বয়স জালিয়াতি রোধে কঠোর হচ্ছে বিসিসিআই

1541074704922
Vinkmag ad

ক্রিকেটারদের বয়স নিয়ে লুকোচুরি নতুন কিছু নয়। তবে এবার বিষয়টিকে গুরুত্বের সাথে নিচ্ছে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড। বিসিসিআই সম্প্রতি ঘোষণা দিয়েছে বয়স ভিত্তিকে কোন খেলোয়াড় বয়স জালিয়াতি করে থাকলে তা যেন স্বেচ্ছায় স্বীকার করে নেয়। স্বেচ্ছায় স্বীকার করে নিলে ক্ষমা করে দেওয়া হবে, তবে এরপরও কারও বিরুদ্ধে বয়স জালিয়াতির প্রমান পাওয়া গেলেই আরোপ হবে নিষেধাজ্ঞা।

ন্যাশনাল ক্রিকেট একাডেমি (এনসিএ) প্রধান রাহুল দ্রাবিড় এক বিবৃতিতে বলেন, ‘বয়স জালিয়াতি একটা গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। খেলাধুলার স্বাভাবিক ধরণের জন্যও ক্ষতিকর। বয়স জালিয়াতির কারণে যেসব তরুণ ক্রিকেটার নির্দিষ্ট বয়সের গ্রুপে খেলবে বলে ধরে নেওয়া হয় তারা সেটা পারেনা।’

‘এসব রোধ করার জন্য বিসিসিআই কঠোর পদক্ষেপ নিতে যাচ্ছে। এক্ষেত্রে ক্রিকেটারদের এগিয়ে আসা (স্বীকারোক্তি) ও বোর্ডের নির্দেশনা মেনে চলার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।’

ইতোমধ্যে ২০২০-২১ মৌসুমে বোর্ডের বয়সভিত্তিক টুর্নামেন্টে অংশ নিবে এমন ক্রিকেটারদের জন্য  স্বেচ্ছায় স্বীকারোক্তি প্রকল্পও চালু করেছে বিসিসিআই। এই প্রকল্পের অধীনে যেসব খেলোয়াড় স্বেচ্ছায় স্বীকার করবে তারা অতীতে ভুয়া জন্ম নিবন্ধন জমা দিয়েছে তাদের নিষিদ্ধ করা হবেনা। বরং প্রকৃত জন্ম তারিখ অনুসারে নিবন্ধন করে সংশ্লিষ্ট বয়সভিত্তিক গ্রুপে খেলতে দেওয়া হবে।

চলতি বছর ১৫ সেপ্টেম্বরের আগে বিসিসিআই কর্তৃক বয়স যাচাই সম্পন্ন হয়েছে এমন দলিল পত্র সম্বলিত চিঠি বা ই মেইল পাঠাতে হবে। তবে সেক্ষেত্রে যদি কোন দলিল পত্র ভুয়া বলে প্রমাণিত হয় নিষিদ্ধ করা হবে দুই বছরের জন্য। নিষেধাজ্ঞা শেষের পরেও বিসিসিআই ও রাজ্য ইউনিটের অধীনে কোন বয়সভিত্তিক টুর্নামেন্টে অংশ নিতে পারবেনা তারা।

বিসিসিআই সভাপতি সৌরভ গাঙ্গুলি বলেন, ‘বয়সভিত্তিকে আমরা সুষম প্রতিযোগিতামূলক ক্ষেত্র সরবরাহে সবসময় প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। বিসিসিআই বয়সের জালিয়াতি প্রতিরোধে পদক্ষেপ নিচ্ছে। আর সেটি আসন্ন ঘরোয়া মৌসুম থেকেই শুরু হবে। যারা স্বেচ্ছায় তাদের অপকর্মের (বয়স লুকানো) ব্যাপার খোলাসা না করবে তাদের কঠোর শাস্তির আওতায় আনা হবে। দুই বছরের জন্য নিষিদ্ধ করা হবে।’

এর আগেও বিসিসিআই এমন উদ্যোগ হাতে নেয়। যেখানে বয়স নিবন্ধনের জন্য ২৪ ঘন্টার হেল্পলাইনও খোলা হয়েছিল। ভারতীয় গণমাধ্যমের প্রতিবেদন অনুসারে বিসিসিআই গতবছর  ১০১ জন খেলোয়াড়কে নিষিদ্ধ করে। বিভিন্ন রাজ্যের ৭৫ জন বয়স জালিয়াতি ও ২৬ জন ভুয়া দলিলপত্র প্রদানের কারণে শাস্তি পান।

৯৭ ডেস্ক

Read Previous

১০ মাস ধরে বেতন নেই ভারতীয় ক্রিকেটারদের

Read Next

নতুন স্পন্সরের খোঁজে বিসিসিআই

Total
37
Share