অবসর ভেঙে ফিরছেন যুবরাজ সিং

যুবরাজ সিং

ভারতীয় তারকা ক্রিকেটার যুবরাজ সিং অবসর ভেঙে আবারও রাজ্য দলের হয়ে খেলতে যাচ্ছেন। পাঞ্জাবের হয়ে অন্তত টি-টোয়েন্টিতে তাকে ব্যাট হাতে দেখা যাচ্ছে অনেকটা নিশ্চিত। ফিরে আসার পেছনের কারণও অবশ্য খোলাসা করেছেন এই তারকা ব্যাটসম্যান।

বেশ কিছুদিন ধরে পাঞ্জাবের তরুণ ক্রিকেটারদের নানা ভাবে পরামর্শ দিয়ে আসছেন গতবছর অবসরে যাওয়া যুবরাজ। যাদের মধ্যে শুবমান গিল, আনমলপ্রীত সিং, অভিষেক শর্মা ও হারপ্রীত ব্রার এর মত পাঞ্জাব ভিত্তিক প্রতিভাবান ক্রিকেটাররা রয়েছেন। আর ঐ সময় থেকেই পাঞ্জাব ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশনের (পিসিএ) সেক্রেটারি পুনেট বালি যুবরাজকে অবসর ভেঙে ফিরে আসার প্রস্তাব দিতে থাকেন।

তাকে খেলোয়াড় ও পরামর্শক ভূমিকায় পেতে চায় পিসিএ। শুরুতে পুনেট বালির প্রস্তাবে রাজি হবেন কীনা দ্বিধায় থাকলেও অনেক ভেবে চিন্তে ফিরে আসার সিদ্ধান্তই নিচ্ছেন বাঁহাতি এই ব্যাটসম্যান।

ক্রিকেট ওয়েবসাইট ক্রিকবাজকে যুবরাজ বলেন, ‘আমি ঐ তরুণদের সাথে কাটানো সময়টা উপভোগ করেছি এবং খেলার বিভিন্ন দিক নিয়ে তাদের সাথে কথা বলেছি।’

‘আমি বুঝতে পারছিলাম যে আমি যেসব বিষয় নিয়ে কথা বলেছি তা তারা ধরতে পারছে। আরও কিছু বিষয় দেখানোর জন্য আমাকে নেটেও যেতে হয়েছে। আমি আশ্চর্য হয়েছি অনেকদিন ব্যাট না ধরা সত্বেও যেভাবে শট খেলেছি তা দেখে। আমি দুই মাস প্রশিক্ষণও দিয়েছিলাম। এরপর অফ সিজন ক্যাম্পে ব্যাটিং অনুশীলন শুরু করি। কিছু অনুশীলন ম্যাচে রানও পেয়েছি। পিসিএ সেক্রেটারি পুনেট বালি একটা সেশনের পর আমার কাছে আসেন এবং অবসর ভেঙে ফিরে আসার ব্যাপারটি পুনর্বিবেচনা করতে বলেন।’

বালির যুক্তি ছিল যেহেতু যুবরাজের পরামর্শ পাঞ্জাবের তরুণরা সাদরে গ্রহণ করছে এবং সে নিজেও ব্যাট হাতে খেলার মত অবস্থায় আছে সেহেতু তার ফিরে আসাটা সবার জন্যই মঙ্গলজনক।

৩৮ বছর বয়সী যুবরাজ জানান, ‘প্রথম দিকে আমি নিশ্চিত ছিলাম না প্রস্তাবটি গ্রহণ করবো কীনা। আমি ঘরোয়া ক্রিকেটের ইতি টেনেছিলাম যদিও বিসিসিআইয়ের অনুমতি সাপেক্ষে বিশ্বের অন্যান্য ফ্র্যাঞ্চাইজিভিত্তিক ঘরোয়া টুর্নামেন্টে খেলার ইচ্ছে ছিল।’

‘কিন্তু আমি বালির অনুরোধও উপেক্ষা করতে পারিনা। এটা নিয়ে আমি অনেক ভেবেছি, প্রায় তিন চার সপ্তাহ। আর শেষ পর্যন্ত আমাকে কোন অসচেতনতার সাথে সিদ্ধান্ত নিতে হয়নি। অনুপ্রেরণা হল পাঞ্জাবকে চ্যাম্পিয়নশিপ জেতাতে সহায়তা করা। ভাজ্জি (হরভজন সিং) ও আমি টুর্নামেন্ট জিতেছি কিন্তু দুজনে একসাথে পাঞ্জাবের জন্য এমন কিছু করতে পারিনি। এটিই আমার চূড়ান্ত সিদ্ধান্তের পেছনে অন্যতম কারণ।’

শুবমান গিল, আনমলপ্রীত সিং, অভিষেক শর্মা ও হারপ্রীত ব্রার মত ক্রিকেটারদের সাহায্য করতে পারাটা দুর্দান্ত হবে উল্লেখ করে যুবরাজ আরও যোগ করেন, ‘শুবমান ইতোমধ্যে ভারতের হয়ে খেলছে এবং আমি মনে করি বাকি তিনজনের মধ্যেও প্রচুর সম্ভাবনা রয়েছে। যদি কোনভাবে তাদের ও পাঞ্জাব ক্রিকেটের উন্নতিতে ভূমিকা রাখতে পারি তবে সেটি হবে অসাধারণ ব্যাপার। সর্বোপরি পাঞ্জাবের হয়ে খেলেই আমার আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ারের পথ তৈরি হয়েছিল।’

৯৭ ডেস্ক

Read Previous

কোহলির সঙ্গে তুলনা প্রসঙ্গে মালানের ভাষ্য

Read Next

অনেক আইডলের ভিড়ে ওয়াসিম যেকারণে বোল্টের কাছে আলাদা

Total
47
Share