ধোনিকে সুযোগ দেবার গল্প শোনালেন সৈয়দ কিরমানি

মাহেন্দ্র সিং ধোনি সৈয়দ কিরমানি
Vinkmag ad

সৈয়দ কিরমানি ভারতের বিশ্বকাপজয়ী দলের (১৯৮৩) সদস্য। খেলোয়াড়ি জীবন শেষে ভারতের সিলেকশন কমিটির চেয়ারম্যান হিসাবেও কাজ করেছেন তিনি। জাতীয় দলের জন্য মাহেন্দ্র সিং ধোনিকে যখন বিবেচনা করা হয় তখন কিরমানি সেই দায়িত্বে ছিলেন।

হিন্দুস্তান টাইমসের সঙ্গে আলাপকালে সৈয়দ কিরমানি জানান মাহেন্দ্র সিং ধোনিকে মনে ধরার গল্প।

কিরমানি বলেন, ‘আমি এর আগে কখনো ধোনি কীভাবে সুযোগ পেল সেই গল্প সামনে আনিনি। আমি এবং প্রনব রয়, যিনি ইস্ট জোনে আমার সহ নির্বাচক ছিলেন একটি রঞ্জি ট্রফির ম্যাচ দেখছিলাম। অনেক আগের কথা বলে আমি ঠিক এখন স্পষ্ট করে বলতে পারছি না যে সেটা ঠিক কোন ম্যাচ ছিল। প্রনব রয় আমাকে বলেছিল ঝাড়খন্ড থেকে একজন উইকেটকিপার ব্যাটসম্যান আছে যে তরুণ এবং নির্বাচিত হবার দাবি রাখে।’

‘আমি তখন তাকে জিজ্ঞাসা করলাম সে কি এই ম্যাচে উইকেটকিপিং করছে? প্রনব উত্তরে বললো না, তবে সে ফাইন লেগে ফিল্ডিং করছে। তখন আমি ধোনির পরিসংখ্যান দেখলাম, দুই বছর ধরে সে ধারাবাহিকভাবে ব্যাট হাতে রান করে গেছে। তার কিপিং না দেখেই আমি ধোনিকে সরাসরি ইস্ট জোনের দলে নিতে পরামর্শ দিই, বাকিটা ইতিহাস।’

ইনজুরি, ম্যাচ ফিক্সিংয়ের অভিযোগের কারণে নয়ন মঙ্গিয়া বাদ পড়ার পর তার বিকল্প খুঁজতে বেগ পেতে হয়েছে ভারতীয় দলকে। চোখে আঘাত পেয়ে ক্যারিয়ার শেষ হয় সাবা করিমের।

এরপর দীপ দাসগুপ্তা, অজয় রাত্রা, সামির দিঘেসহ অনেককেই সুযোগ দেওয়া হলেও কেউ জায়গা পাকা করতে পারেননি। এমনকি রাহুল দ্রাবিড়ও সামলেছেন উইকেটরক্ষকের দায়িত্ব।

তখন মাহেন্দ্র সিং ধোনি ভারতের জন্য আশীর্বাদ হয়ে আসেন। মারকুটে ব্যাটসম্যান ধোনি ভারতের ব্যাটিংয়েও ভারসাম্য আনেন। দলে জায়গা পাকা করার পর দ্রুতই দলের নেতৃত্ব পান, ২০০৭ সালে ভারতকে জেতান টি-টোয়েন্টি বিশ্ব আসরের শিরোপা। পরে ২০১১ সালে ভারতকে বিশ্বকাপও জেতান তিনি।

ধোনিকে অধিনায়ক বানানোর সিদ্ধান্তের প্রশংসা করে কিরমানি বলেন, ‘ধোনিকে অধিনায়ক করা হল ভারতের ক্রিকেটে ঘটা সবচেয়ে ভাল ঘটনা। সে প্রমাণ করেছিল উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যানের ভূমিকা। আমাদের সময়ে মনে করা হত এটা বাড়তি চাপ যা পারফরম্যান্সে প্রভাব ফেলবে। আমি খুবই খুশি যে ধোনি এই পারসেপশনটা পরিবর্তন করতে পেরেছে, তাদেরকে ভুল প্রমাণ করতে পেরেছে।’

সোয়দ মুজতবা হোসেন কিরমানি ভারতের পক্ষে ৮৮ টেস্ট ও ৪৯ ওয়ানডে খেলেছেন। ১০ বছরের আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ারে ব্যাট হাতে দুই ফরম্যাট মিলে রান করেছেন ৩০০০ এর বেশি। ১৮৭ ক্যাচের পাশাপাশি স্টাম্পিং করেছেন ৪৭ টি।

৯৭ ডেস্ক

Read Previous

আইসিসির নতুন নিয়ম: লালা ব্যবহারে পেনাল্টি, কোভিড-১৯ বদলি

Read Next

লালা ব্যবহার নিষিদ্ধ, টেন্ডুলকার দিলেন বিশেষ পরামর্শ

Total
55
Share