সারাজীবনের সঞ্চয় দিয়ে দেশে স্কুল পর্যায়ে কোচিং করাবেন বুলবুল

আমিনুল ইসলাম বুলবুল
Vinkmag ad

বাংলাদেশের সাবেক অধিনায়ক আমিনুল ইসলাম বুলবুল ক্রিকেট ক্যারিয়ারের ইতি টেনে এক যুগের বেশি সময় ধরে কাজ করছেন কোচ হিসেবে। আইসিসি ও এসিসিতে বিভিন্ন পদে থেকে সহযোগী দেশগুলোর ক্রিকেট উন্নয়নে রাখছেন বড় ভূমিকা। অথচ নিজ দেশের ক্রিকেটের সাথে যুক্ত হওয়ার সুযোগ হয়নি দেশের অভিষেক টেস্টে সেঞ্চুরি হাঁকানো এই ব্যাটসম্যানের। তার প্রতি বিসিবির অনাগ্রহের কারণটা এখনো দেশের ক্রিকেটের বড় এক রহস্যই বলা যায়।

বিসিবির কাছ থেকে যোগ্য সম্মান না পেলেও অভিযোগ নেই সাবেক এই তারকা ক্রিকেটারের। বরং যখনই সুযোগ পাবেন দেশের জন্য কাজ করবেন বিনা দ্বিধায়। এমনকি নিজের সারাজীবনের অর্জিত জ্ঞান আর সঞ্চয় কাজে লাগিয়ে দেশের তৃণমূল পর্যায়ে কাজ করতে চান আমিনুল ইসলাম। বর্তমানে অস্ট্রেলিয়া অবস্থানরত অভিজ্ঞ এই কোচ কারও সাহায্য কিংবা স্পনসর নয় স্কুল পর্যায়েই হাজার হাজার শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের সঠিক পন্থায় ক্রিকেট শেখাতে চান নিজ খরচে।

গতকাল (২০ মে) ইংল্যান্ড ভিত্তিক ‘টিভি থ্রি বাংলা’ বাংলাদেশি অনলাইন চ্যানেলে লাইভ আড্ডায় বাংলাদেশের ক্রিকেটে কাজ করা নিয়ে অনুষ্ঠান সঞ্চালকের করা প্রশ্নের জবাবে আমিনুল ইসলাম বলেন,
‘এই বিব্রতকর প্রশ্নের উত্তর আমাকে প্রায়ই দিতে হয়। আপনি দেশে আসছেন না কেন, সুযোগ পেলে আসবেন কিনা, আপনাকে সুযোগ দেওয়া হচ্ছেনা এই ধরণের প্রশ্ন। আসলে আমি যদি বাংলাদেশের জন্য কাজ করতে পারি শুধু কোচিং যে তা নয় যেকোন লেভেলে কাজ করার সুযোগ যদি পাই বা তারা যদি মনে করে আমি যোগ্য তাহলে…। তারা নির্দিষ্ট কোন পদের জন্য আমাকে এপ্লাই করতে বলেনি কখনো। এ ধরণের কোন প্রস্তাবও পাইনি। অবহেলা করে আমাকে এটা বলবনা, হয়তো ব্যাটে-বলে হয়নি।’

বিসিবি সুযোগ দিক বা না দিক সাবেক এই অধিনায়ক নিজের লম্বা সময়ের কোচিং ক্যারিয়ারের অভিজ্ঞতা দিয়ে নিজ খরচে বাংলাদেশ ক্রিকেটের কাজ করার স্বপ্ন দেখেন,

‘আমার একটা সুপ্ত স্বপ্ন আছে কখনো বলিনি, আজ বলি। মানুষ কতদিন বাঁচে বলা যায়না। বাংলাদেশতো আমাকে বহু কিছু দিয়েছে, মানুষের ভালোবাসা এখনো পাই। কোচিং লেভেলে কাজ করতে করতে এমন একটা অবস্থায় পৌঁছেছি যে আমার মনে হয়ে আমি কিছু দিতে পারবো দেশকে। আমার ইচ্ছে আছে, আমি নিজে একটা প্রজেক্টর কিনবো, কিছু প্লাস্টিক ইকুউইপমেন্ট কিনবো কোন স্পনসর নিবোনা। বাংলাদেশে যত প্রাইমারি স্কুল আছে সেখানকার ক্রীড়া শিক্ষক যারা স্নাতক ও যারা মেট্রিক পরীক্ষা দেয় তাদেরকে লেভেল-১ কোচিং কোর্স করানোর পরিকল্পনা আছে।’

পরবর্তী প্রজন্মকে সঠিক পন্থায় ক্রিকেট শেখানো নিশ্চিত করাই তার লক্ষ্য, ‘এটা হাজার হাজার শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের করানোর ইচ্ছে আমার কারণ আমরা জানি একটা ছেলে যখন বর্ণমালা শিখে তখন তাকে কেউ থামাতে পারেনা। সে জানবে কীভাবে ‘এ’ ফর অ্যাপল, ‘বি’ ফর বল হয়। তো আমার ইচ্ছে যেটা লেভেল-১ এ কীভাবে ব্যাট করতে হয়, ড্রাইভ করতে হয়, কীভাবে অফ স্পিন করতে হয়, কীভাবে ইন সুইং করতে হয়, কীভাবে ফিল্ডিং এর বেসিকগুলো রাখতে হয় এবং ক্রিকেট স্পিরিট এ ধরণের একটা কারিকুলাম তৈরি করা।’

‘কারও কোন স্পনসর লাগবেনা, একটা টাকাও নিবোনা। আমার সমস্ত চেষ্টা, সঞ্চয় দিয়ে আমার ইচ্ছে আছে প্রাইমারি স্কুলগুলোতে…প্রোপার ক্রিকেট যেন পরবর্তী প্রজন্মকে শেখাতে পারি সে কাজটা করবো। আমি কারও সাহায্য চাইনা ইন শা আল্লাহ। আমিতো বাংলাদেশের সমাজ ব্যবস্থার পরিবর্তন আনতে পারবোনা, অর্থনৈতিক অবস্থার পরিবর্তন আনতে পারবোনা। তো ক্রিকেটে যদি ১ শতাংশও পরিবর্তন আনতে পারি, যেটা আমার কাজ তাহলেই আমি সফল।’

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

বাবর আজমে মুগ্ধ কেন উইলিয়ামসন

Read Next

অভিষেকের মানবিক উদ্যোগ, পাশে পেয়েছেন ক্রিকেটারদের

Total
87
Share