তামিমকে রঘুর গল্প শোনালেন ভিরাট কোহলি

ভিরাট কোহলি রঘু
Vinkmag ad

থ্রোডাউন স্পেশালিস্ট ডি রাঘবেন্দ্র (রঘু) সাইডআর্ম ১৫০-১৫৫ কিলোমিটার প্রতি ঘন্টায় বল ছুঁড়তে পারেন। রঘুর কারণে ভারতীয় ব্যাটসম্যানদের ফাস্ট বোলারদের বিপক্ষে খেলাটা সহজ হয়ে গেছে, এমনটি বলেছেন ভারতীয় দলপতি ভিরাট কোহলি।

সাইডআর্ম ক্রিকেটীয় এক উপকরণ যা দেখতে অনেকটা লম্বা চামচের মতো। এটা দিয়ে দ্রুতগতিতে বল ছোড়া যায়।

ফেসবুক লাইভে বাংলাদেশের ওয়ানডে অধিনায়ক ভারতের তিন ফরম্যাটের অধিনায়ক ভিরাট কোহলিকে ত্রোডাউন স্পেশালিস্ট রঘু সম্পর্কে জিজ্ঞাসা করেন। এর আগে ভারতের সীমিত ওভারের ক্রিকেটের সহ অধিনায়ক রোহিত শর্মাকেও রঘু সম্পর্কে জিজ্ঞাসা করেছিলেন তামিম।

রঘুর কার্যকারিতা সম্পর্কে বলতে যেয়ে ভিরাট কোহলি বলেন, ‘আমি বিশ্বাস করি ২০১৩ সাল থেকে আমাদের দলের ফাস্ট বোলিং মোকাবেলা করার ব্যাপারে যে উন্নতি হয়েছে সেটা রঘুর কারণে।’

রাঘবেন্দ্র (কোহলির ডানে)। তার কারণেই পেসারদের বিপক্ষে ভারতীয় ব্যাটসম্যানদের এত উন্নতি
বা থেকে- শিখর ধাওয়ান, ভিরাট কোহলি, রঘু, উমেশ যাদব

‘তার ফুটওয়ার্ক সম্পর্কে দারুণ ধারণা আছে, প্লেয়ারদের ব্যাট মুভমেন্ট সম্পর্কেও ধারণা আছে। সে তার স্কিলকে এতটাই উন্নত করেছে যে সাইডআর্ম দিয়ে সে অনায়াসে ১৫৫ কিলোমিটার প্রতি ঘন্টায় বল ছুড়তে পারে।’

‘মানুষ বোঝে না, মনে করে আমরা নিজেরাই এত ভালো খেলছি। কিন্তু তারা জানে না, এর পেছনে কে আছে। রঘুর অবদান অনস্বীকার্য। পেসারদের বিপক্ষে আমাদের ব্যাটিংয়ের উন্নতিটা তার জন্যই হয়েছে।’

কোহলি জানান নেটে রঘুকে খেলার পর ম্যাচে গতি তারকাদের বিপক্ষে খেলাটা সহজ হয়ে যায় তার জন্য।

‘রঘুকে নেটে খেলার পর যখন তুমি ম্যাচ খেলতে যাবে তখন তুমি অনুভব করতে পারবে যে তোমার হাতে অনেক সময় আছে (গতি তারকাদের খেলার জন্য)।’

উল্লেখ্য, ২০১১ সাল থেকে ভারতীয় দলের থ্রোডাউন স্পেশালিস্ট হিসাবে আছেন ডি রাঘবেন্দ্র রঘু। ব্যাঙ্গালোরের ন্যাশনাল ক্রিকেট অ্যাকাডেমিতে তাকে দেখে ভাল লেগেছিল শচীন টেন্ডুলকার ও রাহুল দ্রাবিড়ের। এরপর থেকে কোহলিদের ফাস্ট বোলারদের মোকাবেলা করার জন্য প্রস্তুত করতে রঘু বড় ভূমিকা পালন করেছে।

ভিরাট কোহলি জানান নেটে তিনি খুব বেশি ব্যাটিং করেন না। যখন ফর্ম খারাপ যায় তখন তিনি নেটে বেশি সময় কাটান। কিন্তু যখনই কোহলি বুঝে যান যে নেটে একটা সেশন ভালো গেছে তখন তিনি আর সেটা ১০ মিনিটের বেশি বাড়ান না।

যদিও কোহলি মনে করেন অনুশীলনের প্রসেস একেকজনের একেক রকম। তিনি চেতেশ্বর পুজারার উদাহরণ টেনে বলেন পুজারা অন্তত ৩ ঘন্টা নেটে ব্যাটিং করে।

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

কোহলির সাথে তুলনা নিয়ে বাবর আজমের ভাষ্য

Read Next

কোহলির প্রত্যাশা সবাই চ্যালেঞ্জ সামলে হাসিমুখে ঈদ পালন করবে

Total
29
Share