ক্রিকেটারদের জন্য গ্রিন জোন, থাকবে অ্যাক্রিডিটেশন কার্ড

মুমিনুল হক
Vinkmag ad

ক্রিকেটারদের ব্যক্তিগত অনুশীলনে সঙ্গ দেওয়া কয়েকজন স্টাফের করোনা পজিটিভ হওয়ার পরই সতর্ক অবস্থানে বিসিবি। শ্রীলঙ্কা সফরের আগে তিনবার করোনা টেস্ট করানোর কথা রয়েছে ক্রিকেটারদের তবে তার আগেই বাড়তি সতর্কতার লক্ষ্যে গতকাল থেকে শুরু হল আরও এক দফার টেস্ট। মূলত মিরপুরে অনুশীলন করা ক্রিকেটারদের মধ্যে কেউ পজিটিভ হলে যেন চিকিৎসার পর্যাপ্ত সময় পাওয়া যায়।

এবার সতর্কতার অংশ হিসেবে ক্রিকেটারদের অনুশীলন অঞ্চলগুলোকে বিভিন্ন জোনে ভাগ করতে চায় বিসিবি। মাঠ, ড্রেসিং রুম ও জিমনেশিয়ামকে সীমিত সংখ্যক ক্রিকেটার ও সাপোর্ট স্টাফদের জন্য গ্রিন জোন হিসেবে বিবেচিত হবে।

ক্রিকেট ওয়েবসাইট ‘ক্রিকবাজকে’ বিসিবি চিকিৎসক দেবাশীস চৌধুরী এ প্রসঙ্গে বলেন, ‘আমরা পরিকল্পনা করছি গ্রিন জোনের সদস্যদের অ্যাক্রিডিটেশন কার্ড দিব যেহেতু এটা সীমিত সংখ্যক ক্রিকেটার ও সাপোর্ট স্টফদের জন্য হবে। মাঠ, ড্রেসিং রুম ও জিমনেশিয়াম গ্রিন জোনের অংশ হিসেবে নিরাপদ বলে বিবেচিত হবে।’

এদিকে ১৮ সেপ্টেম্বর থেকে শুরু হবে লঙ্কা সফর উদ্দেশ্য করে তিন দফার করোনা টেস্ট। মূলত শ্রীলঙ্কা সফরের স্কোয়াডে থাকা ক্রিকেটারদেরই কেবল তখন করোনা টেস্ট করা হবে। করোনা টেস্ট শেষে সপ্তাহখানেকের কন্ডিশনিং ক্যাম্পের পুরো সময়টা হোটেলে থাকবে নির্বাচিত ক্রিকেটাররা। অনেকটা জৈব সুরক্ষিত পরিবেশেই কাটবে তামিম ইকবাল, মুশফিকুর রহিমদের।

এ প্রসঙ্গে দেবাশীস চৌধুরী যোগ করেন, ‘দল নির্বাচনের আগে ক্রিকেটাররা গ্রিন জোনে বাসা থেকেই আসা যাওয়া করতে পারবে। তবে একবার দল নির্বাচন হয়ে গেলে এটা বাধাগ্রস্থ হবে, আবাসিক ক্যাম্প শুরু হবে। তখন জৈব সুরক্ষিত পরিবেশে একবার ঢুকে পড়লে তাদের আর বের হতে দেওয়া হবেনা।’

৯৭ ডেস্ক

Read Previous

ফিক্সিংয়ের প্রস্তাব দিয়ে নিষিদ্ধ আফগানিস্তান কোচ

Read Next

টিকেআরের ‘১১’, নাকি জ্যামাইকার ‘৪’?

Total
5
Share