মাহমুদউল্লাহ একাদশে চোটের হানা

মাহমুদউল্লাহ একাদশে চোটের হানা
Vinkmag ad

তিন দলীয় টুর্নামেন্ট শুরুর আগেই মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ একাদশের দুই পেসার হাসান মাহমুদ ও মৃত্যুঞ্জয় চৌধুরীকে নিয়ে তৈরি হয়েছে সংশয়। খুব গুরুতর চোট না হলেও ঝুঁকি নিতে চায়না বিসিবি। হাসান মাহমুদের হাঁটুতে করানো হয়েছে স্ক্যান, রিপোর্ট পাওয়ার পরই নেওয়া হবে সিদ্ধান্ত।

তবে আগামী সপ্তাহে মাঠে নামা হচ্ছেনা যুব বিশ্বকাপের মাঝপথে কাঁধের চোট নিয়ে দেশে ফেরা মৃত্যুঞ্জয়ের। সেক্ষেত্রে তিন দলীয় টুর্নামেন্টে বিকল্প হিসেবে অন্তর্ভূক্ত হতে যাচ্ছেন স্ট্যান্ড বাই হিসেবে থাকা বাঁহাতি পেসার আবু হায়দার রনি।

ডানহাতি পেসার হাসান মাহমুদ নিজেদের মধ্যে ভাগ হয়ে টাইগারদের খেলা প্রথম প্রস্তুতি ম্যাচে দুর্দান্ত বোলিং নৈপুণ্য দেখান। অসাধারণ এক ডেলিভারিতে বোল্ড করেন মুশফিকুর রহিমকে। কিন্তু এরপরই হাঁটুতে ব্যথা অনুভব করায় তাকে নিয়ে ঝুঁকি নেয়নি বিসিবির মেডিকেল টিম। গুরুতর কিছু না হলেও বিশ্রামেই রাখা হয় তাকে, খেলানো হয়নি দ্বিতীয় প্রস্তুতি ম্যাচ।

চোটের অবস্থা নিশ্চিত করতে করানো হয়ে স্ক্যান, যার রিপোর্ট আসার কথা আজ। রিপোর্টে খারাপ কিছু না আসলেও তিন দলীয় ওয়ানডে সিরিজের শুরুর দিকে নাও থাকতে পারেন এই পেসার। বিসিবি চিকিৎসক দেবাশীস চৌধুরী অবশ্য সিদ্ধান্তের ব্যাপারটি রিপোর্টের উপর ভিত্তি করেই নিতে চান।

‘ক্রিকেট৯৭’ কে তিনি বলেন, ‘ওর একটা স্ক্যান করানো হয়েছে, আজকেই আমরা রিপোর্ট হাতে পাবো। আর তখনই সিদ্ধান্ত হবে ওর খেলা না খেলার ব্যাপারটা।’

এদিকে যুব বিশ্বকাপের মাঝপথে কাঁধের চোটে দেশে ফেরা মৃত্যুঞ্জয় ধীরে ধীরে সেরে উঠছিলেন। অপেক্ষায় ছিলেন তিন দলীয় ওয়ানডে সিরিজ দিয়েই মাঠের ক্রিকেটে প্রত্যাবর্তনের। তবে এবার তার পিছু নিয়েছে এলবো ইনজুরি (কনুয়ের), অন্তত পরবর্তী সপ্তাহে তাকে মাঠে দেখা যাচ্ছেনা। পরিস্থিতি বিবেচনায় মিস করতে পারেন পুরো সিরিজই।

এ প্রসঙ্গে বিসিবি চিকিৎসক দেবাশীস চৌধুরী যোগ করেন, ‘ওর (মৃত্যুঞ্জয়) নতুন করে একটা এলবো (কনুইয়ের) ইনজুরি হয়েছে। এটার ক্ষেত্রে আসলে সপ্তাহ ধরে ধরে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। তবে এটুকু নিশ্চিত আগামী সপ্তাহ সে মাঠে নামতে পারছেনা।’

এদিকে স্কোয়াডের দুই পেসার নিয়েই যখন সংশয় সেক্ষেত্রে বিকল্প কেউ কি অন্তর্ভূক্ত হচ্ছেন? এমন প্রশ্নে প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদিন নান্নু বলেন, ‘হাসান মাহমুদের চোট গুরুতর কিছু নয়, তাও রিপোর্ট আসলে বুঝা যাবে। আর মৃত্যুঞ্জয়ের জায়গায় আবু হায়দার রনিকে অন্তর্ভূক্ত করা হয়েছে।’

মাহমুদউল্লাহ একাদশ-

মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ (অধিনায়ক), মোহাম্মদ নাইম শেখ, লিটন কুমার দাস, মুমিনুল হক, মাহমুদুল হাসান, নুরুল হাসান সোহান, সাব্বির রহমান, ইমরুল কায়েস, হাসান মাহমুদ, এবাদত হোসেন চৌধুরী, রুবেল হোসেন, মৃত্যুঞ্জয় চৌধুরী নিপুন, মেহেদী হাসান মিরাজ, রাকিবুল হাসান, আমিনুল ইসলাম বিপ্লব।

স্ট্যান্ডবাইঃ আবু হায়দার রনি, সানজামুল ইসলাম ও হাসান মুরাদ।

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

এমসিজিতে ডিন জোন্সের ‘লাস্ট ল্যাপ অব অনার’

Read Next

শীর্ষস্থান পুনরুদ্ধার করলেন মেগ লেনিং

Total
25
Share