স্টোকসদের যেভাবে রাগিয়ে দিয়েছিলেন তামিমরা

বেন স্টোকস তামিম ইকবাল ইংল্যান্ড
Vinkmag ad

২০১৬ সালে তামিম ইকবাল ও বেন স্টোকসের মধ্যে কথা কাটাকাটি নিয়ে আলোচনা হয়েছিল বিস্তর। ইংল্যান্ডের বাংলাদেশ সফরে দ্বিতীয় ওয়ানডেতে বেধে গিয়েছিল দুজনের মধ্যে। তামিম জানিয়েছেন স্টোকসদের স্লেজিং করতে সেবার ভিন্ন পন্থা অবলম্বন করেছিলেন তিনি।

নট আউট নোমান নামক ইউটিউব চ্যানেলে এসে তামিম ইকবাল ব্জানান কীভাবে ইংল্যান্ডের ক্রিকেটারদের স্লেজিং করার পরিকল্পনা এটেছিলেন তিনি। যদিও শুরুটা করেছিল ইংলিশরা।

তামিম বলেন, ‘ইংল্যান্ডের সাথে প্রথম ওয়ানডেতে আমরা হারি। আমাদের তরুণ ক্রিকেটারদের ওরা বেশ স্লেজিং করছিল। তো দ্বিতীয় ম্যাচের আগে আমি ঠিক করে নিয়েছিলাম, যাই হোক আজ আমি স্লেজিং করব ওদের।’

বাংলা বলে স্টোকসদের ক্ষেপিয়ে দিতেন তামিম

৫-৬ জন সতীর্থকে আগে থেকে দুষ্টু বুদ্ধি সম্পর্কে অবগত করে রেখেছিলেন তামিম। মাঠে সেই পরিকল্পনার বাস্তবায়নও করেন তামিমরা।

‘পাঁচ-ছয় জন সতীর্থকে বলে রেখেছিলাম- আমি যাই বলি না কেন তোরা শুধু হাসবি। যে ব্যাটসম্যান ক্রিজে আসে, আমি একটা কথা বলি আর পাঁচজন মিলে হাসে। এতে ওদের মাথা খারাপ হয়ে যায়।’

যদিও তামিম জানান বাগবিতন্ডার শুরুটা বেন স্টোকসের সঙ্গে হয়নি, বরং জনি বেয়ারস্টোর সঙ্গে হয়েছিল।

তামিম বলেন, ‘ম্যাচ শেষে হ্যান্ডশেক করার সময় জনি বেয়ারস্টো আমার হাত চাপ দিয়ে ধরে মুচড়ে দেওয়ার চেষ্টা করে। আমি প্রতিবাদ জানিয়ে বললাম- এটা কী করছ? তখন স্টোকস ওর পক্ষে কথা বলতে আসলে কথা কাটাকাটি হয়। ব্যক্তিগতভাবে স্টোকসের সাথে কিছু হয়নি।’

৯৭ ডেস্ক

Read Previous

দুই সপ্তাহের রিমান্ডে লঙ্কান ক্রিকেটার

Read Next

মুশফিকুর রহিম: বিস্ময় বালক থেকে মিস্টার ডিপেন্ডেবল

Total
6
Share