খাজার হতাশা কেটেছে ল্যাঙ্গারের সাথে আলাপে

জাস্টিন ল্যাঙ্গার উসমান খাজা

গতবছর ওয়ানডেতে ৪৯.৩১ গড়ে ১০৮৫ রান করেও অস্ট্রেলিয়ান বাঁহাতি ব্যাটসম্যান উসমান খাজা চলতি বছর সুযোগই পেলেন না দলে। দল থেকে বাদ পড়ার পাশাপাশি বোর্ডের চুক্তি থেকেও নাম কাটা যায় এই ব্যাটসম্যানের। গতবছর সর্বশেষ জাতীয় দলের জার্সি গায়ে চাপানো খাজা হতাশা কাটিয়ে আবারও ক্রিকেটে মনযোগ দিয়েছেন।

আর সে ক্ষেত্রে সাহায্য করেছেন অস্ট্রেলিয়ার প্রধান কোচ জাস্টিন ল্যাঙ্গার, তার সাথে আলাপেই কেটেছে হতাশা। গত বছর অ্যাশেজের পর বাদ পড়েন, ছিলেন না ঘরের মাঠে পাকিস্তান ও নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে টেস্ট সিরিজেও। সব মিলিয়ে জাতীয় দলের বাইরের সময়টা এক বছরের বেশি।

সমান তিনটি করে ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি ম্যাচের সিরিজ খেলতে বর্তমানে অস্ট্রেলিয়া দল অবস্থান করছে ইংল্যান্ডে। করোনার কারণে ২১ জনের বড়সড় বহর নিয়েই ইংলিশদের বিপক্ষে সিরিজ খেলতে যায় অজিরা। সেখানেও জায়গা হয়নি ৩৩ বছর বয়সী উসমান খাজার।

‘ক্রিকেটডটকমডটএইউ’ কে বাঁহাতি এই ব্যাটসম্যান বলেন, ‘এখানে একটি বড় স্কোয়াড ছিল, তাই কিছুটা হতাশা কাজ করেছে। তবে আমি বলতে চাই যে আমি এতবার বাদ পড়েছি এবং দলের বাইরে গিয়েছি যে আমি এসব মোকাবেলা করতে শিখে গেছি। ১০ বছর আগের চেয়ে এখন অনেক ভালো।’

‘আমি যখন প্রথম ভারত সফরের (চলতি বছরের শুরুতে) দল থেকে বাদ পড়েছি তখন অনেক বেশি হতাশ হয়েছি। কারণ আমার মনে হয়েছিল যে দলে আমার জায়গাটা প্রাপ্য। ঐ সময় আমি ৫০ গড়ে ওয়ানডেতে ব্যাট করছিলাম। বিশ্বের শীর্ষ তিন-চার সর্বোচ্চ রান সংগ্রহকারীর মধ্যে ছিলাম। আমি বুঝতে পারিনি বাদ পড়ার বিষয়টি। আমি খুবই হতাশ হয়েছি, সত্যি অনেক রাগও হয়েছে।’

৪৪ ম্যাচের টেস্ট ক্যারিয়ারে ৪০.৬৬ গড়ে রান করেছেন ২৮৮৭, ওয়ানডেতে ৪০ ম্যাচে ৪২ গড়ে ১৫৫৪ রান। ২০১৩ সালে ওয়ানডে অভিষেকের পর গতবছরই খেলেছেন সর্বোচ্চ ২২ ম্যাচ। ২২ ম্যাচে দুই সেঞ্চুরির সাথে ৮ ফিফটিতে ৪৯.৩২ গড়ে ১০৮৫ রান এসেছে তার ব্যাট থেকে।

প্রধান কোচ জাস্টিন ল্যাঙ্গারের সাথে খোলামেলা আলাপের পর হতাশা কেটেছে উল্লেখ করে উসমান খাজা বলেন, ‘ভাগ্যক্রমে ঐ ঘটনার (বাদ পড়া) তিন-চার সপ্তাহ পর জাস্টিন ল্যাঙ্গারের সাথে কথা বললাম আর সেটি একদমই খোলামেলা। এটি সত্যি অসাধারণ আলোচনা ছিল এবং এরপরই আমি অনেকটা ভালো অনুভব করা শুরু করি। আমি আমার ক্রিকেটে পূর্ণ মনযোগ দিতে থাকি।’

‘আপনি নির্বাচককে জিজ্ঞাসা করতেই পারেন বাদ পড়ার সুনির্দিষ্ট কারণ সম্পর্কে। কিন্তু এ ক্ষেত্রে বিষয়টা তেমন নয়। আমি একজন টপ অর্ডার ব্যাটসম্যান। আমার চেয়ে ভালো স্টিভ স্মিথ, ডেভিড ওয়ার্নার ও অধিনায়ক অ্যারন ফিঞ্চ বর্তমানে দলে আছে। এই সফরে (ইংল্যান্ডে) আমি হয়তো দলে অতিরিক্ত একজন হিসেবে থাকতে পারতাম কিন্তু সেটা হয়নি। আর এটা কোন সমস্যা না।’

৯৭ ডেস্ক

Read Previous

ইংল্যান্ডে ওয়ার্নারের যে অভিজ্ঞতা এবারই প্রথম

Read Next

অবসরের ঘোষণা দিলেন ইয়ান বেল

Total
20
Share