হোল্ডারের নৈপুণ্যে বার্বাডোসের স্বান্তনার জয়

জেসন হোল্ডার

অধিনায়ক জেসন হোল্ডারের কৃতিত্বে জামাইকা তালাওয়াসের বিপক্ষে ৭ উইকেটের দারুণ জয় পেয়েছে বার্বাডোস ট্রাইডেন্টস। তবে এ জয়ের ফলেও কার্যত কোন লাভ হয়নি টুর্নামেন্ট থেকে আগেই বাদ পড়ে যাওয়া হোল্ডারের দল।

ক্যারিবিয়ান প্রিমিয়ার লিগের ২৮ তম ম্যাচে টসে জিতে প্রথমে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন জামাইকা তালাওয়াসের অধিনায়ক রভম্যান পাওয়েল। জার্মেইন ব্ল্যাকউড এবং গ্লেন ফিলিপস উদ্বোধনী জুটিতে ৫১ রান তোলেন।

ব্যক্তিগত ১৭ রানে জশুয়া বিশপের কাছে পরাস্ত হন গ্লেন ফিলিপস। দলীয় ৮৯ রানে আসিফ আলিও সাজঘরে ফিরে যান। তবে অন্য প্রান্তে বেশ সাবলীল ছিলেন ওয়েস্ট ইন্ডিজ টেস্ট দলের নির্ভরযোগ্য ব্যাটসম্যান জার্মেইন ব্ল্যাকউড। দলীয় ১২৬ রানের মাথায় ব্যক্তিগত ৭৪ রানের কার্যকরী ইনিংস খেলে হোল্ডারের কাছে পরাভূত হন তিনি। তার ইনিংসে ছিল ৫টি চার ও ৪টি ছয়ের মার।

ব্ল্যাকউডের বিদায়ের পরও আন্দ্রে রাসেলের বিধ্বংসী ইনিংসে ২০ ওভার শেষে ১৬১ রানের চ্যালেঞ্জিং স্কোর ছুড়ে দেয় জামাইকা তালাওয়াস। ২৮ বলে ৫৪ রানের রাসেলের ইনিংসে ছিল ৪টি চার ও ৫টি ছয়ের মার। বার্বাডোসের পক্ষে বিশপ, হোল্ডার, রাশিদ খান, ওয়ালশ প্রত্যেকেই একটি করে উইকেট পান।

জবাবে বার্বাডোস ব্যাটিংয়ে নেমে শুরুতেই জনসন চার্লসের উইকেট হারিয়ে ধাক্কা খায়। তিনে খেলতে নামা শামার ব্রুকসও বেশিক্ষণ ক্রিজে থাকতে পারেননি। ১৭ রানে দুই উইকেট হারানোর পর দলের হাল ধরেন জোনাথন কার্টার এবং জেসন হোল্ডার। এই দুইজন ৩য় উইকেট জুটিতে ৯০ রান তোলে জয়ের প্রধান ভিত্তি গড়ে তোলেন।

দলীয় ১০৭ রানের মাথায় ব্যক্তিগত ৬৯ রানে হোল্ডার বিদায়ের পর বাকি পথটুকু নির্বিঘ্নে সারেন কার্টার ও পাঁচে নামা মিচেল স্যান্টনার। হোল্ডারের ইনিংসে ছিল ৯টি চার ও ৩টি ছয়ের মার। কার্টার ৪২ রানে এবং স্যান্টনার ৩৫ রানে অপরাজিত থাকেন। ম্যান অব দ্য নির্বাচিত হন জেসন হোল্ডার।

এ জয়ের ফলে বার্বাডোস ট্রাইডেন্টসের আক্ষরিক অর্থে কোন লাভ হয়নি। অন্যদিকে পরাজিত হলেও কোন ক্ষতি হয়নি আগেই সেমিফাইনালে চলে যাওয়া জামাইকা তালাওয়াস।

সংক্ষিপ্ত স্কোরঃ

জ্যামাইকা তালাওয়াস ১৬১/৪ (২০), ব্ল্যাকউড ৭৪, ফিলিপস ১৭, আসিফ ৫, রাসেল ৫৪, পাওয়েল ৫*, ব্র্যাথওয়েট ০*; বিশপ ৪-০-৩০-১, হোল্ডার ৪-০-৮-১, রাশিদ ৪-০-৩২-১, ওয়ালশ ৪-০-৩৪-১

বার্বাডোস ট্রাইডেন্টস ১৬৫/৩ (১৮.২), চার্লস ০, কার্টার ৪২*, ব্রুকস ৫, হোল্ডার ৬৯, স্যান্টনার ৩৫*; থমাস ৪-০-৩৬-১, ম্যাকসুইন ৩-০-৩৯-১, লামিচানে ৪-০-২৬-১

ফলাফলঃ বার্বাডোস ট্রাইডেন্টস ৭ উইকেটে জয়ী

ম্যাচসেরাঃ জেসন হোল্ডার (বার্বাডোস ট্রাইডেন্টস)।

৯৭ ডেস্ক

Read Previous

বাংলাদেশের বিপক্ষে শ্রীলঙ্কার প্রাথমিক টেস্ট স্কোয়াড

Read Next

পেসারদের দিয়ে বাংলাদেশকে ঘায়েল করতে চায় শ্রীলঙ্কা

Total
3
Share