মিরপুরে শেষ বিকালে মিঠুন চমক

মিরপুরে শেষ বিকালে মিঠুন চমক
Vinkmag ad

ইনিংসের ৩২ ও তাসকিন আহমেদের করা নবম ওভারের পঞ্চম বলে বাউন্সারকে পুল করতে চেয়েছিলেন ইমরুল কায়েস। কিন্তু ঠিকঠাক টাইমিং না হওয়ায় ক্রিজেই বোলার তাসকিন লুফে নেন ক্যাচ। টাইমিং গড়মিল হলেও সে আক্ষেপের চাইতে ইমরুল যেন বেশি হতাশ হলেন ক্যাচ নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করতে গিয়ে। তার বিদায়ে দল হারায় তৃতীয় উইকেট, যার সবকটিই দারুণ প্রত্যাবর্তনের আভাস দেওয়া তাসকিনের।

ওটিস গিবসন একাদশের বিপক্ষে আজ (৫ অক্টোবর) মিরপুরে শুরু হওয়া দ্বিতীয় দুই দিনের ম্যাচে রায়ান কুক একাদশের পেসাররা বিশেষ করে তাসকিন আহমেদ ছিলেন দুর্দান্ত। দিনের শুরুতেই আগুন ঝরানো বোলিংয়ে পরাস্ত করতে থাকেন গিবসন একাদশের ব্যাটসম্যানদের। পঞ্চম ওভারের চতুর্থ বলেই পান সাফল্যের দেখা আগের ম্যাচের হাফ সেঞ্চুরিয়ান সাইফ হাসান (৭) ফিরেছেন ওয়াইড স্লিপে দাঁড়ানো তাইজুলকে ক্যাচ দিয়ে।

অধিনায়ক নাজমুল হোসেন শান্তও ২ রানের বেশি করতে পারেননি। দ্বিতীয় স্লিপে ইয়াসির আলি রাব্বিকে ক্যাচ দিয়ে তাসকিনের দ্বিতীয় শিকারে পরিণত হন। ৫ ওভারের প্রথম স্পেলেই তাসকিনের শিকার দুই উইকেট। সেখান থেকেই দলের হাল ধরার চেষ্টা মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ ও ইমরুল কায়েসের। তাসকিনের তৃতীয় শিকার হওয়ার আগে ইমরুলের ব্যাট থেকে আসে ৫৯ রান। ৯৩ বলে ৮ চার ১ ছক্কায় দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ব্যক্তিগত রান তারই।

মাহমুদউল্লাহ রিয়াদও দেখা পান ফিফটির। ১১৬ বলে ৫৬ রান করে ফিরতি ক্যাচ দিয়েছেন মোহাম্মদ সাইফউদ্দিনকে। শেষ বিকেলে মোহাম্মদ মিঠুন আগের ম্যাচের মত দুই উইকেট না নিলে দিনটা অনেকটাই পেসারদের আধিপত্য নিয়ে শেষ হত। বৃষ্টি বাঁধায় বেশ কয়েকবারই খেলা বন্ধ হওয়ায় মোট খেলা হয়েছে ৭২ ওভার। তাতে ৮ উইকেট হারিয়ে ওটিস গিবসন একাদশের সংগ্রহ ২৪৮ রান। মাহমুদউল্লাহ-ইমরুলের জোড়া ফিফটি ছাড়া ৪৪ রান এসেছে লিটন দাসের ব্যাট থেকে, সৌম্য সরকার করেছেন ২৬ রান।

২৯ রানে অপরাজিত আছেন মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত ও কোন রান না করা রুবেল হোসেন। মাত্র ৩ ওভার হাত ঘুরিয়ে ১০ রান খরচায় মিঠুনের শিকার দুই উইকেট। ৪২ রান খরচায় ৩ উইকেট নিয়ে দলের সেরা বোলার তাসকিন, একটি করে শিকার সাইফউদ্দিন, আল আমিন হোসেন ও তাইজুল ইসলামের।

সংক্ষিপ্ত স্কোরঃ প্রথম দিন শেষে

ওটিস গিবসন একাদশঃ ২৪৮/৮ (৭২ ওভার), সাইফ ৭, ইমরুল ৫৯, শান্ত ২, মাহমুদউল্লাহ ৫৬, লিটন ৪৪, সৌম্য ২৬, মোসাদ্দেক ২৯*, নাইম ৮, এবাদত ০, রুবেল ০*; তাসকিন ১১-২-৪২-৩, খালেদ ১১-১-৩১-০, তাইজুল ২৬-৪-৭৬-১, সাইফউদ্দিন ১১-১-৪২-১, আল-আমিন ১০-৩-৩৬-১, মিঠুন ৩-১-১০-২।

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

আইপিএল থেকে ছিটকে গেলেন ভুবনেশ্বর ও অমিত মিশ্র

Read Next

‘বোলাররা সহজে রান করতে দেয়নি’

Total
13
Share