সেপ্টেম্বর-অক্টোবরে মাঠে গড়াবে এশিয়া কাপ

এশিয়া কাপ
Vinkmag ad

করোনা ভাইরাস প্রভাবে সৃষ্ট সংকটে অনিশ্চয়তার দোলাচলে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ, আইপিএলের মত মেগা আসরগুলো। বেশ কিছুদিন ধরে আলোচনা করেও চূড়ান্ত কোন সিদ্ধান্তে আসতে পারেনি এশিয়ান ক্রিকেট কাউন্সিলও (এসিসি)। ফলে এশিয়া কাপের আকাশেও শঙ্কার মেঘ উড়ছে ভালোভাবেই। কিন্তু পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড (পিসিবি) প্রধান নির্বাহী ওয়াসিম খান জোর দিয়ে বলছেন চলতি বছরই আয়োজন হবে এশিয়া কাপ।

পূর্ব নির্ধারিত ভেন্যু অনুসারে পাকিস্তানই আসন্ন এশিয়া কাপের আয়োজক। তবে পাকিস্তানে গিয়ে খেলতে ভারতের আপত্তির কারণে ভেন্যু বদলের আভাস মিলেছে আগেই। করোনা ভাইরাসে খুব একটা প্রভাব না পড়া দ্বীপ রাষ্ট্র শ্রীলঙ্কাই হতে যাচ্ছে বিকল্প ভেন্যু এমন খবর প্রকাশ করে লঙ্কান গণমাধ্যম।

কিন্তু পিসিবি প্রধান প্রধান নির্বাহী বলছেন শ্রীলঙ্কা কিংবা সংযুক্ত আরব আমিরাত যেকোন এক জায়গায় অনুষ্ঠিত হবে এশিয়া কাপ। আর সেটি চলতি বছরের শেষ দিকে হওয়ার সম্ভাবনা সবচেয়ে বেশি। গুঞ্জন ছিল আইপিএল আয়োজনে সময় ফাঁকা করে দিতে টুর্নামেন্টটি বাতিল হতে পারে। সেই গুঞ্জনও উড়িয়ে দিলেন ওয়াসিম খান।

গণমাধ্যমে ওয়াসিম খান বলেন, ‘এশিয়া কাপ আয়োজনের পথেই আছে। পাকিস্তান দল ইংল্যান্ড থেকে ২ সেপ্টেম্বর দেশে ফেরার কথা। সুতরাং সেপ্টেম্বর অক্টোবরে আমরা টুর্নামেন্ট আয়োজন করতে পারি।’

‘কিছু বিষয় থাকে যেগুলো একদম যথাসময়েই পরিষ্কার হওয়া যায়। আমরা এশিয়া কাপ আয়োজনের ব্যাপারে বেশ আশাবাদী। কারণ শ্রীলঙ্কায় করোনা ভাইরাস খুব একটা প্রভাব ফেলেনি। তারা এটি করতে না পারলে, সংযুক্ত আরব আমিরাত প্রস্তুত আছে।’

এদিকে বছরের শেষদিকে করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক হবে এমন বিবেচনায় বিভিন্ন সিরিজের সূচী নিয়েও কাজ করছে পিসিবি। ওয়াসিম খান বলেন, ‘ঘরের মাঠে জিম্বাবুয়েকে আতিথেয়তা দিয়ে ডিসেম্বরে আমরা নিউজিল্যান্ড সফরে যাবো। দক্ষিণ আফ্রিকাও জানুয়ারি-ফেব্রুয়ারিতে পাকিস্তান আসতে প্রস্তুত। সফরে তারা দুইটি বা তিনটি টেস্ট খেলবে সাথে কিছু টি-টোয়েন্টিও থাকবে।’

৯৭ ডেস্ক

Read Previous

সাকিবকে যে পরামর্শ দিয়েছিলেন শাহরুখ খান

Read Next

এমসিসির ২৩৩ বছরের খরা কাটছে ক্লেয়ার কনরে

Total
74
Share