সাকিবের শৈশবের হিরো ছিলেন যারা

shakib 3
Vinkmag ad

বাংলাদেশের পোস্টারবয় সাকিব আল হাসান বিশ্ব ক্রিকেটে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করেছেন ব্যাটে-বলে সমান তালে পারফর্ম করে। এক যুগের বেশি সময়ের ক্যারিয়ারে খেলেছেন রথী-মহারথীদের সাথে, কালের পরিক্রমায় নিজেও কিংবদন্তী হয়ে উঠেছেন। সব ছাপিয়ে সবারই থাকে ব্যক্তিগতভাবে পছন্দের প্রিয় তারকা, ছোটবেলায় সাকিবের সেই প্রিয় পাত্র ছিল সাইদ আনোয়ার, ওয়াসিম আকরামরা। ভালো লাগতো ব্রায়ান লারা, রাহুল দ্রাবিড়, গ্রায়েম স্মিথদের যাদের সাথে পরবর্তীতে খেলারও সুযোগ হয়েছিল।

তথ্য গোপন অভিযোগে আইসিসির এক বছরের নিষেধাজ্ঞায় আছেন সাকিব, করোনা ভাইরাস প্রভাবে থমকে আছে বিশ্ব ক্রিকেটও। পরিবার নিয়ে বর্তমানে যুক্তরাষ্ট্রে অবস্থানরত সাকিব আল হাসান আজ (২৭ মে) ইলেক্ট্রনিক্স পণ্য প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠান ‘মিনিস্টার’ এর ফেসবুক লাইভ আড্ডায় অতিথি হয়ে অংশ নেন। ‘মিনিস্টার’ এর ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডরও বিশ্বের অন্যতম সেরা এই অলরাউন্ডার।

অনুষ্ঠান সঞ্চালকের করা প্রশ্নের জবাবে সাকিব জানান ছোটবেলায় ব্যাটিংয়ে তার প্রিয় পাকিস্তানি ব্যাটসম্যান সাইদ আনোয়ার, পেসার ওয়াসিম আকরাম ও স্পিনে সাকলাইন মুশতাক। অধিনায়ক হিসেবে তার পছন্দের তালিকায় ছিল প্রোটিয়া সাবেক তারকা গ্র্যামে স্মিথ।

সাকিব বলেন, ‘আসলে পছন্দতো ছোটবেলাতেই থাকে কারণ বড় হওয়ার পর বিশেষ করে খেলা শুরু করলে সেভাবে থাকেনা। একদম শুরুতে সাইদ আনোয়ারের ব্যাটিং আমার অনেক ভালো লাগতো। ফাস্ট বোলিংয়ে ওয়াসিম আকরাম ও স্পিনে সাকলাইন মুশতাক। এছাড়া রাহুল দ্রাবিড়, ব্রায়ান লারা এদেরকে ভালো লাগতো।’

‘এর বাইরেও অনেককে ভালো লেগেছে যেমন পরবর্তীতে ড্যানিয়েল ভেট্টোরিকে আমার অনেক ভালো লাগতো। গ্রায়েম স্মিথের অধিনায়কত্ব আমার ভালো লাগতো। এরকম অনেকেই এসেছেন তো শুরুর দিকের কথা বললে সাইদ আনোয়ার, সাকলাইন মুশতাক, ওয়াসিম আকরাম ও রাহুল দ্রাবিড়।’

ছোটবেলায় খেলা দেখতে মাগুরা শহরের টাউন হল ক্লাবে ছুটে যেতেন উল্লেখ করে সাকিব জানান, ‘আগেতো যেটা হত খুব বেশি চ্যানেল ছিলনা। হয়তো দুরদর্শন যে চ্যানেলটা আছে ওটা দিয়ে খেলা দেখতে হত। আমার মনে আছে যে আমি চলে যেতাম মাগুরাতে টাউন হল ক্লাব নামে একটা ক্লাব আছে ওখানে আরকি সবাই খেলা দেখতো রাতের বেলায়। ওখানে গিয়েই খেলা দেখতাম।’

আড্ডার এক ফাঁকে ১৯৯৭ সালে টাইগারদের আইসিসি ট্রফি জয়ের স্মৃতিচারণাও করে বিশ্ব সেরা অলরাউন্ডার, ‘আমিতো তখন খুবই ছোট বয়স মাত্র ১০ বছর। শুধু এতটুকুই মনে আছে সবাই রেডিওতে শুনেছে, জিতে গেছে। মিছিল হচ্ছে, আনন্দ হচ্ছে, রঙ মাখামাখি করছে মানুষ। এসবই মনে আছে খুব সামান্য, কারণ আমার বয়সতো তখন কম ছিল।’

৯৭ ডেস্ক

Read Previous

মুশফিক ও তার অটোগ্রাফ

Read Next

করোনায় থমকে গেছে আকবরদের নিয়ে কোটি টাকার প্রকল্প

Total
15
Share