
Share