শ্রীলঙ্কা সফরেই সাকিবের প্রত্যাবর্তন, ফিটনেসের দিকে তাকিয়ে ডোমিঙ্গো

519A0660
Vinkmag ad

করোনা পরবর্তী টাইগারদের প্রথম আন্তর্জাতিক সিরিজেই সাকিব আল হাসানের প্রত্যাবর্তন হতে পারে বলছেন প্রধান কোচ রাসেল ডোমিঙ্গো। শ্রীলঙ্কান ক্রিকেট বোর্ডের প্রধান নির্বাহী মোহন ডি সিলভা এক বিবৃতিতে জানাব ২৪ সেপ্টেম্বর লঙ্কা সফরের উদ্দেশ্যে দেশ ছাড়বে বাংলাদেশ। এখনো সূচি নির্ধারিত না হলেও তিন ম্যাচ টেস্ট সিরিজটির সাথে যোগ হতে পারে তিনটি টি-টোয়েন্টি ম্যাচও।

খেলার মত ফিটনেস থাকলে সাকিবের ফেরা হবে টি-টোয়েন্টি সিরিজ দিয়েই। কারণ ২৯ অক্টোবর সাকিবের নিষেধাজ্ঞার মেয়াদ শেষ হওয়ার আগেই শেষ হতে পারে টেস্ট সিরিজটি।

আগামী মাসে বাংলাদেশ ক্রীড়া শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে (বিকেএসপি) অনুশীলন শুরু করার কথা রয়েছে টাইগার অলরাউন্ডারের। যেখানে তাকে সাহায্য করতে প্রস্তুত তার পুরোনো এই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের স্বনামধন্য কোচরা। বিকেএসপির ট্রেনিংয়ের পরই সাকিবের ফিটনেস সম্পর্কে স্পষ্ট ধারণা পাওয়া যাবে।

তবে টাইগারদের প্রধান কোচ রাসেল ডোমিঙ্গো মনে করেন করোনা প্রভাবে ৬ মাসের মত গৃহবন্দী সময় কাটানো বাকি ক্রিকেটারদের সাথে এক বছরের নিষেধাজ্ঞায় থাকা সাকিবের পার্থক্য থাকবেনা।

ইএসপিএনক্রিকইনফোকে ডোমিঙ্গো বলেন, ‘আমি মনে করি সাকিব এক বছরের জন্য বাইরে থাকা মানে এই না যে ৬-৭ মাস (করোনা প্রভাবে) বাইরে থাকা বাকি ক্রিকেটারদের সাথে খুব বেশি পার্থক্য হবে (ফিটনেস)। আমরা আশা করি সব খেলোয়াড় ফিট রয়েছে। অবশ্যই, ফিটনেস প্রমাণে একটা নির্দিষ্ট মানদন্ড রয়েছে।’

‘সাকিব ও অন্যান্যদের জন্য আমাদের কিছু ম্যাচ সময় আয়োজন করতে হবে। কোন ধরণের ক্রিকেট ছাড়া আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে প্রবেশ করা কঠিন। আমি মনে করি তার জন্য আমাদের কিছু ম্যাচ খেলার সুযোগ খুঁজে বের করা উচিৎ। সে বিশ্বমানের খেলোয়াড় এবং আমি নিশ্চিত সে খুব শীঘ্রয়ই ফিরবে, তবে ফিটনেস একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়।’

সাকিবকে ম্যাচ খেলার সুযোগ করে দিতে নির্বাচকদের সাথে আলোচনা করবেন টাইগারদের প্রধান কোচ। ২৯ অক্টোবরের আগে সাকিব কেবলই আনঅফিসিয়াল ম্যাচ খেলতে পারবেন। সেক্ষত্রে নিজেদের মধ্যে ভাগ হয়ে খেলা ম্যাচগুলোতে আইসিসির নিষেধাজ্ঞা বহাল কীনা সেটিও পরিষ্কার হতে চান দক্ষিণ আফ্রিকান এই কোচ।

ডোমিঙ্গো যোগ করেন, ‘এটি এমন একটি বিষয় যা আমাদের নির্বাচকদের সাথে আলাপ করতে হবে। আমি মনে করিনা যে সাকিব ২৯ অক্টোবরের আগে কোন অফিসিয়াল ম্যাচে অংশ নিতে পারবে। তাই তার আনঅফিসিয়াল ম্যাচগুলোতে অংশ নেওয়ার সুযোগ আছে। আন্তঃ স্কোয়াডের ম্যাচগুলো হতে পারে আনঅফিসিয়াল। তবে তাকে খেলানোর আগে আমাদের এ ব্যাপারেও পরিষ্কার হয়ে নিতে হবে।’

‘তাকে নিশ্চিত করতে হবে যে সে ফিট আছে এবং সে বল মারতে শুরু করবেন ও কিছু বোলিং করবেন। যখন শ্রীলঙ্কা সফরটি নিশ্চিত হয়ে যাবে তখনই আমরা সিদ্ধান্তের কাছাকাছি চলে যাবো। এখনো কিছু সময় বাকি আছে, মাত্র আগস্ট মাস। তার নিষেধাজ্ঞা শেষ হতে আরও আড়াই মাস, যখন সে ফিট থাকবে আমরা আমাদের করণীয়টা করবো।’

৯৭ ডেস্ক

Read Previous

স্টুয়ার্ট ব্রডকে শাস্তি দিলেন ম্যাচ রেফারি বাবা

Read Next

‘ডিপিএল পুনরায় চালু করা অসম্ভব’

Total
56
Share