সেই লঙ্কান ক্রীড়ামন্ত্রীর সঙ্গে যোগাযোগ করছে আইসিসি

আইসিসি মাহিন্দানান্দা আলুথগামাগে শ্রীলঙ্কা ম্যাচ ফিক্সিং
Vinkmag ad

সাম্প্রতিক সময়ে লঙ্কান ক্রিকেটে ঝড় বয়ে যাচ্ছে সাবকে ক্রীড়ামন্ত্রী মাহিন্দানান্দা আলুথগামাগের করা এক মন্তব্যে। ২০১১ সালের বিশ্বকাপ ফাইনালে ভারতের বিপক্ষে ইচ্ছে করেই হেরেছে শ্রীলঙ্কা এমনটাই অভিযোগ তার। নিজের মন্তব্যের পক্ষে শক্ত প্রামাণও আছে বলে দাবি করেন। সেই প্রেক্ষিতে এবার তার সাথে যোগাযোগ করতে যাচ্ছে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিলও (আইসিসি)।

আইসিসির এক কর্মকর্তা লঙ্কান গণমাধ্যম ‘নিউজওয়্যারকে’ এই তথ্য দেন। তিনি বলেন, ‘তদন্তের যোগ্য কোন বিষয় আছে কীনা তা দেখার জন্য তার (আলুথগামাগে) সাথে কথা বলার অপেক্ষায় আছি।’

গত সপ্তাহে বিশ্বকাপের সেই ফাইনাল নিয়ে অভিযোগ তুলে মাহিন্দানান্দা আলুথগামাগে বলেন, ‘২০১১ বিশ্বকাপের ফাইনাল ফিক্সড ছিল। আমি যা বলছি তা দায়িত্ব নিয়েই বলছি। আমি তখন ক্রীড়া মন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করছিলাম।’

‘আমি ক্রিকেটারদের এর মধ্যে অন্তর্ভূক্ত করতে চাই না। তবে যাই হোক, একটি নির্দিষ্ট গ্রুপ সেই ম্যাচটি ফিক্সড করার কাজে যুক্ত ছিল। ম্যাচটি আমরা জিততে পারতাম, তবে তা ফিক্সড ছিল। আমি এটা দায়িত্ব নিয়েই বলছি, এবং এটা নিয়ে আমি তর্কে বসতে প্রস্তুত।’

পরাজিত দলে থাকলেও ঐ ম্যাচে সেঞ্চুরি হাঁকানো লঙ্কান তারকা মাহেলা জয়াবর্ধনে অবশ্য উড়িয়ে দিয়েছেন অভিযোগ। আসন্ন নির্বাচন সামনে রেখে সাবেক ক্রীড়ামন্ত্রীর নতুন কোন পরিকল্পনা। নিজের টুইটারে লেখেন, ‘নির্বাচন যখন আসন্ন, তখনই সার্কাস শুরু হয়েছে। নাম আর প্রমাণ কই?’

দলটির আরেক তারকা ব্যাটসম্যান কুমার সাঙ্গাকারাও কথা বলেছেন একই সুরে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে নিজের আইডিতে লিখেন, ‘সাবেক ক্রীড়ামন্ত্রী মাহিন্দানান্দা আলুথগামাগের নিজে ‘প্রমাণ’ আইসিসি ও দুর্নীতিবিরোধী ইউনিটের কাছে নিয়ে যাওয়া দরকার। যেন তার অভিযোগের তদন্ত হতে পারে।’

এদিকে মাহিন্দানান্দা আলুথগামাগে অভিযোগ তুলে না নিলে তার বিরুদ্ধে চ্যালেঞ্জ করার শক্তিশালী ক্ষেত্র রয়েছে বলে মনে করেন আইন বিশেষজ্ঞরা। তারা বলছেন স্পোর্টস আইনের সাথে সম্পর্কিত অপরাধ প্রতিরোধের ১৩ অনুচ্ছেদে এই অপরাধের জন্য জরিমানা ও কারাদণ্ড দেওয়ার বিধান আছে।

৯৭ ডেস্ক

Read Previous

‘ভাল্লুককে খোঁচা দিয়ে রাগানোর মানে হয়না’

Read Next

ফ্রন্টলাইনারদের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশে ইসিবির অভিনব উদ্যোগ

Total
4
Share