লালা ব্যবহারে নিষেধাজ্ঞাতে সমস্যা দেখছেন না আজহার

আজহার আলি
Vinkmag ad

পাকিস্তানি টেস্ট অধিনায়ক আজহার আলি মনে করেন আসন্ন ইংল্যান্ড সফরে ইংলিশদের হারানো সম্ভব। তবে সে জন্য নিজেদের ব্যাটিং বিভাগের সাফল্যের দিকে তাকিয়ে তিনি। অন্যদিকে বোলারদের ক্ষেত্রে বলে লালা ব্যবহার নিষিদ্ধ হওয়াটাও খুব বেশি প্রভাব ফেলবেনা বলে মত পাকিস্তান কাপ্তানের।

৩০ জুলাই লর্ডস টেস্ট দিয়ে তিন ম্যাচ টেস্ট সিরিজটি শুরু হওয়ার কথা। করোনা পরবর্তী যা দ্বিতীয় আন্তর্জাতিক সিরিজ হিসেবে মাঠে গড়াবে। ইংল্যান্ড পৌঁছে কোয়ারেন্টাইন পালন করতে হবে। আর সে কারণে প্রায় এক মাস আগেই ব্রিটিশ বিমানে চড়বে পাকিস্তান।

২০ জন ক্রিকেটার ও ১১ জন সাপোর্ট স্টাফ নিয়ে ইংল্যান্ডের উদ্দেশ্যে দেশে ছাড়ার কথা রোববার (২৮ জুলাই)। করোনা ভাইরাস টেস্টে পজিটিভ প্রমাণিত হওয়ায় ১০ জন ক্রিকেটারকে ছাড়াই ইংল্যান্ড যাচ্ছে পাকিস্তান দল। তাদের মধ্যে ৬ জন দ্বিতীয় বার পরীক্ষায় নেগেটিভ প্রমাণিত হয়েছে। আগামী সপ্তাহে পুনরায় পরীক্ষায় নেগেটিভ হলেই কেবল মিলবে ইংল্যান্ড যাওয়ার ছাড়পত্র।

দেশ ছাড়ার আগের দিন সংবাদ মাধ্যমের সাথে আলাপে অধিনায়ক আজহার আলি শোনালেন আশার বানী। ইংল্যান্ডের বিপক্ষে সাম্প্রতিক টেস্ট পরিসংখ্যান অবশ্য পাকিস্তানের হয়েই কথা বলছে। সবশেষ ১২ টেস্টে পাকিস্তানের ৮ জয়ের বিপরীতে ইংলিশদের জয় মাত্র তিনটিতে। ব্যাটসম্যানরা ভালো করলে আসন্ন সিরিজেও ইতিবাচক ফলের ব্যাপারে আশাবাদী আজহার।

পাকিস্তান অধিনায়ক বলেন, ‘আমি মনে করি আমাদের দলীয় সংগ্রহ যদি ৩০০ এর আশেপাশে বা এর বেশি করতে পারি তাহলে ইংল্যান্ডকে হারানোর ভালো সম্ভাবনা থাকবে আমাদের। সাম্প্রতিক সফরগুলোতে আমরা বেশ ভালোভাবে কামব্যাক করেছি, সেখানে ভালোও খেলেছি।’

৭৮ টেস্ট খেলা পাকিস্তানি এই ব্যাটসম্যান দলের পেস আক্রমণ নিয়েও বেশ আশাবাদী, ‘আমি বিশ্বাস করি পেস-স্পিনের সমন্বয়ে গড়া আমাদের বোলিং আক্রমণ ইংলিশদের জবাব দেওয়ার সামর্থ্য রাখে। শাহীন শাহ আফ্রিদি, নাসিম শাহ ও মোহাম্মদ হাসনাইনের মত তরুণদের ইংলিশ কন্ডিশনে ভালো করার অপার সম্ভাবনা রয়েছে। এছাড়া বোলিং আক্রমণে অভিজ্ঞরাও আছে।’

এদিকে করোনা ভাইরাস প্রভাবে বলে লালা ব্যবহার সাময়িক নিষিদ্ধ হওয়াটাও খুব বেশি প্রভাব ফেলবেনা বলে মনে করেন আজহার। ৩৫ বছর বয়সী এই পাকিস্তানি ব্যাটসম্যান যোগ করেন, ‘আমি মনে করি না বলের উজ্জ্বলতা বাড়াতে লালা ব্যবহার না করা খুব একটা সমস্যা করবে। পেসাররা এমনিতে প্রচুর ঘামে, এছাড়া ডিউক বলে প্রচুর পরিমাণ মোমের প্রলেপ থাকে। ফলে বল অনেক্ষণ চকচকে থাকবে বলে আশা করি, আর বোলাররা নিজেদের ঘাম তো ব্যবহার করতে পারছেই।’

৯৭ ডেস্ক

Read Previous

বাংলাদেশ ক্রিকেট ও ভক্তদের অবদান নিয়ে বিশেষ ওয়েবিনার

Read Next

সেলফ আইসোলেশনে ওয়েস্ট ইন্ডিজের হেড কোচ

Total
8
Share