মুস্তাফিজকে পরীক্ষার প্রথম ধাপ কাল

মুস্তাফিজকে পরখ করে দেখবেন ডোমিঙ্গো
Vinkmag ad

তিন ফরম্যাটেই উড়ন্ত সূচনা করেছিলেন মুস্তাফিজুর রহমান, তবে সময়ের সাথে সাথে ছন্দ হারিয়েছেন। বিশেষ করে লাল বলে নিয়মিত হওয়ার মত বৈচিত্র তার ভান্ডারে যে খুব একটা নেই সেটা ধরা পড়ে দ্রুতই। ৫ বছরের আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ারে টেস্ট সংখ্যা মাত্র ১৩, সর্বশেষটি খেলেছেন গত বছর মার্চে।

কোচ রাসেল ডোমিঙ্গো দায়িত্ব নেওয়ার পর বেশ খোলামেলাভাবেই জানিয়েছেন টেস্টে টিকে থাকতে মুস্তাফিজের কাজ করার আছে অনেক জায়গায়। তার অংশ হিসেবেই লাল বলের ক্রিকেট থেকে দূরে সরিয়ে রাখার পরিকল্পনাও করেছেন। কিন্তু নতুন পেস বোলিং কোচ ওটিস গিবসনের সাথে মুস্তাফিজের কাজ নতুন করে ভাবাচ্ছে কোচ, নির্বাচকদের।

স্থগিত হওয়া শ্রীলঙ্কা সফরের দলে বেশ ভালোভাবেই ছিলেন বিবেচনায়। যে কারণে তাকে আইপিএল খেলতে যাওয়ার ছাড়পত্রও দেয়নি বিসিবি। শেষ পর্যন্ত শ্রীলঙ্কা সফর স্থগিত হলেও মুস্তাফিজের সামনে উন্নতি প্রমাণের সুযোগ এসেছে। টাইগারদের স্কিল ক্যাম্পের অংশ হিসেবে থাকছে তিনটি প্রস্তুতি ম্যাচ, যার প্রথমটি শুরু হয়েছে আজ (২ অক্টোবর)।

দুইদিনের এই প্রস্তুতি ম্যাচের প্রথম দিন আগে ব্যাট করে ওটিস গিবসন একাদশ, ফলে বল হাতে নেওয়ার সুযোগ হয়নি মুস্তাফিজের। তার দল অল আউট হয়েছে ২৩০ রানে। আগামীকাল (৩ অক্টোবর) নতুনত্ব নিয়ে বল করতে দেখা যাবে মুস্তাফিজকে। তাকে দেখার অপেক্ষায় কোচ রাসেল ডোমিঙ্গোও।

আজ অনলাইন সংবাদ সম্মেলনে ক্রিকেটারদের স্কিল নিয়ে কাজ করা প্রসঙ্গে বলতে গিয়ে ডোমিঙ্গো জানান, ‘আমার মনে হয় ওটিস গিবসন মুস্তাফিজের সাথে কাজ করছে। আমি মনে করি বাঁহাতি ব্যাটসম্যানদের সামলাতে তার একটা আকারে আসতে অনেক সময় লাগবে। আর আগামীকাল (৩ অক্টোবর) সে নতুন বলে বল করবে। সুতরাং আশা করি আমরা এসব (টেকনিক্যাল) কাজ চালিয়ে যাচ্ছে এমন একজনকে দেখতে পাব। আমরা অবশ্যই এরপর দেখবো, আশা করি সে চালিয়ে যাবে।’

এদিকে অন্যদের সাথে আলাদাভাবে টেকনিক্যাল কাজ করার বিষয়ে ডোমিঙ্গো যোগ করেন, ‘উদাহরণস্বরুপ সাদমানের মত একজনের কথা বলি। সে তার স্টান্ট কিছুটা পরিবর্তনের চেষ্টা করছে। সে খুব সোজা এবং ব্যাট নিচে রেখে খেলার চেষ্টা করছে যা ব্যাটকে সুইং করাতে ও বলে হিট করাতে বেশি কার্যকরী। এটা ছোট একটা উদাহরণ। আপনি যদি এক সপ্তাহে একটি ম্যাচ খেলেন তবে এমন পরিবর্তন কঠিন। আপনি যে নির্দিষ্ট বিষয় নিয়ে কাজ করছেন তা কার্যকরী করতে অন্তত কয়েক সপ্তাহ বা এক মাস সময় প্রয়োজন।’

‘সুতরাং এমন কিছু জিনিস রয়েছে যা নিয়ে আপনার টানা কাজ করতে হবে এবং নির্দিষ্ট কিছু বিষয় বেছে নিতে হবে। আর সেসব প্রমাণের চেষ্টা করতে হবে। শান্তর মত একজন যে স্পিন ভালো খেল, এটা ভালো। তার কিছুটা কাজ করার প্রয়োজন আছে। এসব টেকনিক্যাল বিষয়গুলো নিয়ে কাজ করার এটা ভালো সময় এবং আমি খুবই আনন্দিত এখনকার অনুশীলন নিয়ে।’

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

তাসকিনে মুগ্ধ ডোমিঙ্গো পেসারদের গ্রুপ নিয়ে আশাবাদী

Read Next

দুই ফরম্যাটেই শীর্ষে অস্ট্রেলিয়া, ওয়ানডেতে বাংলাদেশের উন্নতি

Total
13
Share