ক্রিকেটারদের নিয়ে কোন ঝুঁকি নয়, সতর্ক অবস্থানে বিসিবি

বিসিবি লোগো
Vinkmag ad

গতকাল (৩০ মে) শেষ হল করোনা ভাইরাস প্রভাবে আরোপিত সরকারি সাধারণ ছুটির মেয়াদ। আজ থেকে সীমিত পরিসরে খুলে দেওয়া হয়েছে সরকারি, বেসরকারি অফিস, গণপরিবহনও। সবকিছুর সাথে প্রায় আড়াই মাস ধরে বন্ধ থাকা দেশের ক্রিকেটাঙ্গনও সরব হচ্ছে দ্রুত এমনটা বলার অবশ্য সুযোগ নেই। বিসিবির প্রধান নির্বাহী নিজাম উদ্দিন চৌধুরী সুজন ও ক্রিকেট পরিচালনা বিভাগের প্রধান আকরাম খান দিয়েছেন তেমন আভাসই।

বিসিবির প্রধান নির্বাহী নিজাম উদ্দিন চৌধুরী জানালেন অন্তত মধ্য জুনের আগে দেশের ক্রিকেট মাঠে গড়ানোর ব্যাপারে রূপ রেখা তৈরি সম্ভব নয়, ‘সীমিত পরিসরে গণপরিবহণ খুলে দেয়ার পর সরকার পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করছে। এরপর হয়তো ঘরোয়া খেলার ইভেন্টগুলো শুরু করার জন্য প্রয়োজনীয় নির্দেশনা দেবে তারা। সেক্ষেত্রে এক কিংবা দুই সপ্তাহের মতো সময় লাগতে পারে। তার মানে হলো জুনের মাঝামাঝি সময় পর্যন্ত কোনো ইভেন্ট শুরু করা সম্ভব হচ্ছে না।’

শুধু বোর্ড বা ক্লাব নয়, খেলোয়াড়দের ভাবনাকেও গুরুত্বের সঙ্গে দেখছেন বিসিবির প্রধান নির্বাহী।

‘আমরা কিংবা ক্লাব চাইলেই তো আর হবে না। খেলোয়াড়রা কি বলে সেটাই গুরুত্বপূর্ণ। ঘরোয়া এবং আন্তর্জাতিক ক্রিকেট শুরু করার জন্য আমাদের খেলোয়াড়দের মতামত নিতে হবে। আমাদের প্রথমে জানতে হবে তারা কি চায়। তারা যদি রাজি হয় তাহলে আমরা সেভাবে পরিকল্পনামাফিক খেলাগুলো সাজাবো।’

সীমিত আকারে প্রায় সবকিছুই স্বাভাবিক নিয়মে চালু হতে শুরু করেছে। যদিও করোনার শিকার হওয়া রোগীর সংখ্যা বাড়ছে প্রতিদিনই। দেশে করোনা পরিস্থিতি ক্রমশ অবনতির দিকে।

বিসিবির ক্রিকেট পরিচালনা বিভাগের প্রধান আকরাম খান তাই জানালেন কবে নাগাদ খেলা মাঠে ফিরতে পারে তা নিয়ে তারা এখনই কিছু স্পষ্ট করে জানাতে পারছেন না। জুনের প্রথম সপ্তাহেই দেশের ক্রিকেটের ভবিষ্যত নিয়ে আলোচনায় বসবেন বলে জানান তিনি।

আকরাম বলেন, ‘দেখেন সব কিছু খুলে দিলেও করোনা পরিস্থিতি আগের চেয়ে ভয়াবহ। তাই আমরা ক্রিকেটারদের নিয়ে কোনো ধরনের ঝুঁকি নিতে চাই না।’

ভালোমানের ক্রিকেটারের বিকল্প বেশি নেই বলে ঝুঁকি নিতে নারাজ তারা, ‘দেখেন আমাদের ভালো মানের ক্রিকেটার খুব বেশি নেই। যদি কোন ক্রিকেটার করোনার শিকার হন তাদের বিকল্প বের করা কঠিন হয়ে যাবে। যে কারণে মনে হয় এখনই ক্রিকেট মাঠে ফেরানো কোনভাবেই উচিত হবে না। আমরা ৭ তারিখের মধ্যে পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনায় বসবো।’

‘সেখানেই ঠিক করবো ক্রিকেট আমরা মাঠে ফেরাতে পারি কিনা। তবে আমার ব্যক্তিগত মত যদি বলেন আমি কোনোভাবেই ক্রিকেটারদের নিয়ে ঝুঁকি নিতে চাই না। আরেকটা কথা বলে রাখা ভালো, মনে হয় না জুনে আমরা ক্রিকেট শুরু করতে পারবো। পরিস্থিতি ভালো হলেই ভাববো কী করা যায়।’

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

অনুশীলনে ফেরার অনুমতি পেল প্রোটিয়ারা

Read Next

যাদের ব্যাটিং দেখতে ক্লান্তি ভর করত না ইয়ান গোল্ডের

Total
6
Share