শীষ্যদের সঙ্গে কাজ শুরু করেছেন ডোমিঙ্গো-গিবসনরা

শীষ্যদের সঙ্গে কাজ শুরু করেছেন রাসেল ডোমিঙ্গো-গিবসনরা

গত মার্চ মাসে করোনা থাবায় স্থগিত হয় দেশের সবধরণের ক্রিকেট। জুলাইয়ের শেষদিকে ব্যক্তিগত অনুশীলন দিয়ে মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়াম সহ বেশ কয়েকটি ভেন্যুতে ক্রিকেটারদের পদচারণা বাড়তে থাকে। যা বর্তমানে রূপ নিয়েছে গ্রুপ ভিত্তিক অনুশীলনে। ৩-৪ জনের গ্রুপ হয়ে চলছে স্কিল, ফিটনেস নিয়ে ঘাম ঝরানোর কাজ।

বেশ কিছুদিন ধরে চলা এই অনুশীলন পর্বে একটা অপূর্ণতা ঠিকই ছিল। কোন কোচ ছাড়াই মুশফিকুর রহিম, তামিম ইকবাল, মুমিনুল হকরা চালিয়ে গেছেন নিজ উদ্যোগের অনুশীলন। বিসিবির তত্বাবধানে হলেও কেবল ট্রেনার ছাড়া দেশি কোন কোচের সান্নিধ্যও পায়নি তারা। লঙ্কা সফর সামনে রেখে বাংলাদেশে পৌঁছেছেন বেশিরভাগ বিদেশি কোচ।

গত সপ্তাহে বাংলাদেশে এসেছেন প্রধান কোচ রাসেল ডোমিঙ্গো, ফিল্ডিং কোচ রায়ান কুক, পেস বোলিং কোচ ওটিস গিবসন। তারও আগে এসেছেন ফিজিও জুলিয়ান ক্যালেফাতো ও ট্রেনার নিকোলাস ট্রেভর লি। ক্যালেফাতো ও লি’কে ১৪ দিনের কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হলেও সরকারি অনুমতিতে বাকিদের ক্ষেত্রে শিথিল হয় কোয়ারেন্টাইন সময়সীমা।

শ্রীলঙ্কা সফরের লক্ষ্যে ক্রিকেটার ও সাপোর্ট স্টাফদের করানো প্রথম দফার করোনা টেস্টে পজিটিভ হন নিকোলাস লি। ইতোমধ্যে সেরে ওঠা এই ইংলিশম্যান সহ সব বিদেশি কোচিং স্টাফই কাজ শুরু করেছেন আজ (১৪ সেপ্টেম্বর) থেকে। মুমিনুল হক, মুশফিকুর রহিম, তামিম ইকবালদের সকাল থেকেই পরামর্শ ও দিক নির্দেশনা দেন রাসেল ডোমিঙ্গো, রায়ান কুক, নিকোলাস লি, জুলিয়ান ক্যালেফাতোরা। পেসারদের আলাদা করে নজরে রেখেছেন ওটিস গিবসনও।

করোনা পরবর্তী প্রথমবার শের-ই-বাংলার আবহ প্রাণ ফিরে পেয়েছে বললে ভুল হবেনা। মাঠের সবুজ গালিচায় ব্যাটে বলে নিজেদের সর্বোচ্চটুকু নিংড়ে দেওয়ার প্রচেষ্টা তাসকিন আহমেদ, রুবেল হোসেন, তামিম ইকবাল, মুমিনুল হকদের। সেন্টার উইকেটে দীর্ঘক্ষণ ব্যাট করেছেন তামিম, প্রথমদিনেই টেস্ট কাপ্তান মুমিনুলকে বেশ ভালো সঙ্গ দিয়েছেন প্রধান কোচ রাসেল ডোমিঙ্গো।

এদিকে যে লঙ্কা সফর নিয়ে শিষ্যদের সাথে কাজ করতে বিদেশি কোচদের বাংলাদেশে ফিরে আসা সেই সফরই পড়েছে শঙ্কার মুখে। শ্রীলঙ্কা ক্রিকেটের দেওয়া শর্ত মেনে খেলতে যাওয়াটা অসম্ভব বলে বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন যখন ঘোষণা দিচ্ছেন তখনও অনুশীলনে ব্যস্ত ক্রিকেটাররা। যে লক্ষ্যে করোনা চ্যালেঞ্জ মাথায় নিয়ে ফিরে আসা সেই সফর বাতিল হলে কি করবে বিদেশি কোচরা?

এমন প্রশ্নে অবশ্য বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন আজ (১৪ সেপ্টেম্বর) গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন কোচরা থেকে যাবেন। প্রয়োজনে অন্য কোন সিরিজ আয়োজন কিংবা ক্যাম্প চলবে দিয়েছেন এমন আভাসও। টাইগারদের খেলায় ফেরাতে বদ্ধপরিকর বিসিবি সভাপতি বলেন, ‘এখন কোচিং স্টাফরা এসেছেন তারা থেকে যাবেন। ছেলেরা খেলার বাইরে অনেকদিন, ওদের আমরা খেলায় নিয়ে আসবো।’

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

এইচপি ক্যাম্প নিয়ে বিসিবির নতুন ভাবনা

Read Next

শোয়েব আখতারের প্রধান নির্বাচক হওয়া প্রসঙ্গে পিসিবির প্রতিক্রিয়া

Total
5
Share