ফ্র্যাঞ্চাইজি মালিক নেমে পড়লেন মাঠে, পরে হলেন নিষিদ্ধ!

ফ্র্যাঞ্চাইজি মালিক নেমে পড়লেন মাঠে, পরে হলেন নিষিদ্ধ!

ফ্র্যাঞ্চাইজি মালিক নিজেই একাদশে নাম লিখিয়ে বিতর্কিত কান্ডের জন্ম দিয়েছেন আফগানিস্তানের ঘরোয়া টি-টোয়েন্টি লিগ শাপাগিজায়। দলের ক্রিকেটার, টিম ম্যানেজমেন্ট ও আয়োজকদের সাথে বাজে ব্যবহার করায় অভিষেকের পরদিনই অবশ্য তাকে নিষিদ্ধ করে আফগানিস্তান ক্রিকেট বোর্ড (এসিবি)।

কাবুল ঈগলসের ৪০ বছর বয়সী মালিক আব্দুল লতিফ আইয়ুবি ১৩ সেপ্টেম্বর স্পিন ঘর টাইগার্সের বিপক্ষে ম্যাচে একাদশে নিজেকে জায়গা দেন। মিডিয়াম পেসে ১ ওভার বল করে ১৬ রান খরচ করেন উদ্ভটভাবে টি-টোয়েন্টি অভিষেক হওয়া আইয়ুবির। ২০ ওভারে ৮ উইকেট হারিয়ে ১৪২ রান তোলে টাইগার্স।

অভিষেক ম্যাচেই অবশ্য জয় পায় তার দল। কিন্তু একদিন পরই নিষিদ্ধ হন কাবুল ঈগলসের মালিক আইয়ুবি। এসিবির দেওয়া নিষেধাজ্ঞা অনুসারে টুর্নামেন্টের বাকি ম্যাচগুলোতে অংশগ্রহণে ছিল বাধা। এসিবির ডিসিপ্লিনারি কোডের ৯ ও ১৮ অনুচ্ছেদ ভঙ্গের দায়ে তাকে সাজা দেয় এসিবি। যা মূলত স্টাফ, ক্রিকেটারের সাথে খারাপ আচরণ ও বাজে ভাষা ব্যবহারের কারণে অভিযুক্ত হিসেবে চিহ্নিত করে।

দলটির নেতৃত্বে ছিলেন ১৮ বছর বয়সী আফগানিস্তানের উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান রহমানউল্লাহ গুরবাজ। টুইটারে কিছু ভক্ততো দলের মালিকের এমন কান্ডের সাথে গুরবাজের সম্পৃক্ততা নিয়েও প্রশ্ন তোলেন। যদিও এবারের আসরের চ্যাম্পিয়ন হয়েছে কাবুল ঈগলস, ফাইনালে মিস-এ-আইনাককে হারিয়েছে তারা।

২০১৩ সালে যাত্রা শুরু করা ঘরোয়া টি-টোয়েন্টি লিগটিতে বর্তমানে উল্লেখযোগ্য সংখ্যায় আফগানিস্তানের আন্তর্জাতিক ক্রিকেটার রয়েছেন। এর আগের আসরগুলোতে ক্যামেরুন দেলপোর্ত, হ্যামিল্টন মাসাকাদজা ও সিকান্দার রাজার মত বিদেশি ক্রিকেটাররা এই লিগের অংশ ছিলেন। এছাড়া হার্শেল গিবস ও অ্যাডাম হলিওকের মত সাবেক ক্রিকেটাররা সাপোর্ট স্টাফ হিসেবে কাজ করেছেন।

৯৭ ডেস্ক

Read Previous

মিসবাহ ও আজহারকে পিসিবির কারণ দর্শানো নোটিশ

Read Next

প্রস্তুতি নিয়ে রেখে অপেক্ষায় বিসিবি

Total
1
Share