আত্ববিশ্বাসই পারে মুশফিকদের ঐক্যবদ্ধ অনুশীলনে ফেরাতে

তামিম ইকবাল মুশফিকুর রহিম
Vinkmag ad

মার্চের মাঝামাঝি সময় থেকে করোনা প্রভাবে থমকে ছিল দেশের সব ধরণের ক্রিকেট। বেশ কয়েকটি দেশ অনুশীলনের সাথে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফেরার পরিকল্পনা সাজাতে শুরু করেছে। ইংল্যান্ডের মাটিতে ইতোমধ্যে চলছে আন্তর্জাতিক টেস্ট সিরিজও। ওয়েস্ট ইন্ডিজের পর আয়ারল্যান্ড ও পাকিস্তানের বিপক্ষেও সিরিজ চূড়ান্ত ইংলিশদের।

এদিকে বার বার ক্রিকেটারদের অনুশীলনে ফেরানোর পরিকল্পনা করেও দেশের করোনা পরিস্থিতি খারাপ হওয়ায় তা বাস্তবায়ন করতে পারেনি বিসিবি। গত সপ্তাহে অবশ্য ব্যক্তিগত অনুশীলনের সুযোগ করে দেওয়া হয়েছে বেশ কয়েকজন ক্রিকেটারকে। দেশের পাঁচ ভেন্যুতে অনুশীলন করেছেন ১৩ জন ক্রিকেটার। মিরপুরে অনুশীলন করেছেন মুশফিকুর রহিম, ইমরুল কায়েস, তাসকিন আহমেদসহ ৬ জন ক্রিকেটার।

প্রথম পর্বের ব্যক্তিগ অনুশীলন শেষ হয়েছে আজ (২৬ জুলাই)। প্রথম পর্বের অনুশীলন শেষে নিয়মিত অনুশীলনের ব্যাপারে আত্মবিশ্বাসী মুশফিকুর রহিম। বাকিরা আত্ববিশ্বাসী হলে ঈদের পর ৫-৭ জনের গ্রুপ হয়েও অনুশীলন সম্ভব বলে জানান মিস্টার ডিপেন্ডেবল।

এক ভিডিও বার্তায় মুশফিক বলেন, ‘বিশ্বের অনেক দেশেই ক্রিকেট ফিরছে, যদিও তুলনা করতে গেলে তাদের সাথে আমাদের প্রেক্ষাপটটা ভিন্ন। তবুও আমি আশাবাদী ঈদের পর যদি পরিস্থিতি আরেকটু উন্নতি হয় আমরা যেন আবার একসাথে একটা দল হয়ে অনুশীলন শুরু করতে পারি।’

‘কিন্তু আমি ৭-৮ দিন যেটা করেছি এটা খুবই ভালো হয়েছে আলহামদুলিল্লাহ। চার মাস ইনডোরে কাজ করা আর বাইরে কাজ করা সম্পূর্ণ আলাদা। চাচ্ছিলাম যে রোদে ও আউটফিল্ডে যেন রানিং টা করা যায়, ফিটনেস ওয়ার্কের সাথে স্কিল ওয়ার্কও। এটা হয়েছে যার জন্য বিসিবিকে ধন্যবাদ।’

ব্যক্তিগত অনুশীলনের অভিজ্ঞতা ঐক্যবদ্ধ অনুশীলনে আশাবাদী করছে এই অভিজ্ঞ ব্যাটসম্যানকে, ‘এটা ব্যক্তিগত ব্যাপার। যদি সবাই আত্মবিশ্বাসী থাকে আমার মনে হয় গ্রুপে পনের-বিশ জন না হলেও দুইজন, চারজন, পাঁচজন বা সাতজন একসাথে অনুশীলন শুরু করতে পারি।’

‘এখানে এত সুন্দর পরিবেশ ও সবকিছু এত পরিষ্কার। আমি মনে করি আমার সাথে ব্যক্তিগত অনুশীলন করা বাকি ৫-৬ জনও একমত হবে। খুবই ভালো একটা পরিবেশ ছিল, আমরা অনুশীলনের সুযোগ পেয়েছি।’

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

দ্বিধায় থাকা মুশফিক আয়োজনে সন্তুষ্ট

Read Next

দুই বছরের জন্য নিষিদ্ধ হলেন কাজী অনিক

Total
3
Share