কোয়ারেন্টাইনের মেয়াদ কমানোর আশা গাঙ্গুলির, নাকচ করলো ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া

ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া
Vinkmag ad

বছরের শেষদিকে ভারতের অস্ট্রেলিয়া সফরে ক্রিকেটারদের দুই সপ্তাহ কোয়ারেন্টাইনে থাকা নিয়ে কিছুটা আপত্তি জানিয়েছিলেন বিসিসিআই সভাপতি সৌরভ গাঙ্গুলি । তবে শেষ পর্যন্ত ভিরাট কোহলির নেতৃত্বাধীন দলকে ১৪ দিনই বিচ্ছিন্ন থাকতে হবে বলছে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া। শুধু ভারতীয় ক্রিকেটার নয় আইপিএলে যেসব অজি ক্রিকেটার অংশ নিবেন তারাও দেশে ফিরে ১৪ দিন কোয়ারেন্টাইনে থাকবেন।

বিসিসিআই সভাপতি কোয়ারেন্টাইনের মেয়াদ কমানোর পক্ষে থাকলেও ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া স্পষ্ট জানিয়েছে কোয়ারেন্টাইন হবে দু সপ্তাহেরই। আর এই প্রক্রিয়াটি ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া বেশ কঠোরভাবেই নিয়ন্ত্রণ করবে বলে জানিয়েছে অন্তর্বর্তীকালীন প্রধান নির্বাহী নিক হকলি।

এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘খেলোয়াড়দের জন্য মূল বিষয় হচ্ছে তাদের নিয়মিত পরীক্ষা করানো। আর যখন তারা আসবে তাদের যথাযথ কোয়ারেন্টাইন মেনে চলা। আমাদের কাজ হচ্ছে কোয়ারেন্টাইনের সময়টায় তারা যেন পর্যাপ্ত ট্রেনিং করতে পারে যাতে ম্যাচে অসুবিধা না হয় সেটা নিশ্চিত করা। আমরা যদি ইংল্যান্ড সফরে যাই তখন দ্য ইংল্যান্ড ও ওয়েলস ক্রিকেট বোর্ডের (ইসিবি) ক্ষেত্রেও একই রকম হবে।’

গত সপ্তাহে বিসিসিআই সভাপতি সৌরভ গাঙ্গুলি ভারতীয় গণমাধ্যমে জানিয়েছেন কোয়ারেন্টাইনের সময়কাল ১৪ দিন হলে হতাশাজনক।

গাঙ্গুলি বলেন, ‘এটা খুবই হতাশাজনক (১৪ দিনের কোয়ারেন্টাইন)। কোয়ারেন্টাইনের জিনিসগুলোর দিকে আমরা লক্ষ্য রাখছি। আর যেমনটা আমি বলেছি মেলবোর্ন ছাড়া অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ড ভালো (করোনায়) অবস্থায় আছে। সে দিক থেকে বিবেচনা করলে আমরা যেখানে যাবো সেখানে কোয়ারেন্টাইনের দিনগুলো কম হবে বলে আশা করি।’

এদিকে কোয়ারেন্টাইনে থাকার পাশাপাশি ভারতীয় ক্রিকেটারদের নিয়মিত পরীক্ষার মধ্য দিয়ে যেতে হবে বলে জানান ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া প্রধান নির্বাহী। অস্ট্রেলিয়ায় কোন দলের ভ্রমণের জন্যও অস্ট্রেলিয়া সরকারের অনুমতি পাওয়ার অপেক্ষায় ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া।

নিক হকলি বলেন, ‘আমাদের সরকারি ছাড়পত্র প্রয়োজন। ভারত যখন অস্ত্রেলিয়া সফরে আসবে ততদিনে দেশের সীমান্ত উন্মুক্ত করে দিবে সরকার এমন সম্ভাবনা নেই। স্পষ্টতই পরীক্ষার ব্যবস্থা থাকবে। লোকজন বিমানে ওঠার আগেই আমরা তাদের পরীক্ষা করতে সক্ষম হব এবং স্বাস্থ্য বিভাগের প্রোটোকল অনুসারে কোয়ারেন্টাইনের ব্যবস্থা করা হবে।’

ইংল্যান্ডের মত অস্ট্রেলিয়াও ‘বায়ো সিকিউর’ তৈরি করার ব্যাপারেও আশাবাদী নিক হকলি, ‘এটি কোন হোটেলের সাথে লাগোয়া অথবা ভেন্যুর নিকটতম কোন হোটেলে হতে পারে। এমন একটি পরিবেশ তৈরি করা হবে যেখানে ঝুঁকি কমানো সম্ভব। ‘বায়ো-সিকিউর’ পরিবেশ প্রস্তুতই অগ্রাধিকার পাবে। এটা করা না গেলে ঝুঁকি কমানো যাবেনা। অ্যাডিলেডে এমন একটা হোটেল আছে, এছাড়া অন্য সব বিকল্প নিয়েও আমরা কাজ করছি।’

৯৭ ডেস্ক

Read Previous

শেষ হল হোল্ডারের ১৮ মাসের যাত্রা, সিংহাসনে বসলেন স্টোকস

Read Next

বাদলা দিনে মুশফিকদের মনে ছেলেবেলার গান

Total
3
Share