সাকিবের প্রত্যাবর্তন মিশন শুরু ইংল্যান্ডে

সাকিব আল হাসান
Vinkmag ad

তথ্য গোপনের অভিযোগে এক বছরের নিষেধাজ্ঞা কাটাচ্ছেন বাংলাদেশের পোস্টারবয় সাকিব আল হাসান। নিষেধাজ্ঞার মেয়াদ শেষ হতে চলেছে। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে প্রত্যাবর্তনের সবুজ সংকেত পেতে সাকিব ও সাকিবভক্তদের সামনে আরো ৯৭ দিনের অপেক্ষা।

সবার চাওয়া নিষেধাজ্ঞার মেয়াদ শেষ হবার পরপরই বাংলাদেশের জার্সি গায়ে নেমে পড়বেন সাকিব আল হাসান। তবে তার জন্য নিজেকে প্রস্তুত করতে হবে। ম্যাচ ফিটনেস, স্কিল সব নিয়ে কাজ করতে হবে। যুক্তরাষ্ট্রে পরিবারের সঙ্গে সময় কাটাতে থাকা সাকিব সেই পরিকল্পনা আগেই সেরে রেখেছেন।

পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে আগে থেকেই ইংল্যান্ডের এক কাউন্টি ক্লাবের সঙ্গে যোগাযোগ করেছিলেন সাকিব। সেখানে অনুশীলন করার কথা ছিল তার। সাকিবের সঙ্গে ট্রেনিং ক্যাম্পে কাজ করার কথা সাকলাইন মুশতাকের। এবং বাংলাদেশ থেকে উড়ে যাবার কথা ছিল কোচ সালাহউদ্দিন আহমেদের।

করোনার কারণে সেই পরিকল্পনা এখনো আলোর মুখ না দেখলেও ঈদের পরই ইংল্যান্ডে প্রত্যাবর্তন মিশন শুরু করবেন সাকিব আল হাসান। প্রায় ১০ মাস ক্রিকেট থেকে দূরে থাকা সাকিব মাঠে ফিরতে প্রস্তুত হতে সময় পাচ্ছেন ১২-১৩ সপ্তাহ।

প্রসঙ্গত আইসিসির নিষেধাজ্ঞা পাওয়া সাকিব নিষিদ্ধ থাকাকালীন সময়ে নিজ দেশের ক্রিকেট বোর্ডের কোন সুযোগ সুবিধা নিতে পারবেন না। কোন ধরণের প্রতিযোগিতামূলক ক্রিকেট ম্যাচ বা চ্যারিটি ম্যাচেও অংশ নিতে পারবেন না তিনি। তবে ব্যক্তিগত উদ্যোগে অনুশীলন করতে কোন বাধা নেই তার।

করোনার কারণে গত কয়েক মাস ধরে বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দল কোন আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলেনি। তাই নিষেধাজ্ঞায় থাকা সাকিবকে খুব বেশি সিরিজ মিস করতে হয়নি। ভারতের মাটিতে টি-টোয়েন্টি ও টেস্ট সিরিজ, পাকিস্তানে টি-টোয়েন্টি সিরিজ ও ১ টেস্ট এবং ঘরের মাঠে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে পূর্নাঙ্গ সিরিজের অংশ হতে পারেন নি সাকিব।

শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে স্থগিত হওয়া সিরিজ সেপ্টেম্বর বা অক্টোবরে করার ইচ্ছে বিসিবির। তেমনটা হলে সেই সিরিজও মিস করবেন সাকিব।

নভেম্বর-ডিসেম্বরে বিপিএল আয়োজন করার পরিকল্পনা রয়েছে বিসিবির। সাকিবের তাই বিপিএল দিয়েই মাঠের ক্রিকেটে ফেরার সম্ভাবনা বেশি।

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

‘আমি রোনালদোর মত, তবে মেসিকে পছন্দ করি’

Read Next

উইজডেন ট্রফির নাম বদলে হচ্ছে রিচার্ডস-বোথাম ট্রফি

Total
81
Share