বিনোদনমূলক ক্রিকেট খেলার অনুমতি দিল ইংল্যান্ড সরকার

ইংল্যান্ড রিক্রিয়েশনাল ক্রিকেট
Vinkmag ad

সবার আগে করোনা পরবর্তী আন্তর্জাতিক ক্রিকেট ফিরতে যাচ্ছে ইংল্যান্ডে। ৮ জুলাই সাউদাম্পটনে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে তিন ম্যাচ টেস্ট সিরিজের প্রথমটি মাঠে গড়াবে। তার আগেই দুই দল নিজেদের মত করে অনুশীলন ম্যাচও খেলছে। এদিকে ১ আগস্ট থেকে ক্লাব ক্রিকেটও শুরুর ঘোষণা দেয় ইংল্যান্ড ও ওয়েলস ক্রিকেট বোর্ড (ইসিবি)। দেশটিতে এবার ছাড়পত্র মিলেছে বিনোদনমূলক ক্রিকেটেরও।

আগামী সপ্তাহের ছুটির দিন থেকে শুরু করা যাবে যেকোন ধরণের বিনোদনমূলক ক্রিকেট। শুক্রবার (৩ জুলাই) যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী এই অনুমোদন দেন। তিনি বলেন, ‘আমি যা বলতে পারি তা হল আমাদের চেষ্টা যত দ্রুত ক্রিকেট ফিরিয়ে আনা যায়। আগামী কয়েকদিনের মধ্যে নির্দেশনা প্রকাশ করা হবে যাতে পরবর্তী সাপ্তাহিক ছুটির দিন থেকে বিনোদনমূলক ক্রিকেট শুরু করা যায়।’

প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্যের প্রতিক্রিয়া প্রকাশ করতে গিয়ে এক বিবৃতিতে ইসিবি জানায়, ‘আমরা আনন্দিত যে যুক্তরাজ্য সরকার আগামী সপ্তাহ থেকে বিনোদনমূলক ক্রিকেট শুরুর অনুমতি দিয়েছে। ক্লাব ও খেলোয়াড়দের ক্রিকেট ফেরানোর ক্ষেত্রে সহায়তা করার লক্ষ্যে দ্রুতই অনুমোদিত নির্দেশনা প্রকাশ করা হবে।’

করোনা পরবর্তী বিনোদনমূলক ক্রিকেট মাঠে ফিরলে কেমন নির্দেশনা থাকতে পারে তার একটা ধারণা দিয়েছেন ইসিবির প্রধান মেডিকেল অফিসার ক্রিস হুইটি। তিনি বলেন, ‘এটা ছয় জন বা তারও বেশি সংখ্যক লোকের একসাথে থাকার ব্যাপার বলা যায়। কিন্তু ক্রিকেট বলেই প্রয়োজনীয় দূরত্ব বজায় রাখা সম্ভব।’

‘কেউ যদি বোকামি করে উদযাপন করতে গিয়ে কাউকে জড়িয়ে না ধরে কিংবা বলে থুতু ব্যবহার না করে তবে বেশ নিরাপদেই তারা দূরত্ব বজায় রাখতে পারবে। খুব ঝুকিপূর্ণ কোন আউটডোর গেম বলা যাবেনা ক্রিকেটকে। তবে একদম ঝুঁকি যে নেই তা কিন্তু না। যেটা হল এসব চিন্তার মধ্যে আছে এবং মোকাবেলাযোগ্য। চাইলে সঠিকভাবে পরিচালনা করাও যাবে। উদাহরণস্বরূপ বলা যায় এখন থেকে এক সাথে চা বা বিয়ার পানের ক্ষেত্রে যতটা ভীড় এড়ানো যায়।’

৯৭ ডেস্ক

Read Previous

প্রস্তুতি ম্যাচে ইংলিশদের স্বস্তির জায়গা একাধিক

Read Next

‘সিএ’ ও ‘এসিএ’ এর মধ্যে সমঝোতা

Total
5
Share