রোমাঞ্চ মাখানো সাউদাম্পটন টেস্টে জিতল ওয়েস্ট ইন্ডিজ

ইংল্যান্ড ওয়েস্ট ইন্ডিজ
Vinkmag ad

শেষদিনে সাউদাম্পটন টেস্টে যতটা রোমাঞ্চ ছড়ানোর কথা ছিল ঠিক ততটা দেখা যায়নি। জার্মেইন ব্ল্যাকউডের ৯৫ রানের ইনিংসে ভর করে বাজে শুরুর পরও ৪ উইকেটের জয় পায় ওয়েস্ট ইন্ডিজ।

দিনের প্রথম সেশনে অবশ্য ছিল ভিন্ন কিছুর ইঙ্গিত, আগের দিনের ১৭০ রানের লিডের সাথে আরও ১৯ রান যোগ করে ইংলিশরা। ঠিক ২০০ রানের লক্ষ্য ছুঁড়ে দিয়ে মাত্র ২৭ রানেই ক্যারিবিয়ানদের ৩ উইকেট তুলে নেয়।

দলীয় ৭ রানে জফরা আর্চারের বলে বোল্ড হয়ে ফেরেন ওপেনার ক্রেইগ ব্র্যাথওয়েট। প্রথম ইনিংসে ফিফটি পেলেও দ্বিতীয় ইনিংসে ফিরেছেন ৪ রান করে। আর্চারের বলেই নতুন ব্যাটসম্যান শামারাহ ব্রুকস ফিরে যান কোন রান না করেই। তার আগেই আরেক ওপেনার জন ক্যাম্পবেল (১) ছিটকে যান আর্চারের দুর্দান্ত এক ইয়র্কারে ডান পায়ে চোট পেয়ে।

আর্চার ঝড় সামলে ওঠার আগেই মার্ক উড বোল্ড করে ফেরান শাই হোপকে (৯)। ২৭ রানে তিন উইকেট হারিয়ে ২০০ রানের লক্ষ্যটা যেন অসম্ভবে পরিণত হচ্ছিল। আউট হয়ে ফেরা প্রথম তিন ব্যাটসম্যানই ফিরেছেন দুই অঙ্ক ছোঁয়ার আগে। তিন উইকেটে ৩৫ রান তুলে লাঞ্চে যাওয়া ক্যারিবিয়ানরা অবশ্য পরের সেশনেই ম্যাচের নিয়ন্ত্রণ নিজের হাতে নিয়ে নেয়। যেখানে ত্রাণকর্তা হিসেবে আবির্ভাব হয় জার্মেইন ব্ল্যাকউডের।

রস্টন চেজের সাথে চতুর্থ উইকেট জুটিতে যোগ করেন ৭৩ রান। জুটি ভাঙতে আবারও হাজির জফরা আর্চার। ৩৭ রান করা রস্টন চেজকে উইকেট রক্ষক জস বাটলারের ক্যাচে পরিণত করেন। চা বিরতির আগে ক্যারিবিয়ানরা হারায় কেবল চেজের উইকেটটি। চেইজ ফিরে গেলেও ক্যারিয়ারের ১১ তম ফিফটি তুলে নেন ব্ল্যাকউড। ৪ উইকেটে ১৪৩ রানে চা বিরতিতে যায় ওয়েস্ট ইন্ডিজ। ৬৫ রানে ব্ল্যাকউড ও শেন ডাওরিচ অপরাজিত ছিলেন ১৫ রানে।

বেশ কয়েকটি রান আউট ও ক্যাচের সুযোগ পেয়েও লুফে নিতে পারেনি ইংলিশরা। রিভিউ রিভিউ খেলাতেও জিতেছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ ব্যাটসম্যানরা। চা বিরতির পর ২০ রান করে ডাওরিচ ফিরে যান ইংলিশ কাপ্তান বেন স্টোকসের বলে। ততক্ষণে অবশ্য জয় থেকে মাত্র ৩২ রান দূরে দাঁড়িয়ে ক্যারিবিয়ানরা। ক্যারিয়ারের দ্বিতীয় সেঞ্চুরি পথে হাঁটছিলেন ব্ল্যাকউডও। অধিনায়ক জেসন হোল্ডারকে নিয়ে বাকি পথ শেষ করে আসতে পারেননি স্টোকসের দ্বিতীয় শিকার হয়ে। জিমি অ্যান্ডারসনকে ক্যাচ দেওয়ার আগে খেলেন ১৫৪ বলে ১২ চারে ৯৫ রানের ইনিংস।

