হারানো সময় পুষিয়ে নিতে প্রস্তুত স্যাম বিলিংস

হারানো সময় পুষিয়ে নিতে প্রস্তুত স্যাম বিলিংস

অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে প্রথম ওয়ানডেতে বিফলে যায় স্যাম বিলিংসের দুর্দান্ত শতক। তবে তিনি আশা করেন এই শতরান ইংল্যান্ড দলে তার জন্য সৌভাগ্য বয়ে আনবে। গত বছর বিশকাপ মিস করার পর সেই হারানো সময়কে ভুলে নতুন উদ্দীপনায় জাতীয় দলের জন্য কাজ করতেও প্রস্তুত তিনি।

২৯ বছর বয়সী কেন্টের এই ব্যাটসম্যান ওল্ড ট্রাফোর্ডে অনুষ্ঠিত প্রথম ম্যাচে অজিদের বিপক্ষে ১১৮ রানের দারুন একটি ইনিংস খেললেও সতীর্থদের ব্যর্থতায় ১৯ রানের পরাজয় বরণ করতে হয় ইংল্যান্ডকে। দ্বিতীয় ম্যাচে অবশ্য বিলিংস আউট হয়েছেন ৮ রান করে।

সাদা বলের ক্রিকেটে ইংল্যান্ডের শক্তিমত্তার ভিত্তিতে দলে নিয়মিত সুযোগ না পাওয়া বিলিংস গত ৫ বছরে মাত্র ১৯টি ওয়ানডে খেলেন, তন্মধে এটিই (১ম ওয়ানডেতে) ছিল তার প্রথম শতরান।

 

View this post on Instagram

 

#ENGvAUS #Cricket

A post shared by cricket97 (@cricket97bd) on

যদিও গত বছর অনুষ্ঠিত বিশ্বকাপে ইংল্যান্ড দলে জায়গাও করে নিয়েছিলেন। তবে ইনজুরির জন্য তিনি পরবর্তীতে বিশ্বকাপ থেকে ছিটকে যান। তার পরিবর্তে জেমস ভিন্স দলে সুযোগ পান।

দুটি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের অভিজ্ঞতা এবং সামনের ২০২৩ বিশ্বকাপের শক্ত ব্যাটিং লাইনআপের বিলিংস দলের নিয়মিত হওয়ার ব্যাপারে আত্নবিশ্বাসী।এমনকি আন্তর্জাতিক ট্রফি জয়ের ব্যাপারেও বেশ আগ্রহী তিনি।

‘গত বছরের ইনজুরি আমার জন্য খুব খারাপ সময় ছিল’, গত বছরের বিশ্বকাপে না খেলা এবং বর্তমানে দলের অভিজ্ঞতা নিয়ে শনিবার এক সংবাদ সম্মেলনে বিলিংস বলেন।

‘সামনে আরও তিনটি বিশ্বকাপ আছে এবং আমি অংশগ্রহণ করতে উন্মুখ।’

অস্ট্রেলিয়ার তিন শক্তিশালী পেসার মিচেল স্টার্ক, জশ হ্যাজেলউড ও মিচেল স্টার্ক এবং একমাত্র বিশেষজ্ঞ স্পিনার অ্যাডাম জ্যাম্পাকে খুব বেশি আতঙ্কজনক মনে করেন না বিলিংস। খুব স্বাচ্ছন্দ্যেই প্রথম ওয়ানডেতে তাদের বিপক্ষে খেলেন। এক পর্যায়ে ইংল্যান্ড ৫৪ রানে চার উইকেট হারিয়ে বসে। তবে বিলিংসের শতরানের কল্যাণে ২৯৫ রানের টার্গেটে খেলতে নেমে ২৭৫ রান পর্যন্ত পৌঁছায় ইংল্যান্ড।

ক্রিজে থিতু হতে প্রথম ১১ রান করতে গিয়ে ৩২ বল পর্যন্ত মোকাবেলা করবেন বিলিংস। এরপর সুন্দর টেকনিক ও দলে ব্যাটিংয়ের সুযোগের সদ্ব্যবহার করে ১৪টি চার ও ২টি ছক্কার সহায়তায় ১১০ বলে ১১৮ রান করেন বিলিংস।
ক্রিজে এসে উইকেট বিলিয়ে না দিয়ে কার্যকরী ইনিংসের জন্য শেষ ওভার পর্যন্ত লড়াই চালিয়ে যান বিলিংস।

‘প্রথম দিকে বড় ইনিংস খেলা নিয়ে আমি কিছুটা ভীতসন্ত্রস্ত ছিলাম। তবে সময়ের সাথে মানিয়ে নিয়ে আমি রান করেছি এবং বড় স্কোর গড়তে সমর্থ হয়েছি। আপনিও নিজেও জানেন না কখন সুযোগ আসবে। তবে আমি নিজের প্রতি দায়বদ্ধ ছিলাম বলেই শুক্রবার ব্যাটিংয়ে সফল হয়েছি।’

‘যেকোন ধরণের পরিস্থিতি মোকাবেলায় আমি এখন মানসিকভাবেও প্রস্তুত। অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ম্যাচে আপনারা কিছুটা হলেও আমার মধ্যে পার্থক্য খুঁজে পেয়েছেন।’

বেন স্টোকসের অনুপস্থিতিতে দলে সুযোগ পাওয়া বিলিংস দলের যেকোন পজিশনে খেলতেও প্রস্তুত আছেন, ‘বেন স্টোকস এখানে নেই। আমি মনে করি না যতই রান করি কেন, আমি এ জায়গা ধরে রাখতে পারবো।’

‘ফর্ম এবং ইনজুরি- গত বছর আমার জন্য বেশ কঠিন ছিল। যতক্ষণ আপনি নিজের মধ্যে সঠিক অবস্থান খুঁজে না পান, আপনাকে চেষ্টা করে যেতে হবে। আপনি আত্নবিশ্বাসী হোন, আপনি পারবেন।’

৯৭ ডেস্ক

Read Previous

আরব আমিরাতের দুই ক্রিকেটারকে নিষিদ্ধ করল আইসিসি

Read Next

আইপিএলে খেলার সুযোগ দিতে ভারতকে অনুরোধ করবে না পাকিস্তান

Total
4
Share