রিটায়ার্ড হার্ট হওয়া জন ক্যাম্পবেলকে নিয়ে ম্যাচ জিতিয়েই অবশ্য মাঠ ছাড়েন ক্যারিবিয়ান অধিনায়ক। অপরাজিত থাকেন ১৪ রানে, ক্যাম্পবেল অপরাজিত ছিলেন ৮ রানে। জফরা আর্চারের তিন উইকেটের সাথে বেন স্টোকস দুটি ও মার্ক উডের শিকার একটি উইকেট।

এর আগে পঞ্চম দিন সকালে ৮ উইকেটে ২৮৪ রানে দিন শুরু করে ইংল্যান্ড। ১৭০ রানের লিডকে বেড়ে ১৯৯ রান হয় জফরা আর্চারের ২৩ রানের ইনিংসটির সুবাদে। ইংলিশদের শেষ দুটি উইকেট তুলে নিয়ে ইনিংসে পাঁচ উইকেট পূর্ণ করেন শ্যানন গ্যাব্রিয়েল। প্রথম ইনিংসেও এই ক্যারিবিয়ান পেসারের শিকার ৪ উইকেট। অল আউট হওয়ার আগে ইংল্যান্ড থামে ৩১৩ রানে।

১১৪ রানে পিছিয়ে থাকা ইংলিশরা সফরকারীদের ২০০ রানের টার্গেট দেয়। এর আগে প্রথম ইনিংসে তারা তুলতে পারে ২০৪ রান জবাবে ক্যারিবিয়ানরা তোলে ৩১৮ রান। এটি ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ওয়েস্ট ইন্ডিজের ৫৮ তম টেস্ট জয়। তিন ম্যাচ টেস্ট সিরিজটি টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের অংশ বলে জয় থেকে পূর্ণ ৪০ পয়েন্ট পেল ক্যারিবিয়ানরা।

সংক্ষিপ্ত স্কোরঃ

ইংল্যান্ড ২০৪/১০ ও ৩১৩/১০ (১১১.২ ওভার), বার্নস ৪২, সিবলি ৫০, ডেনলি ২৯, ক্রাওলে ৭৬, স্টোকস ৪৬, পোপ ১২, বাটলার ৯, বেস ৩, আর্চার ২৩, উড ২, অ্যান্ডারসন ৪*; রোচ ২২-৮-৫০-০, গ্যাব্রিয়েল ২১.২-৪-৭৫-৫, হোল্ডার ২২-৮-৪৯-১, চেজ ২৫-৬-৭১-২, জোসেফ ১৮-২-৪৫-২, ব্র্যাথওয়েট ৩-০-৯-০।

ওয়েস্ট ইন্ডিজ ৩১৮/১০ ও ২০০/৬ (৬৪.২ ওভার), ব্র্যাথওয়েট ৪, ক্যাম্পবেল ৮*, হোপ ৯, ব্রুকস ০, চেজ ৩৭, ব্ল্যাকউড ৯৫, ডাওরিচ ২০, হোল্ডার ১৪*; অ্যান্ডারসন ১৫-৩-৪২-০, আর্চার ১৭-৩-৪৫-৩, উড ১২-০-৩৬-১, বেস ১০-২-৩১-০, স্টোকস ১০.২ -১-৩৯-২।

ফলাফলঃ ওয়েস্ট ইন্ডিজ ৪ উইকেটে জয়ী।

ম্যাচসেরাঃ শ্যানন গ্যাব্রিয়েল (ওয়েস্ট ইন্ডিজ)।

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

ক্রিকেটকে ঘৃণা করতে শুরু করেছিলেন টিম পেইন

Read Next

টুইটার জুড়ে চলছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ বন্দনা

Total
3
Share